অগ্নিকাণ্ডের পর রোগীশূন্য দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতাল
jugantor
অগ্নিকাণ্ডের পর রোগীশূন্য দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতাল

  দিনাজপুর প্রতিনিধি  

০২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:৫৪:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনাজপুর শহরের ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে বুধবার সন্ধ্যায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দ্রুত সময়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৮০ জন রোগীকে সরিয়ে ফেলায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এক ঘণ্টা পর আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস।

হাসপাতালের স্টোর রুমে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। তবে আগুন ছড়িয়ে পড়ার আগেই তা নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে হাসপাতালের স্টোর রুমে রোগীর লোকজন হঠাৎ আগুন দেখে চিৎকার শুরু করেন। এ সময় হাসপাতালে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে রোগীসহ তাদের স্বজনরা ছোটাছুটি শুরু করে। হাসপাতাল স্টাফ ও ফায়ার সার্ভিসসহ স্থানীয় লোকজন দ্রুত রোগীদের ওয়ার্ড থেকে নিরাপদে বের করে আনে।

খবর পেয়ে দিনাজপুর ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। তারা এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে।

হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ভর্তি ৮০ জন রোগীর মধ্যে গুরুতর অসুস্থদের তাৎক্ষণিকভাবে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। অন্যরা হাসপাতাল ছেড়ে বাড়ি চলে যায়। এ ঘটনার পর বর্তমানে হাসপাতালটি রোগীশূন্য রয়েছে।

দিনাজপুর ফায়ার স্টেশনের স্টেশন মাস্টার মেহফুজ তানজির জানান, খবর পেয়ে দ্রুত ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে এবং রোগীদের সরিয়ে নেয়া হয়।

তিনি জানান, তদন্তসাপেক্ষেই বলা যাবে আগুনের সূত্রপাত কোথা থেকে হয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সিগারেটের আগুন থেকেই এর সূত্রপাত। তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সম্পর্কে কিছু জানাতে পারেননি তিনি।

দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. আবদুল কুদ্দুছ জানান, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে গুরুতর রোগীদের অ্যাম্বুলেন্সযোগে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে এবং আশঙ্কামুক্ত রোগীরা বাড়িতে চলে গেছেন। ২৫০ শয্যার হাসপাতালে বুধবার ৮০ জন রোগী চিকিৎসাধীন ছিল। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পর হাসপাতালে আর কোন রোগী নেই বলে জানান সিভিল সার্জন।

আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে সিভিল সার্জন জানান, হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় কোভিড-১৯ ইউনিট স্থাপনের কাজ চলছে। সেখানে শ্রমিকরা কাজ করছে। শ্রমিক অথবা রোগীর স্বজনদের সিগারেটের আগুন থেকেই এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ডা. আবদুল কুদ্দুছ জানান, অগ্নিকাণ্ডে কোনো হতাহতের ঘটনা নেই। আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে এনেছে ফায়ার সার্ভিস। তবে তিনি ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেননি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করবে বলে তিনি জানান।

এদিকে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি তাৎক্ষকিভাবে ছুটে গিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে রোগীদের স্থানান্তরের তদারকি করেন। এছাড়াও দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন হাসপাতালে ছুটে যান এবং আগুন নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত হাসপাতালে অবস্থান করেন।

অগ্নিকাণ্ডের পর রোগীশূন্য দিনাজপুর জেনারেল হাসপাতাল

 দিনাজপুর প্রতিনিধি 
০২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দিনাজপুর শহরের ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে বুধবার সন্ধ্যায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দ্রুত সময়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৮০ জন রোগীকে সরিয়ে ফেলায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এক ঘণ্টা পর আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস।

হাসপাতালের স্টোর রুমে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। তবে আগুন ছড়িয়ে পড়ার আগেই তা নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে হাসপাতালের স্টোর রুমে রোগীর লোকজন হঠাৎ আগুন দেখে চিৎকার শুরু করেন। এ সময় হাসপাতালে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে রোগীসহ তাদের স্বজনরা ছোটাছুটি শুরু করে। হাসপাতাল স্টাফ ও ফায়ার সার্ভিসসহ স্থানীয় লোকজন দ্রুত রোগীদের ওয়ার্ড থেকে নিরাপদে বের করে আনে।

খবর পেয়ে দিনাজপুর ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। তারা এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে।

হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ভর্তি ৮০ জন রোগীর মধ্যে গুরুতর অসুস্থদের তাৎক্ষণিকভাবে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। অন্যরা হাসপাতাল ছেড়ে বাড়ি চলে যায়। এ ঘটনার পর বর্তমানে হাসপাতালটি রোগীশূন্য রয়েছে।

দিনাজপুর ফায়ার স্টেশনের স্টেশন মাস্টার মেহফুজ তানজির জানান, খবর পেয়ে দ্রুত ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে এবং রোগীদের সরিয়ে নেয়া হয়।

তিনি জানান, তদন্তসাপেক্ষেই বলা যাবে আগুনের সূত্রপাত কোথা থেকে হয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সিগারেটের আগুন থেকেই এর সূত্রপাত। তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সম্পর্কে কিছু জানাতে পারেননি তিনি।

দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. আবদুল কুদ্দুছ জানান, অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে গুরুতর রোগীদের অ্যাম্বুলেন্সযোগে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে এবং আশঙ্কামুক্ত রোগীরা বাড়িতে চলে গেছেন। ২৫০ শয্যার হাসপাতালে বুধবার ৮০ জন রোগী চিকিৎসাধীন ছিল। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পর হাসপাতালে আর কোন রোগী নেই বলে জানান সিভিল সার্জন।

আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কে সিভিল সার্জন জানান, হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় কোভিড-১৯ ইউনিট স্থাপনের কাজ চলছে। সেখানে শ্রমিকরা কাজ করছে। শ্রমিক অথবা রোগীর স্বজনদের সিগারেটের আগুন থেকেই এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ডা. আবদুল কুদ্দুছ জানান, অগ্নিকাণ্ডে কোনো হতাহতের ঘটনা নেই। আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে এনেছে ফায়ার সার্ভিস। তবে তিনি ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেননি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তদন্ত কমিটি গঠন করবে বলে তিনি জানান।

এদিকে অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি তাৎক্ষকিভাবে ছুটে গিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত থেকে রোগীদের স্থানান্তরের তদারকি করেন। এছাড়াও দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন হাসপাতালে ছুটে যান এবং আগুন নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত হাসপাতালে অবস্থান করেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন