শালিক পাখি নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১০
jugantor
শালিক পাখি নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১০

  মহম্মদপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি  

১২ আগস্ট ২০২০, ২০:২৫:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

মাগুরার মহম্মদপুরে একটি শালিক পাখিকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ ১১টি বাড়িঘর ভাংচুর করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার পলাশবাড়িয়া ইউনিয়নের বেথুড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় একজনকে মাগুরা সদর হাসপাতালে এবং আরও একজন মহম্মদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বেথুড়ি গ্রামের ভুলু মোল্যার ছেলে তপন মোল্যা স্থানীয় বাজারের যাওয়ার সময় পাকা রাস্তার ওপর থেকে একটি শালিক পাখি ধরে বাড়িতে নিয়ে আসে। ঘটনার দিন সকালে তপন মোল্যার বাড়িতে গিয়ে একই গ্রামের আজাদ মোল্যার ছেলে আলামিন শালিক পাখিটি নিজের পোষা পাখি বলে দাবি করে।

এ সময় আলামিন ও তপন সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে দুজনের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে আলামিন সমর্থক ও তপন সমর্থকরা সংগঠিত হয়ে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়। এছাড়া ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ ১১টি বাড়িঘর ভাংচুর করা হয়। পুলিশ খরব পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় তপন মোল্যাকে (২০) মাগুরা সদর হাসপাতালে এবং বাকি বিল্লাহকে (৪৫) মহম্মদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। 

মহম্মদপুর থানার ওসি তারক বিশ্বাস বলেন, এলাকার পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে। পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

শালিক পাখি নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১০

 মহম্মদপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি 
১২ আগস্ট ২০২০, ০৮:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মাগুরার মহম্মদপুরে একটি শালিক পাখিকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ ১১টি বাড়িঘর ভাংচুর করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার পলাশবাড়িয়া ইউনিয়নের বেথুড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় একজনকে মাগুরা সদর হাসপাতালে এবং আরও একজন মহম্মদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বেথুড়ি গ্রামের ভুলু মোল্যার ছেলে তপন মোল্যা স্থানীয় বাজারের যাওয়ার সময় পাকা রাস্তার ওপর থেকে একটি শালিক পাখি ধরে বাড়িতে নিয়ে আসে। ঘটনার দিন সকালে তপন মোল্যার বাড়িতে গিয়ে একই গ্রামের আজাদ মোল্যার ছেলে আলামিন শালিক পাখিটি নিজের পোষা পাখি বলে দাবি করে।

এ সময় আলামিন ও তপন সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে দুজনের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে আলামিন সমর্থক ও তপন সমর্থকরা সংগঠিত হয়ে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের ১০ জন আহত হয়। এছাড়া ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ ১১টি বাড়িঘর ভাংচুর করা হয়। পুলিশ খরব পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় তপন মোল্যাকে (২০) মাগুরা সদর হাসপাতালে এবং বাকি বিল্লাহকে (৪৫) মহম্মদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

মহম্মদপুর থানার ওসি তারক বিশ্বাস বলেন, এলাকার পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে। পুনরায় সংঘর্ষ এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।