নারী ইউপি সদস্যের দোকানে ৪৭ বস্তা ভিজিডির চাল
jugantor
নারী ইউপি সদস্যের দোকানে ৪৭ বস্তা ভিজিডির চাল

  চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৭:৪৮:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে জহুরা বেগম নামের এক নারী ইউপি সদস্যের দোকান থেকে ৪৭ বস্তা ভিজিডির চাল উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে প্রতিটি ৩০ কেজি ওজনের বস্তাগুলো জব্দ করেন ইউএনও আফসানা ইয়াসমিন। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চৌহালী উপজেলার খাসপুখুরিয়া ইউনিয়নের সংরক্ষিত আসনের আওতাধীন ৫, ৬ ও ৯নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত সদস্য জহুরা বেগম তার বাড়ির অদূরে দোকান ঘরে ভিজিডির ১ হাজার ৪১০ কেজি চাল মজুদ করে রাখেন। এ চালগুলো বিভিন্ন সময় কার্ডধারীদের কাছ থেকে স্বল্পমূল্যে কিনে রাখেন।

সোমবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ‘শেখ হাসিনার বাংলাদেশ, ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ’ লেখা খাদ্য অধিদফতরের ভিজিডির ৪৩ বস্তা ও খোলা অবস্থায় ৪ বস্তা চাল দোকান ঘরের মধ্যে পাওয়া যায়। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি ঢের পেয়ে খাসপুখুরিয়া গ্রামের শাহ আলমের স্ত্রী নারী সদস্য জহুরা বেগম সটকে পড়েন।

এ বিষয়ে জানতে ইউপি সদস্য জহুরা বেগমের মোবাইলে কয়েকবার কল দিলেও বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবদুল মজিদ সরকার জানান, ইউনিয়ন পরিষদের দায়িত্বপ্রাপ্ত ট্যাগ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে চাল বিতরণ করা হয়েছে। আমার সামনে কেউ চাল বিক্রি করেনি। তবে ইউপি সদস্যের দোকান থেকে চাল মজুদের ঘটনায় তিনি নিন্দা প্রকাশ করেন।

এ ব্যাপারে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আফসানা ইয়াসমিন যুগান্তরকে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ৪৭ বস্তা ভিজিডির চাল জব্দ করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নারী ইউপি সদস্যের দোকানে ৪৭ বস্তা ভিজিডির চাল

 চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে জহুরা বেগম নামের এক নারী ইউপি সদস্যের দোকান থেকে ৪৭ বস্তা ভিজিডির চাল উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে প্রতিটি ৩০ কেজি ওজনের বস্তাগুলো জব্দ করেন ইউএনও আফসানা ইয়াসমিন। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চৌহালী উপজেলার খাসপুখুরিয়া ইউনিয়নের সংরক্ষিত আসনের আওতাধীন ৫, ৬ ও ৯নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত সদস্য জহুরা বেগম তার বাড়ির অদূরে দোকান ঘরে ভিজিডির ১ হাজার ৪১০ কেজি চাল মজুদ করে রাখেন। এ চালগুলো বিভিন্ন সময় কার্ডধারীদের কাছ থেকে স্বল্পমূল্যে কিনে রাখেন।

সোমবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ‘শেখ হাসিনার বাংলাদেশ, ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ’ লেখা খাদ্য অধিদফতরের ভিজিডির ৪৩ বস্তা ও খোলা অবস্থায় ৪ বস্তা চাল দোকান ঘরের মধ্যে পাওয়া যায়। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি ঢের পেয়ে খাসপুখুরিয়া গ্রামের শাহ আলমের স্ত্রী নারী সদস্য জহুরা বেগম সটকে পড়েন।

এ বিষয়ে জানতে ইউপি সদস্য জহুরা বেগমের মোবাইলে কয়েকবার কল দিলেও বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবদুল মজিদ সরকার জানান, ইউনিয়ন পরিষদের দায়িত্বপ্রাপ্ত ট্যাগ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে চাল বিতরণ করা হয়েছে। আমার সামনে কেউ চাল বিক্রি করেনি। তবে ইউপি সদস্যের দোকান থেকে চাল মজুদের ঘটনায় তিনি নিন্দা প্রকাশ করেন।

এ ব্যাপারে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আফসানা ইয়াসমিন যুগান্তরকে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ৪৭ বস্তা ভিজিডির চাল জব্দ করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন