শেরপুরে করোনায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু 
jugantor
শেরপুরে করোনায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু 

  শেরপুর প্রতিনিধি  

১২ আগস্ট ২০২০, ১৭:৩০:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরে করোনা আক্রান্ত রেজাউল করিম মুক্তা (৭২) নামে এক ব্যবসায়ী মারা গেছেন। বুধবার দুপুরে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অব্স্থায় তিনি মারা যান। 

তিনি শেরপুর টাউনের কর্ণফুলী পেপার হাউসের মালিক। এ নিয়ে জেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫ জনে। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় শেরপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পেশকার,পুলিশ সুপারের স্ত্রী ও ছেলে এবং জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এক স্টাফসহ নতুন করে আরও ১৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনা আক্রান্ত ওই ১৬ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। 

শেরপুরের সিভিল সার্জন ডা. একেএম আনওয়ারুর রউফ জানান, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে মঙ্গলবার রাতে শেরপুর জেলার ৯২টি নমুনা পরীক্ষায় ওই ১৬ জনের করোনা ধরা পড়ে। 

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের স্বাস্থ্য বুলেটিনে জানানো হয়, এ পর্যন্ত জেলায় সর্বমোট ৩৫৩ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। সুস্থ হয়েছেন সর্বমোট ৩০৩ জন। 

এছাড়া জেলায় মোট নমুনা পরীক্ষার ৭ দশমিক ৪ শতাংশ আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার হার ৮৬ শতাংশ। জেলায় এ পর্যন্ত মোট নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৪ হাজার ৮৯৫ জনের। প্রতিবেদন পাওয়া গেছে ৪ হাজার ৭৯১ জনের। ময়মনসিংহ পিসিআর ল্যাবে এখনও জমা পড়ে আছে ১০৪টি নমুনা।
 

শেরপুরে করোনায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু 

 শেরপুর প্রতিনিধি 
১২ আগস্ট ২০২০, ০৫:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরে করোনা আক্রান্ত রেজাউল করিম মুক্তা (৭২) নামে এক ব্যবসায়ী মারা গেছেন। বুধবার দুপুরে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অব্স্থায় তিনি মারা যান।

তিনি শেরপুর টাউনের কর্ণফুলী পেপার হাউসের মালিক। এ নিয়ে জেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫ জনে। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় শেরপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পেশকার,পুলিশ সুপারের স্ত্রী ও ছেলে এবং জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এক স্টাফসহ নতুন করে আরও ১৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনা আক্রান্ত ওই ১৬ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

শেরপুরের সিভিল সার্জন ডা. একেএম আনওয়ারুর রউফ জানান, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে মঙ্গলবার রাতে শেরপুর জেলার ৯২টি নমুনা পরীক্ষায় ওই ১৬ জনের করোনা ধরা পড়ে।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের স্বাস্থ্য বুলেটিনে জানানো হয়, এ পর্যন্ত জেলায় সর্বমোট ৩৫৩ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। সুস্থ হয়েছেন সর্বমোট ৩০৩ জন।

এছাড়া জেলায় মোট নমুনা পরীক্ষার ৭ দশমিক ৪ শতাংশ আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তের তুলনায় সুস্থতার হার ৮৬ শতাংশ। জেলায় এ পর্যন্ত মোট নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৪ হাজার ৮৯৫ জনের। প্রতিবেদন পাওয়া গেছে ৪ হাজার ৭৯১ জনের। ময়মনসিংহ পিসিআর ল্যাবে এখনও জমা পড়ে আছে ১০৪টি নমুনা।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন