বিষাক্ত অ্যালকোহল পানে চেয়ারম্যানের মৃত্যু!
jugantor
বিষাক্ত অ্যালকোহল পানে চেয়ারম্যানের মৃত্যু!

  ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

১৬ আগস্ট ২০২০, ২২:২৩:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারোবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আলমগীর হোসেন (৫০) বিষাক্ত অ্যালকোহল পানে মৃত্যুবরণ করেছেন বলে হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে। তবে পরিবার জানিয়েছে, তিনি কানে ব্যথা ছাড়াও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন।

রোববার সকাল ৭টায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার। চেয়ারম্যানের মৃত্যু নিয়ে এলাকায় চলছে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, নিহত মো. আলমগীরের বাড়ি উপজেলার আঠারোবাড়ি ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামে। গত দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তিনি ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ সমিতির সভাপতি ও আঠারোবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

নিহতের পরিবারের লোকজন জানান, আলমগীর কানে ব্যথা ছাড়াও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। শনিবার রাতে প্রথমে থাকে ময়মনসিংহের মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। ভর্তির পর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে দ্রুত তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তার মৃত্যুর পর হাসপাতাল থেকে লিখিতভাবে ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানাকে অবহিত করা হয় মাত্রাতিরিক্ত অ্যালকোহল পানের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। এ অবস্থায় কোতোয়ালি থানা পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, সোমবার আলমগীর হোসেনের লাশ ময়নাতদন্ত হবে।

এ ব্যাপারে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. জাকির হোসেন শোকবার্তায় জানান, তিনি একজন সৎ, দক্ষ, নিষ্ঠাবান ও কর্তব্যপরায়ণ স্থানীয় সরকারের প্রতিনিধি ছিলেন। তার মৃত্যুতে উপজেলা প্রশাসন গভীরভাবে শোকাহত।

বিষাক্ত অ্যালকোহল পানে চেয়ারম্যানের মৃত্যু!

 ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
১৬ আগস্ট ২০২০, ১০:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারোবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আলমগীর হোসেন (৫০) বিষাক্ত অ্যালকোহল পানে মৃত্যুবরণ করেছেন বলে হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে। তবে পরিবার জানিয়েছে, তিনি কানে ব্যথা ছাড়াও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন।

রোববার সকাল ৭টায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার। চেয়ারম্যানের মৃত্যু নিয়ে এলাকায় চলছে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, নিহত মো. আলমগীরের বাড়ি উপজেলার আঠারোবাড়ি ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামে। গত দুইবারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তিনি ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ সমিতির সভাপতি ও আঠারোবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

নিহতের পরিবারের লোকজন জানান, আলমগীর কানে ব্যথা ছাড়াও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। শনিবার রাতে প্রথমে থাকে ময়মনসিংহের মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। ভর্তির পর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে দ্রুত তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তার মৃত্যুর পর হাসপাতাল থেকে লিখিতভাবে ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানাকে অবহিত করা হয় মাত্রাতিরিক্ত অ্যালকোহল পানের কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। এ অবস্থায় কোতোয়ালি থানা পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, সোমবার আলমগীর হোসেনের লাশ ময়নাতদন্ত হবে।

এ ব্যাপারে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. জাকির হোসেন শোকবার্তায় জানান, তিনি একজন সৎ, দক্ষ, নিষ্ঠাবান ও কর্তব্যপরায়ণ স্থানীয় সরকারের প্রতিনিধি ছিলেন। তার মৃত্যুতে উপজেলা প্রশাসন গভীরভাবে শোকাহত।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন