পাবনার আমিনপুরের ওসি ক্লোজড
jugantor
পাবনার আমিনপুরের ওসি ক্লোজড

  পাবনা প্রতিনিধি  

১০ আগস্ট ২০২০, ২২:২৭:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনার বেড়া উপজেলার আমিনপুর থানার ওসি এসএম মইনুদ্দিনকে ক্লোজ করা হয়েছে। রোববার পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম ওসি মইনুদ্দিনকে প্রত্যাহার করে পাবনা পুলিশ লাইনসে সংযুক্তির আদেশ দেন।

এদিকে আমিনপুর থানার ওসি হিসেবে সোমবার যোগদান করেন মোজাম্মেল হক। মোজাম্মেল হক পাবনার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে কর্মরত ছিলেন।

পাবনার বেড়া উপজেলার চার ইউপি চেয়ারম্যানের কয়েক মাসের মোবাইল ফোনের কল ডিটেইলস রেকর্ড (সিডিআর) সংগ্রহ করে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের কাছে দেয়ায় ওই চার চেয়ারম্যান ওসি মইনুদ্দিনের ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। এ নিয়ে চেয়ারম্যানরা নানাভাবে প্রতিবাদসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন মহলে চিঠিও দেন।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামীমা আখতার জানান, ওসি মইনুদ্দিনকে বদলির জন্য পুলিশ লাইনে ওআর (সাময়িক রিজার্ভ) করা হয়েছে। অন্য কোনো কারণে নয়। পরবর্তীতে তাকে অন্যত্র বদলি করা হবে।

সূত্রমতে, ওসি মইনুদ্দিন ৬ মাস আগে আমিনপুর থানায় যোগদান করেন। গত ২ জুন বেড়া উপজেলার চারজন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান স্বরাষ্ট্র সচিব, আইজিপি, পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি ও পাবনার জেলা প্রশাসকের কাছে ওসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবিতে লিখিত আবেদন জানান।

তারা সংবাদ সম্মেলন করে অভিযোগ করেছিলেন- ওসি এসএম মইনুদ্দিন তাদের তিন মাসের ফোনালাপের রেকর্ড ফোন কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে সংগ্রহ করে অর্থের বিনিময়ে তাদের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগের আরেকটি গ্রুপের কাছে পৌঁছে দেন। যদিও এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ওসি।

পাবনার আমিনপুরের ওসি ক্লোজড

 পাবনা প্রতিনিধি 
১০ আগস্ট ২০২০, ১০:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনার বেড়া উপজেলার আমিনপুর থানার ওসি এসএম মইনুদ্দিনকে ক্লোজ করা হয়েছে। রোববার পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম ওসি মইনুদ্দিনকে প্রত্যাহার করে পাবনা পুলিশ লাইনসে সংযুক্তির আদেশ দেন।

এদিকে আমিনপুর থানার ওসি হিসেবে সোমবার যোগদান করেন মোজাম্মেল হক। মোজাম্মেল হক পাবনার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে কর্মরত ছিলেন।

পাবনার বেড়া উপজেলার চার ইউপি চেয়ারম্যানের কয়েক মাসের মোবাইল ফোনের কল ডিটেইলস রেকর্ড (সিডিআর) সংগ্রহ করে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের কাছে দেয়ায় ওই চার চেয়ারম্যান ওসি মইনুদ্দিনের ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন। এ নিয়ে চেয়ারম্যানরা নানাভাবে প্রতিবাদসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন মহলে চিঠিও দেন।

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামীমা আখতার জানান, ওসি মইনুদ্দিনকে বদলির জন্য পুলিশ লাইনে ওআর (সাময়িক রিজার্ভ) করা হয়েছে। অন্য কোনো কারণে নয়। পরবর্তীতে তাকে অন্যত্র বদলি করা হবে।

সূত্রমতে, ওসি মইনুদ্দিন ৬ মাস আগে আমিনপুর থানায় যোগদান করেন। গত ২ জুন বেড়া উপজেলার চারজন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান স্বরাষ্ট্র সচিব, আইজিপি, পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি ও পাবনার জেলা প্রশাসকের কাছে ওসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবিতে লিখিত আবেদন জানান।

তারা সংবাদ সম্মেলন করে অভিযোগ করেছিলেন- ওসি এসএম মইনুদ্দিন তাদের তিন মাসের ফোনালাপের রেকর্ড ফোন কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে সংগ্রহ করে অর্থের বিনিময়ে তাদের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগের আরেকটি গ্রুপের কাছে পৌঁছে দেন। যদিও এমন অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ওসি।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন