মেজর সিনহা হত্যা মামলায় ৭ আসামি র‌্যাবের রিমান্ডে
jugantor
মেজর সিনহা হত্যা মামলায় ৭ আসামি র‌্যাবের রিমান্ডে

  কক্সবাজার প্রতিনিধি  

১৪ আগস্ট ২০২০, ১১:৫৩:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

র‌্যাব
ছবি-যুগান্তর

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া পুলিশের চার সদস্য এবং এই ঘটনায় পুলিশের দায়ের হত্যা মামলায় তিন সাক্ষীকে রিমান্ডের জন্য নিয়ে গেছে র‌্যাব। 

শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে র‌্যাবের একটি টিম ৭ আসামিকে কক্সবাজার জেলা কারাগার থেকে নিয়ে যায়।

কক্সবাজার জেলা কারাগারের সুপার মোহাম্মদ মোকাম্মেল হোসেন যুগান্তরকে জানান, অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামিদের মধ্যে ৭ জনকে আজ সকাল ১০টায় র‌্যাব রিমান্ডের জন্য নিয়ে গেছে।

যাদের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে তারা হলেন- কনস্টেবল সাফানুর করিম, কামাল হোসেন, আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়া। পুলিশ দায়েরকৃত মামলার সাক্ষী মো. নুরুল আমিন, মো. নেজামুদ্দিন ও মোহাম্মদ আয়াজ।

কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে বিচারক তামান্না ফারাহর এই সাতজনের প্রত্যেকের ৭ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর করা আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত গত বুধবার এই আদেশ দিয়েছিলেন। 

পরদিন বৃহস্পতিবার জেল গেটে গিয়ে আসামিদের ছাড়াই ফেরত চলে যায় র‌্যাবের বহর। আজ সকালে ৭ আসামিকে জেল থেকে নিয়ে যায় র‌্যাব-১৫।

৬ আগস্ট আদালতে আত্মসমর্পণ করা টেকনাফ থানার বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ লিয়াকত ও এসআই নন্দ দুলালকে এখনও রিমান্ডে নেয়া হয়নি। এই তিনজন কারাগারে রয়েছেন। তাদেরকেও যে কোনো সময় কারাগার হতে র‌্যাব হেফাজতে রিমান্ডে নেয়া হবে।

মেজর সিনহা হত্যা মামলায় ৭ আসামি র‌্যাবের রিমান্ডে

 কক্সবাজার প্রতিনিধি 
১৪ আগস্ট ২০২০, ১১:৫৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
র‌্যাব
ছবি-যুগান্তর

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া পুলিশের চার সদস্য এবংএই ঘটনায় পুলিশের দায়ের হত্যা মামলায় তিন সাক্ষীকে রিমান্ডের জন্য নিয়ে গেছে র‌্যাব।

শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে র‌্যাবের একটি টিম ৭ আসামিকে কক্সবাজার জেলা কারাগার থেকে নিয়ে যায়।

কক্সবাজার জেলা কারাগারের সুপার মোহাম্মদ মোকাম্মেল হোসেন যুগান্তরকে জানান, অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত আসামিদের মধ্যে ৭ জনকে আজ সকাল ১০টায় র‌্যাব রিমান্ডের জন্য নিয়ে গেছে।

যাদের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে তারা হলেন- কনস্টেবল সাফানুর করিম, কামাল হোসেন, আবদুল্লাহ আল মামুন ও এএসআই লিটন মিয়া। পুলিশ দায়েরকৃত মামলার সাক্ষী মো. নুরুল আমিন, মো. নেজামুদ্দিন ও মোহাম্মদ আয়াজ।

কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটআদালতে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে বিচারক তামান্না ফারাহর এই সাতজনের প্রত্যেকের ৭ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর করা আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত গত বুধবার এই আদেশ দিয়েছিলেন।

পরদিন বৃহস্পতিবার জেল গেটে গিয়ে আসামিদের ছাড়াই ফেরত চলে যায় র‌্যাবের বহর। আজ সকালে ৭ আসামিকে জেল থেকে নিয়ে যায় র‌্যাব-১৫।

৬ আগস্ট আদালতে আত্মসমর্পণ করা টেকনাফ থানার বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ লিয়াকত ও এসআই নন্দ দুলালকে এখনও রিমান্ডে নেয়া হয়নি। এই তিনজন কারাগারে রয়েছেন। তাদেরকেও যে কোনো সময় কারাগার হতে র‌্যাব হেফাজতে রিমান্ডে নেয়া হবে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মেজর সিনহার মৃত্যু

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন