মামার বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে নবদম্পতির মৃত্যু
jugantor
মামার বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে নবদম্পতির মৃত্যু

  রংপুর ব্যুরো  

০৫ আগস্ট ২০২০, ২৩:০০:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

নৌকাডুবি
ফাইল ছবি

মামার বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে সতী নদীতে ডুবে এক নবদম্পতির মৃত্যু হয়েছে। লালমনিরহাটের রাজপুর গ্রামে মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন রংপুর নগরীর বাহার কাছনা মহল্লার মকবুল হোসেনের ছেলে আনোয়ারুল ইসলাম (২২) ও তার স্ত্রী সুমাইয়া আক্তার বৃষ্টি (১৯)। প্রায় এক মাস আগে তাদের বিয়ে হয়।

মঙ্গলবার বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লালমনিরহাট সদর থানার ওসি মাহাফুজ আলম।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর নগরীর বাহার কাছনা থেকে লালমনিরহাটের রাজপুর গ্রামের মামার বাড়িতে বেড়াতে আসেন তারা। প্রচণ্ড গরমের কারণে পার্শ্ববর্তী সতী নদীতে তারা দুজনেই গোসল করতে যান। পরে ঘণ্টাখানেক গড়িয়ে গেলেও ওই নবদম্পতি বাড়িতে না আসায় পরিবারের লোকজন সতী নদীর দিকে এগিয়ে যান।

সেখানে গিয়ে তাদের না পেয়ে বৃষ্টির মামা ফারুক হোসেন লালমনিরহাট ফায়ার সার্ভিসে মোবাইল করে বিষয়টি জানান। পরে লালমনিরহাট ফায়ার সার্ভিস এবং কুড়িগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট প্রায় তিন ঘণ্টা তল্লাশি চালিয়ে সতী নদী থেকে আনোয়ারুল হক ও তার স্ত্রী সুমাইয়া আক্তার বৃষ্টির লাশ উদ্ধার করে।

স্থানীয় রাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন মোফা জানান, দুই পরিবারের সঙ্গে কথা বলে তাদের লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

মামার বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে নবদম্পতির মৃত্যু

 রংপুর ব্যুরো 
০৫ আগস্ট ২০২০, ১১:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নৌকাডুবি
ফাইল ছবি

মামার বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে সতী নদীতে ডুবে এক নবদম্পতির মৃত্যু হয়েছে। লালমনিরহাটের রাজপুর গ্রামে মঙ্গলবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন রংপুর নগরীর বাহার কাছনা মহল্লার মকবুল হোসেনের ছেলে আনোয়ারুল ইসলাম (২২) ও তার স্ত্রী সুমাইয়া আক্তার বৃষ্টি (১৯)। প্রায় এক মাস আগে তাদের বিয়ে হয়।

মঙ্গলবার বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লালমনিরহাট সদর থানার ওসি মাহাফুজ আলম।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর নগরীর বাহার কাছনা থেকে লালমনিরহাটের রাজপুর গ্রামের মামার বাড়িতে বেড়াতে আসেন তারা। প্রচণ্ড গরমের কারণে পার্শ্ববর্তী সতী নদীতে তারা দুজনেই গোসল করতে যান। পরে ঘণ্টাখানেক গড়িয়ে গেলেও ওই নবদম্পতি বাড়িতে না আসায় পরিবারের লোকজন সতী নদীর দিকে এগিয়ে যান।

সেখানে গিয়ে তাদের না পেয়ে বৃষ্টির মামা ফারুক হোসেন লালমনিরহাট ফায়ার সার্ভিসে মোবাইল করে বিষয়টি জানান। পরে লালমনিরহাট ফায়ার সার্ভিস এবং কুড়িগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট প্রায় তিন ঘণ্টা তল্লাশি চালিয়ে সতী নদী থেকে আনোয়ারুল হক ও তার স্ত্রী সুমাইয়া আক্তার বৃষ্টির লাশ উদ্ধার করে।

স্থানীয় রাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন মোফা জানান, দুই পরিবারের সঙ্গে কথা বলে তাদের লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন