ড্রাই স্টার্চ পাউডার কোম্পানি স্থানান্তরের দাবিতে লিগ্যাল নোটিশ
jugantor
ড্রাই স্টার্চ পাউডার কোম্পানি স্থানান্তরের দাবিতে লিগ্যাল নোটিশ

  হবিগঞ্জ প্রতিনিধি  

২০ আগস্ট ২০২০, ১৯:৫২:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জের মাধবপুরে ড্রাই স্টার্চ পাউডার উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ‘মার লি.’ অন্যত্র কোনো শিল্প এলাকায় সরিয়ে নেয়ার দাবিতে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছে পরিবেশবাদী সংগঠন বেলা।

বুধবার তারা শিল্প মন্ত্রণালয়, পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ ১১ জনকে এ নোটিশ দেয়। এতে আগামী ৭ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করে নোটিশদাতাকে অবহিত করার জন্য বলা হয়। অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়।

নোটিশে উল্লেখ করা হয়, মাধবপুর উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়নের শাহপুর নামক স্থানে স্থাপিত মার লি. প্রতিষ্ঠার পর থেকেই কোনো শোধন ছাড়াই কারখানার সৃষ্ট বর্জ্য পার্শ্ববর্তী এখতিরয়াপুর খালে ছাড়ছে। ইটিপি ব্যবহার না করে কারখানার অপরিশোধিত বর্জ্য খালে ছাড়ার কারণে ছাতিয়াইন ইউনিয়নসহ আশপাশের এলাকায় দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। বিনষ্ট হয়ে পড়ে খালের পানি। কারখানার অব্যাহত দূষণের ফলে এলাকার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পাশাপাশি কৃষি, গবাদিপশু মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

অসহনীয় এ দূষণের প্রতিবাদে এলাকাবাসী সভা, সমাবেশ, মানববন্ধন, মহাসড়ক অবরোধ করেন। এসব আন্দোলন দমাতে এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে কোম্পানির কর্তৃপক্ষ মামলাও করেছে।

এদিকে এলাকার পরিবেশ-প্রতিবেশ ক্ষতিসাধনের অভিযোগে কোম্পানিটিকে ২০১৭ সালে ১৭ লাখ ১০ হাজার এবং ২০১৮ সালে ৩৫ লাখ ৭ হাজার ৮৪০ টাকা জরিমানা করা হয়। পরে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ উক্ত জরিমানার বিরুদ্ধে রিট আবেদন করলে ২০২০ সাল পর্যন্ত তা স্থগিত রাখা হয়।

বেলার দাবি, পরিবেশ দূষণের এহেন কার্যক্রম দেশে প্রচলিত আইনের পরিপন্থী ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ। মার লি. এর বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানিসহ সব সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে কার্যক্রম বন্ধ এবং উক্ত এলাকা থেকে উচ্ছেদ করে অন্যত্র কোনো ঘোষিত শিল্প এলাকায় স্থানান্তরের দাবি জানানো হয় নোটিশে। একই সঙ্গে এলাকার পরিবেশ, প্রতিবেশ, খাল, কৃষিজমি, ফসলাদি, গবাদিপশু ইত্যাদির ক্ষতি নির্ধারণপূর্বক ক্ষতিপূরণ আদায় ও যথাযথ শাস্তির দাবি জানানো হয়।

নোটিশটি উল্লেখিত দুই সচিব ছাড়াও পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক, হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, পরিবেশ অধিদফতরের পরিচালক (মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট), পরিবেশ অধিদফতরের সিলেট বিভাগীয় পরিচালক, মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মাধবপুর উপজেলা চেয়ারম্যান, মাধবপুর থানার ওসি ও মেসার্স মার লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী মো. রাসিল হককে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সাঈদ আহমেদ কবীর স্বাক্ষরিত এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

বেলা সিলেট বিভাগীয় সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট শাহ সাহেদা আক্তার জানান, লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। সন্তোষজনক ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হলে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।

ড্রাই স্টার্চ পাউডার কোম্পানি স্থানান্তরের দাবিতে লিগ্যাল নোটিশ

 হবিগঞ্জ প্রতিনিধি 
২০ আগস্ট ২০২০, ০৭:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জের মাধবপুরে ড্রাই স্টার্চ পাউডার উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ‘মার লি.’ অন্যত্র কোনো শিল্প এলাকায় সরিয়ে নেয়ার দাবিতে লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছে পরিবেশবাদী সংগঠন বেলা।

বুধবার তারা শিল্প মন্ত্রণালয়, পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ ১১ জনকে এ নোটিশ দেয়। এতে আগামী ৭ দিনের মধ্যে এ বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করে নোটিশদাতাকে অবহিত করার জন্য বলা হয়। অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়।

নোটিশে উল্লেখ করা হয়, মাধবপুর উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়নের শাহপুর নামক স্থানে স্থাপিত মার লি. প্রতিষ্ঠার পর থেকেই কোনো শোধন ছাড়াই কারখানার সৃষ্ট বর্জ্য পার্শ্ববর্তী এখতিরয়াপুর খালে ছাড়ছে। ইটিপি ব্যবহার না করে কারখানার অপরিশোধিত বর্জ্য খালে ছাড়ার কারণে ছাতিয়াইন ইউনিয়নসহ আশপাশের এলাকায় দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। বিনষ্ট হয়ে পড়ে খালের পানি। কারখানার অব্যাহত দূষণের ফলে এলাকার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পাশাপাশি কৃষি, গবাদিপশু মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

অসহনীয় এ দূষণের প্রতিবাদে এলাকাবাসী সভা, সমাবেশ, মানববন্ধন, মহাসড়ক অবরোধ করেন। এসব আন্দোলন দমাতে এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে কোম্পানির কর্তৃপক্ষ মামলাও করেছে।

এদিকে এলাকার পরিবেশ-প্রতিবেশ ক্ষতিসাধনের অভিযোগে কোম্পানিটিকে ২০১৭ সালে ১৭ লাখ ১০ হাজার এবং ২০১৮ সালে ৩৫ লাখ ৭ হাজার ৮৪০ টাকা জরিমানা করা হয়। পরে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ উক্ত জরিমানার বিরুদ্ধে রিট আবেদন করলে ২০২০ সাল পর্যন্ত তা স্থগিত রাখা হয়।

বেলার দাবি, পরিবেশ দূষণের এহেন কার্যক্রম দেশে প্রচলিত আইনের পরিপন্থী ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ। মার লি. এর বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানিসহ সব সেবা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে কার্যক্রম বন্ধ এবং উক্ত এলাকা থেকে উচ্ছেদ করে অন্যত্র কোনো ঘোষিত শিল্প এলাকায় স্থানান্তরের দাবি জানানো হয় নোটিশে। একই সঙ্গে এলাকার পরিবেশ, প্রতিবেশ, খাল, কৃষিজমি, ফসলাদি, গবাদিপশু ইত্যাদির ক্ষতি নির্ধারণপূর্বক ক্ষতিপূরণ আদায় ও যথাযথ শাস্তির দাবি জানানো হয়।

নোটিশটি উল্লেখিত দুই সচিব ছাড়াও পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক, হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, পরিবেশ অধিদফতরের পরিচালক (মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট), পরিবেশ অধিদফতরের সিলেট বিভাগীয় পরিচালক, মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মাধবপুর উপজেলা চেয়ারম্যান, মাধবপুর থানার ওসি ও মেসার্স মার লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী মো. রাসিল হককে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সাঈদ আহমেদ কবীর স্বাক্ষরিত এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

বেলা সিলেট বিভাগীয় সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট শাহ সাহেদা আক্তার জানান, লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। সন্তোষজনক ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হলে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন