স্ত্রীকে আনতে শ্বশুরবাড়ি গিয়ে যুবক নিখোঁজ, ডোবায় লাশ
jugantor
স্ত্রীকে আনতে শ্বশুরবাড়ি গিয়ে যুবক নিখোঁজ, ডোবায় লাশ

  বগুড়া ব্যুরো  

১৩ আগস্ট ২০২০, ২১:৪৭:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার নন্দীগ্রামে স্ত্রীকে আনতে শ্বশুরবাড়ি গিয়ে নিখোঁজ রাকিব হোসেন (২৫) নামে এক রাজমিস্ত্রির লাশ উদ্ধার হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার চাকলমা গ্রামের কাটাখাড়ি নামে একটি ডোবায় লাশটি পাওয়া যায়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্ত্রী রেমা খাতুন (২০) ও শাশুড়িকে থানায় আনা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, রাকিব হোসেন নন্দীগ্রাম উপজেলার ফোকপাল গ্রামের আক্কাস আলীর ছেলে। তিনি পেশায় রাজমিস্ত্রি (ঢালাই মিস্ত্রি) ছিলেন। দু’বছর আগে ঢাকইর গ্রামের রেমা খাতুনকে বিয়ে করেন। কিন্তু রেমা স্বামীর বাড়ি না এসে বাপের বাড়িতে অবস্থান করছিলেন।

রাকিব বুধবার স্ত্রীকে আনার জন্য শ্বশুরবাড়ি যান। এরপর থেকে নিখোঁজ ছিলেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রায় দেড় কিলোমিটার দূরে চাকলমা গ্রামের কাটাখাড়ি ডোবায় তার লাশ পাওয়া যায়। ডোবার পাড়ে কোমল পানীয়র বোতল, একটি গামছা ও এক জোড়া স্যান্ডেল পাওয়া গেছে। সেখান থেকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহতের স্ত্রী রেমা বলেন, রাকিব বুধবার রাত ৮টার দিকে আমাকে আনতে গিয়েছিল। কিন্তু আমি আগামী রোববার সালিশ বৈঠকের পর যেতে রাজি হই। এরপর কীভাবে রাকিবের মৃত্যু হয়েছে সে সম্পর্কে আমি কিছু বলতে পারব না।

নিহতের স্বজনদের ধারণা- শ্বশুরবাড়ির কেউ তাকে কিছু খাইয়ে হত্যার পর ডোবায় লাশ ফেলে দিয়েছে।

নন্দীগ্রাম থানার ওসি শওকত কবির জানান,শরীরে কোনো আঘাত না থাকলেও নাকে ও মুখে ফেনা ছিল। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্ত্রী ও শাশুড়িকে থানায় আনা হয়েছে।

স্ত্রীকে আনতে শ্বশুরবাড়ি গিয়ে যুবক নিখোঁজ, ডোবায় লাশ

 বগুড়া ব্যুরো 
১৩ আগস্ট ২০২০, ০৯:৪৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার নন্দীগ্রামে স্ত্রীকে আনতে শ্বশুরবাড়ি গিয়ে নিখোঁজ রাকিব হোসেন (২৫) নামে এক রাজমিস্ত্রির লাশ উদ্ধার হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার চাকলমা গ্রামের কাটাখাড়ি নামে একটি ডোবায় লাশটি পাওয়া যায়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্ত্রী রেমা খাতুন (২০) ও শাশুড়িকে থানায় আনা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, রাকিব হোসেন নন্দীগ্রাম উপজেলার ফোকপাল গ্রামের আক্কাস আলীর ছেলে। তিনি পেশায় রাজমিস্ত্রি (ঢালাই মিস্ত্রি) ছিলেন। দু’বছর আগে ঢাকইর গ্রামের রেমা খাতুনকে বিয়ে করেন। কিন্তু রেমা স্বামীর বাড়ি না এসে বাপের বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। 

রাকিব বুধবার স্ত্রীকে আনার জন্য শ্বশুরবাড়ি যান। এরপর থেকে নিখোঁজ ছিলেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রায় দেড় কিলোমিটার দূরে চাকলমা গ্রামের কাটাখাড়ি ডোবায় তার লাশ পাওয়া যায়। ডোবার পাড়ে কোমল পানীয়র বোতল, একটি গামছা ও এক জোড়া স্যান্ডেল পাওয়া গেছে। সেখান থেকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহতের স্ত্রী রেমা বলেন, রাকিব বুধবার রাত ৮টার দিকে আমাকে আনতে গিয়েছিল। কিন্তু আমি আগামী রোববার সালিশ বৈঠকের পর যেতে রাজি হই। এরপর কীভাবে রাকিবের মৃত্যু হয়েছে সে সম্পর্কে আমি কিছু বলতে পারব না।

নিহতের স্বজনদের ধারণা- শ্বশুরবাড়ির কেউ তাকে কিছু খাইয়ে হত্যার পর ডোবায় লাশ ফেলে দিয়েছে।

নন্দীগ্রাম থানার ওসি শওকত কবির জানান,শরীরে কোনো আঘাত না থাকলেও নাকে ও মুখে ফেনা ছিল। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্ত্রী ও শাশুড়িকে থানায় আনা হয়েছে। 
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন