গণধর্ষণ মামলায় নাবালকসহ তিনজনকে কারাদণ্ড

  যুগান্তর রিপোর্ট, বরগুনা ১৩ আগস্ট ২০২০, ২০:০২:২০ | অনলাইন সংস্করণ

দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে খুনের ভয় দেখিয়ে গণধর্ষণ করে সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগে ভাইরাল করা মামলায় একজন প্রাপ্ত বয়স্ককে যাবজ্জীবন ও দুইজন নাবালককে ১০ বছরে করে সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

একই সঙ্গে প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত। জরিমানার টাকা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা থাকবে।

বৃহস্পতিবার সকালে বরগুনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হল- বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলা শহরের বারেক ডাক্তারের ছেলে প্রাপ্তবয়স্ক আল আমীন, জাহাঙ্গীর খলিফার ছেলে নাবালক মেহেদী ও মংমংরীর ছেলে নাবালক উছেন। উছেন মামলার শুরু থেকে পলাতক। অন্য আসামিরা রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিল।

জানা যায়, মামলার বাদী ওই ছাত্রীর মা তালতলীর একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক। ২০১৭ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি তার দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়েকে তালতলীর বাসায় রেখে স্বামীকে নিয়ে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডে পরীক্ষার খাতা আনতে যান। ওই দিন রাতে তার মেয়ে পাশের ঘরের একটি মেয়েকে নিয়ে রাতে বাসায় ঘুমায়। রাত ১২টার দিকে প্রতিবেশী মেয়েটির দাদি অসুস্থ হলে সে তার বাসায় চলে যায়।

এই ফাঁকে আসামিরা বাদীর ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। সেই ধর্ষণের ছবি ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। তালতলী থানার তদন্তকারী কর্মকর্তা গাজী ফজলুল হক মামলাটি তদন্ত শেষে ১২ জুন ওই তিনজন আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

আসামি মেহেদীর বাবা জাহাঙ্গীর খলিফা যুগান্তরকে বলেন, তার ছেলে নির্দোষ। তার ছেলের বিরুদ্ধে কোনো সাক্ষী সাক্ষ্য দেয়নি। আমি উচ্চ আদালতে আপিল করব।

রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ পিপি মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল যুগান্তরকে বলেন, আসামি মেহেদী ও উছেন নাবালক বিধায় তাদের ১০ বছরের বেশি সাজা দেয়ার বিধান নেই। নাবালক না হলে তাদেরও যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতো।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত