পুলিশ সদস্যের লাশ উদ্ধার, ছয় মাসের শিশুপুত্র নিখোঁজ
jugantor
পুলিশ সদস্যের লাশ উদ্ধার, ছয় মাসের শিশুপুত্র নিখোঁজ

  লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি  

৩০ আগস্ট ২০২০, ১৯:০০:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

পুলিশ কনস্টেবল আবু মুসা রেজওয়ান ও তার ছয় মাস বয়সী শিশুপুত্র আনাস

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় মধুমতি নদীতে নিখোঁজ হওয়া পুলিশ কনস্টেবল আবু মুসা রেজওয়ানের (২৮) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবেতার ছয় মাস বয়সী শিশুপুত্র আনাস এখনো নিখোঁজ রয়েছে বলে জানা গেছে।

রোববার সকালে ঘটনাস্থল উপজেলার কানাঘাট থেকে ১ কিলোমিটার দুরে মহিষাপাড়া ঘাট এলাকায় মুসা রেজওয়ানের লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ এসে মুসার লাশ উদ্ধার করে। পুলিশ আবু মুসা রেজওয়ানের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় মধুমতী নদীতে ঘুরতে গিয়ে কালনাঘাটে নির্মাণাধীন সেতু এলাকায় এসে মাঝ নদীতে তাদের ট্রলারের ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায়। স্রোতের তোড়ে ট্রলারটি নির্মাণাধীন কালনা সেতুর একটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এ সময় পিতা মুসার কোলে থাকা শিশু পুত্র আনাস নদীতে পড়ে যায়। তাকে উদ্ধার করার জন্য মুসা নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এরপর থেকে শিশু পুত্রসহ পিতা মুসা নিখোঁজ হন।

আবু মুসা লোহাগড়া উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চাচই গ্রামের আজাদ মোল্লার ছেলে। তিনি পুলিশ সদর দফতরে কর্মরত ছিলেন। সম্প্রতি ছুটিতে তিনি বাড়িতে আসেন।

লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মধুমতি নদী থেকে সকালে মুসার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তারশিশুপুত্র নিখোঁজরয়েছে। লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

পুলিশ সদস্যের লাশ উদ্ধার, ছয় মাসের শিশুপুত্র নিখোঁজ

 লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি 
৩০ আগস্ট ২০২০, ০৭:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পুলিশ কনস্টেবল আবু মুসা রেজওয়ান ও তার ছয় মাস বয়সী শিশুপুত্র আনাস
পুলিশ কনস্টেবল আবু মুসা রেজওয়ান ও তার ছয় মাস বয়সী শিশুপুত্র আনাস

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় মধুমতি নদীতে নিখোঁজ হওয়া পুলিশ কনস্টেবল আবু মুসা রেজওয়ানের (২৮) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে তার ছয় মাস বয়সী শিশুপুত্র আনাস এখনো নিখোঁজ রয়েছে বলে জানা গেছে।

রোববার সকালে ঘটনাস্থল উপজেলার কানাঘাট থেকে ১ কিলোমিটার দুরে মহিষাপাড়া ঘাট এলাকায় মুসা রেজওয়ানের লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ এসে মুসার লাশ উদ্ধার করে। পুলিশ আবু মুসা রেজওয়ানের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় মধুমতী নদীতে ঘুরতে গিয়ে কালনাঘাটে নির্মাণাধীন সেতু এলাকায় এসে মাঝ নদীতে তাদের ট্রলারের ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায়। স্রোতের তোড়ে ট্রলারটি নির্মাণাধীন কালনা সেতুর একটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এ সময় পিতা মুসার কোলে থাকা শিশু পুত্র আনাস নদীতে পড়ে যায়। তাকে উদ্ধার করার জন্য মুসা নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এরপর থেকে শিশু পুত্রসহ পিতা মুসা নিখোঁজ হন।

আবু মুসা লোহাগড়া উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চাচই গ্রামের আজাদ মোল্লার ছেলে। তিনি পুলিশ সদর দফতরে কর্মরত ছিলেন। সম্প্রতি ছুটিতে তিনি বাড়িতে আসেন।

লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মধুমতি নদী থেকে সকালে মুসার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার শিশুপুত্র নিখোঁজ রয়েছে। লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন