কালিয়ায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত ১, গুলিবিদ্ধ ৯

  নড়াইল প্রতিনিধি ০৫ আগস্ট ২০২০, ১৯:৫৯:১৬ | অনলাইন সংস্করণ

নড়াইলের কালিয়ায় নবগঙ্গা নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলনে বাঁধা দেয়ার অপরাধে মাসুদ রানা (৩৫) নামে একটি বেসরকারি ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মীকে গুলি করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। যুগান্তর

নড়াইলের কালিয়ায় নবগঙ্গা নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলনে বাঁধা দেয়ার অপরাধে মাসুদ রানা (৩৫) নামে একটি বেসরকারি ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মীকে গুলি করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। ওই ঘটনায় নারী ও শিশুসহ ৯ জন গুলিবিদ্ধসহ ১৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় উপজেলার দেওয়াডাঙ্গা গ্রামে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে।

সন্ত্রাসী কাজল মোল্যাসহ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ ৬ জনকে আটক করেছে। হামলাকারীদের প্রতিহতে পুলিশ শটগানের ৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। নিহত মাসুদ রানা দেওয়াডাঙ্গা গ্রামের আলী আকবর শেখের ছেলে ও ইসলামী ব্যাংক ফরিদপুর শাখার নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ঘটনার পর থেকে এলাকায় আতংক ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আহতদের কালিয়া, নড়াইল ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার দেওয়াডাঙ্গা গ্রামের পাশ দিয়ে নবগঙ্গা নদী প্রবাহিত। নবগঙ্গা নদীর বিভিন্ন স্থানে জেগে ওঠা চর থেকে একই গ্রামের মৃত মকবুল মোল্যার ছেলে কাজল মোল্যা দীর্ঘদিন যাবত অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছিল।

নবগঙ্গা নদীতে জেগে ওঠা চর থেকে বালু উত্তোলনের কারণে গ্রামবাসী ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় আমিনুর শেখের নেতৃত্বে কাজল মোল্যার অবৈধ বালু উত্তোলনে বাধা দেয়। এতে তাদের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। তারই জের ধরে ওই দিন সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কাজল মোল্যার নেতৃত্বে ৫০/৬০ জনের একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী অতর্কিতে আমিনুর শেখের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বন্দুক ও শটগানের গুলিবর্ষণ করে পর্যায়ক্রমে দলনেতা আমিনুর শেখ, শিমুল মোল্যা ও কালিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য ও পুরুলিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সরদার তবিবর রহমানের বাড়িতে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট চালায়।

হামলা চলাকালে সন্ত্রাসী কাজলের অস্ত্রের গুলিতে ৪ বছরের শিশু ইভা খানম, তার মা সাথী বেগম (২২), মাসুদ রানা (৩৫), রহমান শেখ (৩৫), অনিক শেখ (২৭), আমিনুর সরদার (৪৫), ইমরান সরদার (৩০), রাজীব শেখ (২৫), হেকমত শেখ (৩৫), মুকুল শেখ (৩৫), মনোয়ারা বেগম (৩৫), তিশা খানম (১৮) ও শফি সরদারসহ (৬৫) অন্তত ১৫ জন আহত হন।

গুলিবিদ্ধ মাসুদ রানাকে মুমূর্ষু অবস্থায় চিকিৎসার জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার মূল নায়ক কাজল মোল্যা ও তার ভাই টনি মোল্যা, একই গ্রামের ফেরদৌস মোল্যার ছেলে সোহান মোল্যাসহ ৬ জনকে পুলিশ আটক করেছে বলে জানা গেছে।

এ বিষয় নড়াইলের সহকারী পুলিশ সুপার শেখ ইমরান বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শটগানের ৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। তবে খুনিদের ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত