বখাটের উৎপাতে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা, যুবক কারাগারে
jugantor
বখাটের উৎপাতে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা, যুবক কারাগারে

  আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি  

১২ আগস্ট ২০২০, ১৮:৩৬:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বখাটের উৎপাতে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় জিহাদ সরদারকে মঙ্গলবার রাতে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রেমের ফাঁদে ফেলে আত্মহত্যার প্ররোচনায় মঙ্গলবার রাতে প্রেমিক জিহাদ সরদারসহ তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন স্কুলছাত্রীর মা। মামলার প্রধান আসামি জিহাদ সরদারকে পুলিশ মঙ্গলবার রাতে গ্রেফতার করে বুধবার সকালে বরিশাল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আগৈলঝাড়া থানার এসআই শাহজাহান জানান, উপজেলার রত্নপুর ইউনিয়নের বারপাইকা গ্রামের জহির শাহের মেয়ে মহিমা আক্তার (১৪) বারপাইকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। পার্শ্ববর্তী বাগধা ইউনিয়নের আস্কর গ্রামের আক্কেল সরদারের ছেলে জিহাদ সরদার (২০) ওই স্কুলছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল।

তিনি জানান, জিহাদ সরদারের প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ওই ছাত্রী। এরপর থেকে জিহাদ ও তার বন্ধুরা মিলে স্কুলছাত্রীকে বিভিন্ন ধরনের অশ্লীল কথা ও হুমকি দিয়ে আসছিল। জিহাদ ও তার বন্ধুদের কথা সহ্য করতে না পেরে ৭ জুলাই স্কুলছাত্রী মহিমা আক্তার আত্মহত্যা করে।

এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর মা সাবিনা বেগম বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে জিহাদ সরদারকে প্রধান আসামি করে আগৈলঝাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার বাদী সাবিনা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, জিহাদ সরদারের কারণে আমার মেয়ে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে। তাই জিহাদ সরদারের বিচারের জন্য আমি মামলা দায়ের করেছি। আমার মেয়ের মতো যাতে আর কোনো মেয়ের জীবন দিতে না হয়।

আগৈলঝাড়া থানার ওসি মো. আফজাল হোসেন বলেন, ছাত্রীর মা বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রধান আসামি জিহাদ সরদারকে গ্রেফতার করে বুধবার দুপুরে বরিশাল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

বখাটের উৎপাতে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা, যুবক কারাগারে

 আগৈলঝাড়া (বরিশাল) প্রতিনিধি 
১২ আগস্ট ২০২০, ০৬:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বখাটের উৎপাতে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় জিহাদ সরদারকে মঙ্গলবার রাতে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রেমের ফাঁদে ফেলে আত্মহত্যার প্ররোচনায় মঙ্গলবার রাতে প্রেমিক জিহাদ সরদারসহ তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন স্কুলছাত্রীর মা। মামলার প্রধান আসামি জিহাদ সরদারকে পুলিশ মঙ্গলবার রাতে গ্রেফতার করে বুধবার সকালে বরিশাল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আগৈলঝাড়া থানার এসআই শাহজাহান জানান, উপজেলার রত্নপুর ইউনিয়নের বারপাইকা গ্রামের জহির শাহের মেয়ে মহিমা আক্তার (১৪) বারপাইকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। পার্শ্ববর্তী বাগধা ইউনিয়নের আস্কর গ্রামের আক্কেল সরদারের ছেলে জিহাদ সরদার (২০) ওই স্কুলছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল।

তিনি জানান, জিহাদ সরদারের প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ওই ছাত্রী। এরপর থেকে জিহাদ ও তার বন্ধুরা মিলে স্কুলছাত্রীকে বিভিন্ন ধরনের অশ্লীল কথা ও হুমকি দিয়ে আসছিল। জিহাদ ও তার বন্ধুদের কথা সহ্য করতে না পেরে ৭ জুলাই স্কুলছাত্রী মহিমা আক্তার আত্মহত্যা করে।

এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর মা সাবিনা বেগম বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে জিহাদ সরদারকে প্রধান আসামি করে আগৈলঝাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার বাদী সাবিনা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, জিহাদ সরদারের কারণে আমার মেয়ে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে। তাই জিহাদ সরদারের বিচারের জন্য আমি মামলা দায়ের করেছি। আমার মেয়ের মতো যাতে আর কোনো মেয়ের জীবন দিতে না হয়।

আগৈলঝাড়া থানার ওসি মো. আফজাল হোসেন বলেন, ছাত্রীর মা বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রধান আসামি জিহাদ সরদারকে গ্রেফতার করে বুধবার দুপুরে বরিশাল আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন