ঝিনাইদহে করোনায় আরও দুইজনের মৃত্যু

  ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ০৭ আগস্ট ২০২০, ২১:০৬:০৮ | অনলাইন সংস্করণ

ঝিনাইদহে করোনাভাইরাসে আরও দুইজন মারা গেছেন। এরা হলেন- মহেশপুর উপজেলার পারগোপালপুর গ্রামের কৃষক মো. ওসমান গণি (৫৬) এবং অপরজন শৈলকূপা উপজেলার কবিরপুর গ্রামের মো. বাদশা আলম।

মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আঞ্জুমানারা জানান, শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে স্থানীয় কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান উপজেলার পারগোপালপুর গ্রামের আক্কাস আলীর ছেলে কৃষক মো. ওসমান গণি।

এর আগে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে তার। সেই থেকে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল তাকে। শনিবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। বিকালে ভর্তি করা হয় ঝিনাইদহ কোভিড হাসপাতালে। এ উপজেলায় করোনা আক্রান্তদের মধ্যে মৃত্যুর তালিকায় প্রথম নাম লেখা হল তার।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন ঝিনাইদহের উপ-পরিচালক মো. আব্দুল হামিদ খান জানান, মহেশপুর উপজেলার ফিল্ড সুপারভাইজার মো. কামরুল হাসানের নেতৃত্বে হাসপাতাল থেকে মো. ওসমান গণির মরদেহটি গ্রহণ করার পর দুপুরে জানাজা শেষে দাফন কমিটির সদস্যরা গ্রামের বাড়িতে কবরস্থানে দাফন করেছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাসহ অনেকেই।

এদিকে জেলার শৈলকূপা উপজেলার কবিরপুর গ্রামে করোনা উপসর্গ নিয়ে মো. বাদশা আলম (৫৫) নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি ঝিনাইদহ জেলা জজ আদালতে পেশকার পদে কর্মরত ছিলেন। বৃহস্পতিবার জ্বর-কাশি ও বুকে ব্যথাসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে শৈলকূপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিকাল ৫টায় ভর্তি হন তিনি। ভর্তির কিছু সময় পরই মৃত্যু হয় তার। তার মরদেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ইসলামিক ফাউন্ডেশন শৈলকূপা উপজেলার ফিল্ড সুপারভাইজার মো. আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে স্থানীয় গোরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়েছে। এ নিয়ে দাফন কমিটির পক্ষ থেকে মোট ৩৯টি করোনা আক্রান্ত ও করোনা উপসর্গে মৃত ব্যক্তির মরদেহ দাফন করা হল বলে জানিয়েছেন ইসলামী ফাউন্ডেশনের ঝিনাইদহের উপ-পরিচালক।
এদিকে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের নিয়মিত প্রতিবেদন সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার আরও ২৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় ১২, শৈলকুপায় এক, হরিণাকুন্ডুতে ৪, কালীগঞ্জে ৫, কোটচাঁদপুরে একজন রয়েছেন।

প্রতিবেদন মোতাবেক এ পর্যন্ত এক হাজার ৭৫ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৬১৩ জন। মৃত্যুর প্রকৃত হিসাব স্বাস্থ্য বিভাগের প্রতিবেদনে উল্লেখ থাকছে না। বুধবারের দেয়া হিসাবই আজকের প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে এখন পর্যন্ত জেলায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে মাত্র ১৭ জনের। মৃত্যুর এ পরিসংখ্যান সঠিক নয় বলে দাবি করেছেন ভুক্তভোগীরা।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত