পাওনা টাকা নিয়ে সংঘর্ষে আহত মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু
jugantor
পাওনা টাকা নিয়ে সংঘর্ষে আহত মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২২ আগস্ট ২০২০, ০৯:৫৫:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

পাওনা টাকা নিয়ে সংঘর্ষে আহত মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় পাওনা টাকা নিয়ে সংঘর্ষে আহত এক মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম জুয়েল মিয়া (১৪)।

শুক্রবার বিকালে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই কিশোরের মৃত্যু হয়।

মৃত জুয়েল ওই গ্রামের আবদুল খালেকের ছেলে। সে জাওরানী মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

এদিকে এ ঘটনায় প্রতিপক্ষের দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- উপজেলার উত্তর জাওরানী গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে আব্দুর রহিম (৬৫) ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর (২৬)।

এর আগে গত বুধবার উপজেলার উত্তর জাওরানী গ্রামে পাওনা টাকা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, ব্যবসার লেনদেনে জাহাঙ্গীরের কাছে ১০ হাজার টাকা পাওনা ছিল জুয়েলের ভাই সবুজের। সেই টাকা চাওয়া কেন্দ্র করে গত ১৯ আগস্ট উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে পাঁচজন আহত হন।

গুরুতর অবস্থায় জুয়েল ও তার ভাই সবুজকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে শুক্রবার বিকালে চিকিৎসাধীন থেকে জুয়েলের মৃত্যু হয়।

হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক জানান, এ ঘটনায় জুয়েলের মা রহিমা বেগম বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। এর পর শুক্রবার সন্ধ্যায় আবদুল রহিম ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পাওনা টাকা নিয়ে সংঘর্ষে আহত মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২২ আগস্ট ২০২০, ০৯:৫৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পাওনা টাকা নিয়ে সংঘর্ষে আহত মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু
ফাইল ছবি

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় পাওনা টাকা নিয়ে সংঘর্ষে আহত এক মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম জুয়েল মিয়া (১৪)।

শুক্রবার বিকালে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই কিশোরের মৃত্যু হয়।

মৃত জুয়েল ওই গ্রামের আবদুল খালেকের ছেলে। সে জাওরানী মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

এদিকে এ ঘটনায় প্রতিপক্ষের দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- উপজেলার উত্তর জাওরানী গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে আব্দুর রহিম (৬৫) ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর (২৬)।

এর আগে গত বুধবার উপজেলার উত্তর জাওরানী গ্রামে পাওনা টাকা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, ব্যবসার লেনদেনে জাহাঙ্গীরের কাছে ১০ হাজার টাকা পাওনা ছিল জুয়েলের ভাই সবুজের। সেই টাকা চাওয়া কেন্দ্র করে গত ১৯ আগস্ট উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে পাঁচজন আহত হন।

গুরুতর অবস্থায় জুয়েল ও তার ভাই সবুজকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে শুক্রবার বিকালে চিকিৎসাধীন থেকে জুয়েলের মৃত্যু হয়।

হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক জানান, এ ঘটনায় জুয়েলের মা রহিমা বেগম বাদী হয়ে হাতীবান্ধা থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। এর পর শুক্রবার সন্ধ্যায় আবদুল রহিম ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন