পিরোজপুরে মায়ের সঙ্গে অভিমান করে তরুণীর আত্মহত্যা
jugantor
পিরোজপুরে মায়ের সঙ্গে অভিমান করে তরুণীর আত্মহত্যা

  ভাণ্ডারিয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি  

২৫ আগস্ট ২০২০, ১৩:২৬:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

পিরোজপুরে মায়ের সঙ্গে অভিমান করে তরুণীর আত্মহত্যা

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলায় গলায় ফাঁস দিয়ে এক তরুণী আত্মহত্যা করেছেন।

নিহত তরুণীর নাম মৌসুমী। তিনি উপজেলার জুনিয়া গ্রামের মধু মাতুব্বরের মেয়ে।

এ ঘটনায় সোমবার রাতে ভাণ্ডারিয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সদ্য বিবাহিত স্কুলছাত্রী মৌসুমীর দেড় মাস আগে স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়। এ নিয়ে ওই পরিবারে প্রায়ই ঝগড়া হতো।

সোমবার দুপুরে মেয়েটির সঙ্গে তার মায়ের বাকবিতণ্ডা হয়। এর একপর্যায়ে তার মা হাঁড়ি-পাতিল পরিষ্কার করতে বাড়ির পাশে পুকুরঘাটে যায়।

এ সময় মৌসুমী ঘরের আড়ার সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। কিছুক্ষণ পর তার মা এসে ঘরের দরজা বন্ধ পেয়ে চিৎকার শুরু করেন।

পরে প্রতিবেশীরা দরজা ভেঙে মেয়েটিকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সেখানে নেয়ার পথে মৌসুমী মারা যান।

ভাণ্ডারিয়া থানার ওসি এসএম মাকসুদুর রহমান জানান, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সোমবার রাতে ভাণ্ডারিয়া থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

পিরোজপুরে মায়ের সঙ্গে অভিমান করে তরুণীর আত্মহত্যা

 ভাণ্ডারিয়া (পিরোজপুর) প্রতিনিধি 
২৫ আগস্ট ২০২০, ০১:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পিরোজপুরে মায়ের সঙ্গে অভিমান করে তরুণীর আত্মহত্যা
ফাইল ছবি

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলায় গলায় ফাঁস দিয়ে এক তরুণী আত্মহত্যা করেছেন।

নিহত তরুণীর নাম মৌসুমী। তিনি উপজেলার জুনিয়া গ্রামের মধু মাতুব্বরের মেয়ে।

এ ঘটনায় সোমবার রাতে ভাণ্ডারিয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সদ্য বিবাহিত স্কুলছাত্রী মৌসুমীর দেড় মাস আগে স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়। এ নিয়ে ওই পরিবারে প্রায়ই ঝগড়া হতো।

সোমবার দুপুরে মেয়েটির সঙ্গে তার মায়ের বাকবিতণ্ডা হয়। এর একপর্যায়ে তার মা হাঁড়ি-পাতিল পরিষ্কার করতে বাড়ির পাশে পুকুরঘাটে যায়।

এ সময় মৌসুমী ঘরের আড়ার সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। কিছুক্ষণ পর তার মা এসে ঘরের দরজা বন্ধ পেয়ে চিৎকার শুরু করেন।

পরে প্রতিবেশীরা দরজা ভেঙে মেয়েটিকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। সেখানে নেয়ার পথে মৌসুমী মারা যান।  

ভাণ্ডারিয়া থানার ওসি এসএম মাকসুদুর রহমান জানান, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সোমবার রাতে ভাণ্ডারিয়া থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন