মামার হাতে খুন হওয়া ভাই-বোনের বিচার দাবিতে সড়কে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা
jugantor
মামার হাতে খুন হওয়া ভাই-বোনের বিচার দাবিতে সড়কে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

  বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি  

৩১ আগস্ট ২০২০, ১৯:১২:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে দুই ভাই-বোন কামরুল ও শিপার হত্যাকারী ঘাতক মামা বাদলের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলার ছলিমাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে এ মানববন্ধন করেন শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীরা। মানববন্ধন শেষে তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন- বাঞ্ছারামপুর উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা মো. কবির হোসেন, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মানিক ভূঁইয়া, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. মাইন উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মহরম আলী, ছলিমাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আনিসুজ্জামান বকুল, ছলিমাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. ওমর ফারুক, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তাহমিনা বেগম।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আপন মামা হয়ে ভাগ্নে-ভাগ্নিকে হত্যা করা আত্মীয়তার বন্ধনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। অবিলম্বে বাদলের বিচার সম্পন্ন করতে হবে।

গত ২৪ আগস্ট উপজেলার সাহেবনগর গ্রামে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র কামরুল ও সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী শিপাকে গলা কেটে নির্মমভাবে হত্যা করে তাদের মামা বাদল। ২৭ আগস্ট ঢাকার সবুজবাগ এলাকা থেকে ঘাতক মামাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ২৮ আগস্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া আদালতে দায় স্বীকার করে মামা জবানবন্দি দিয়েছে।

মামার হাতে খুন হওয়া ভাই-বোনের বিচার দাবিতে সড়কে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

 বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি 
৩১ আগস্ট ২০২০, ০৭:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে দুই ভাই-বোন কামরুল ও শিপার হত্যাকারী ঘাতক মামা বাদলের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলার ছলিমাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে এ মানববন্ধন করেন শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীরা। মানববন্ধন শেষে তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন- বাঞ্ছারামপুর উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা মো. কবির হোসেন, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মানিক ভূঁইয়া, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. মাইন উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মহরম আলী, ছলিমাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আনিসুজ্জামান বকুল, ছলিমাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. ওমর ফারুক, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তাহমিনা বেগম।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আপন মামা হয়ে ভাগ্নে-ভাগ্নিকে হত্যা করা আত্মীয়তার বন্ধনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। অবিলম্বে বাদলের বিচার সম্পন্ন করতে হবে। 

গত ২৪ আগস্ট উপজেলার সাহেবনগর গ্রামে পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র কামরুল ও সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী শিপাকে গলা কেটে নির্মমভাবে হত্যা করে তাদের মামা বাদল। ২৭ আগস্ট ঢাকার সবুজবাগ এলাকা থেকে ঘাতক মামাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ২৮ আগস্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া আদালতে দায় স্বীকার করে মামা জবানবন্দি দিয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন