প্রতিবন্ধী কিশোরীকে যৌন নিপীড়ন, গ্রেফতার ১
jugantor
প্রতিবন্ধী কিশোরীকে যৌন নিপীড়ন, গ্রেফতার ১

  যুগান্তর রিপোর্ট, তাহিরপুর  

২৯ আগস্ট ২০২০, ২২:১৯:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে শারীরিক প্রতিবন্ধী (১৭) এক কিশোরীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে ইছা মিয়া (৪৫)) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার তাহিরপুর থানায় এ ব্যাপারে মামলা দায়েরপূর্বক অভিযুক্তকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতার ইছা মিয়া উপজেলার উওর বড়দল ইউনিয়নের মাহারাম আদর্শ গ্রামের মৃত আব্দুস ছমেদের ছেলে।

শনিবার মামলা ও ভিকটিম সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মাহারাম আদর্শ গ্রামের দুই সন্তানের জনক ইছা মিয়া হতদরিদ্র পরিবারের স্বামী-স্ত্রী শুক্রবার দুপুরের কয়লা কুঁড়াতে গ্রাম পার্শ্ববর্তী জাদুকাটা নদীতে যান।

এদিকে কয়লা কুড়ানো শ্রমিক দম্পতির বসতবাড়ি ফাঁকা পেয়ে তাদের প্রতিবন্ধী কিশোরী কন্যাকে শারীরিকভাবে শ্লীলতাহানি ও যৌন নিপীড়ন করেন ইছা মিয়া।

ঘটনাটি প্রতিবেশী ও পরিবারের অভিভাবকদের জানালে মুঠোফোনে আইনি সহায়তা চাওয়া হয় থানার ওসির নিকট।

ওসির নির্দেশে থানার বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ সরেজমিনে তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়ে রাতেই ইছা মিয়াকে গ্রেফতার করেন।

শনিবার থানার ওসি মো.আতিকুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা নিশ্চিত হওয়ায় অভিযুক্ত’র বিরুদ্ধে থানায় মামলা নেয়া হয়েছে।

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে যৌন নিপীড়ন, গ্রেফতার ১

 যুগান্তর রিপোর্ট, তাহিরপুর 
২৯ আগস্ট ২০২০, ১০:১৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে শারীরিক প্রতিবন্ধী (১৭) এক কিশোরীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে ইছা মিয়া (৪৫)) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার তাহিরপুর থানায় এ ব্যাপারে মামলা দায়েরপূর্বক অভিযুক্তকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতার ইছা মিয়া উপজেলার উওর বড়দল ইউনিয়নের মাহারাম আদর্শ গ্রামের মৃত আব্দুস ছমেদের ছেলে।

শনিবার মামলা ও ভিকটিম সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মাহারাম আদর্শ গ্রামের দুই সন্তানের জনক ইছা মিয়া হতদরিদ্র পরিবারের স্বামী-স্ত্রী শুক্রবার দুপুরের কয়লা কুঁড়াতে গ্রাম পার্শ্ববর্তী জাদুকাটা নদীতে যান। 

এদিকে কয়লা কুড়ানো শ্রমিক দম্পতির বসতবাড়ি ফাঁকা পেয়ে তাদের প্রতিবন্ধী কিশোরী কন্যাকে শারীরিকভাবে শ্লীলতাহানি ও যৌন নিপীড়ন করেন ইছা মিয়া।

ঘটনাটি প্রতিবেশী ও পরিবারের অভিভাবকদের জানালে মুঠোফোনে আইনি সহায়তা চাওয়া হয় থানার ওসির নিকট। 

ওসির নির্দেশে থানার বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ সরেজমিনে তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়ে রাতেই ইছা মিয়াকে গ্রেফতার করেন।  

শনিবার থানার ওসি মো.আতিকুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা নিশ্চিত হওয়ায় অভিযুক্ত’র বিরুদ্ধে থানায় মামলা নেয়া হয়েছে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন