শিপ্রার ২৯ ডিভাইস র‌্যাবের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ
jugantor
শিপ্রার ২৯ ডিভাইস র‌্যাবের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ

  কক্সবাজার প্রতিনিধি  

১৯ আগস্ট ২০২০, ২০:৪০:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

শিপ্রা ও সিফাত

কক্সবাজারের নীলিমা রিসোর্ট থেকে মেজর (অব:) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের সহাযোগী শিপ্রা দেবনাথের জব্দকৃত মালামাল র‌্যাবের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। এসবের মধ্যে রয়েছে মোবাইল, ল্যাপটপ, হার্ডডিস্কসহ ২৯ ধরনের মালামাল রয়েছে।

বুধবার বিকালে কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক তামান্না ফারাহ এই আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের প্রধান লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. আশিক বিল্লাহ। এর আগে কক্সবাজারে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখার প্রধান এই কর্মকর্তা বলেন, শিপ্রা ও সিফাতের কম্পিউটার ডিভাইস ও মেমোরিসহ ২৯টি সামগ্রী কক্সবাজারের রামু থানা পুলিশের হেফাজতে আছে। মামলার তদন্ত কার্যক্রমে এসব কম্পিউটার ডিভাইসহ আলামত কাজে লাগবে। তাই এইসব জিনিসপত্র র‌্যাবের কাছে হস্থান্তরের জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছে।

শিপ্রা দেবনাথ জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তার বেশকিছু আপত্তিকর ছবি-ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এতে সামাজিকভাবে বিপর্যস্ত হন শিপ্রা। তার অভিযোগ রামু থানায় সংরক্ষিত মোবাইল, ল্যাপটপ বা অন্যান্য ডিভাইস থেকেই এসব ছবি ভিডিও বাইরে ছড়ানো হয়েছে।

শিপ্রার ২৯ ডিভাইস র‌্যাবের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ

 কক্সবাজার প্রতিনিধি 
১৯ আগস্ট ২০২০, ০৮:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শিপ্রা ও সিফাত
শিপ্রা ও সিফাত। ফাইল ছবি

কক্সবাজারের নীলিমা রিসোর্ট থেকে মেজর (অব:) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদের সহাযোগী শিপ্রা দেবনাথের জব্দকৃত মালামাল র‌্যাবের কাছে হস্তান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।  এসবের মধ্যে রয়েছে মোবাইল, ল্যাপটপ, হার্ডডিস্কসহ ২৯ ধরনের মালামাল রয়েছে। 

বুধবার বিকালে কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক তামান্না ফারাহ এই আদেশ দেন। 

বিষয়টি নিশ্চিত করেন র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের প্রধান লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. আশিক বিল্লাহ। এর আগে কক্সবাজারে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখার প্রধান এই কর্মকর্তা বলেন, শিপ্রা ও সিফাতের কম্পিউটার ডিভাইস ও মেমোরিসহ ২৯টি সামগ্রী কক্সবাজারের রামু থানা পুলিশের হেফাজতে আছে। মামলার তদন্ত কার্যক্রমে এসব কম্পিউটার ডিভাইসহ আলামত কাজে লাগবে। তাই এইসব জিনিসপত্র র‌্যাবের কাছে হস্থান্তরের জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছে।

শিপ্রা দেবনাথ জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তার বেশকিছু আপত্তিকর ছবি-ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এতে সামাজিকভাবে বিপর্যস্ত হন শিপ্রা।  তার অভিযোগ রামু থানায় সংরক্ষিত মোবাইল, ল্যাপটপ বা অন্যান্য ডিভাইস থেকেই এসব ছবি ভিডিও বাইরে ছড়ানো হয়েছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মেজর সিনহার মৃত্যু

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন