ছেলেকে শ্বাসরোধে হত্যার পর মাটিতে পুঁতে ফেলে বাবা-মা
jugantor
ছেলেকে শ্বাসরোধে হত্যার পর মাটিতে পুঁতে ফেলে বাবা-মা

  সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:০৯:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

মোবাইল কেনার টাকা চাওয়ায় শ্বাসরোধ করে ছেলেকে হত্যা করে মাটিতে পুঁতে ফেলার দু’মাস ২০ দিন পর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

ঘাতক বাবা ও সৎ মায়ের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী শনিবার বিকালে তাদের পারিবারিক জমিতে পুঁতে রাখা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এদিকে শনিবার সন্ধ্যায় ঘাতক বাবা মা সাতক্ষীরার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম রেজোয়ানুজ্জানর কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়ে হত্যার দায় স্বীকার করেছে।

কালিগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আজিজুর রহমান জানান, নিহত ছেলের নাম আরিফ বিল্লাহ (১৭)। তার বাবা মো. ইমান আলী ও সৎ মা জোহরা খাতুন কালিগঞ্জের চাম্পাফুল গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ পরিদর্শক আরও জানান, গত ২৫ জুন ছেলে আরিফ বিল্লাহ তার বাবার কাছে একটি মোবাইল কেনার টাকা চায়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে জন্মদাতা বাবা ইমান আলী ও সৎ মা জোহরা তাকে প্রথমে মারপিট ও পরে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। ওই রাতেই তারা আরিফ বিল্লাহর লাশ নিজেদের জমিতে মাটি চাপা দেয়। পরদিন প্রচার দেয় যে আরিফ বিল্লাহ পাগল হয়ে কোথায় যেন নিখোঁজ হয়ে গেছে।

এদিকে ইমান আলীর প্রথম স্ত্রী খালেদা বেগম (আরিফ বিল্লাহর মা) তার ছেলে নিখোঁজ বিষয়ে কালিগঞ্জ থানায় একটি জিডি করেন। এই জিডি তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ বিভিন্ন মহল থেকে খবর পায় যে আরিফ বিল্লাহকে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশ শুক্রবার গভীর রাতে ইমান আলী ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী জোহরাকে আটক করে। শনিবার তারা পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলে পুলিশ বিকালে লাশটি উত্তোলন করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

ছেলেকে শ্বাসরোধে হত্যার পর মাটিতে পুঁতে ফেলে বাবা-মা

 সাতক্ষীরা প্রতিনিধি  
০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মোবাইল কেনার টাকা চাওয়ায় শ্বাসরোধ করে ছেলেকে হত্যা করে মাটিতে পুঁতে ফেলার দু’মাস ২০ দিন পর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। 

ঘাতক বাবা ও সৎ মায়ের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী শনিবার বিকালে তাদের পারিবারিক জমিতে পুঁতে রাখা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। 

এদিকে শনিবার সন্ধ্যায় ঘাতক বাবা মা সাতক্ষীরার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম রেজোয়ানুজ্জানর কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়ে হত্যার দায় স্বীকার করেছে।

কালিগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আজিজুর রহমান জানান, নিহত ছেলের নাম আরিফ বিল্লাহ (১৭)। তার বাবা মো. ইমান আলী ও সৎ মা জোহরা খাতুন কালিগঞ্জের চাম্পাফুল গ্রামের বাসিন্দা। 

পুলিশ পরিদর্শক আরও জানান, গত ২৫ জুন ছেলে আরিফ বিল্লাহ তার বাবার কাছে একটি মোবাইল কেনার টাকা চায়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে জন্মদাতা বাবা ইমান আলী ও সৎ মা জোহরা তাকে প্রথমে মারপিট ও পরে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। ওই রাতেই তারা আরিফ বিল্লাহর লাশ নিজেদের জমিতে মাটি চাপা দেয়। পরদিন প্রচার দেয় যে আরিফ বিল্লাহ পাগল হয়ে কোথায় যেন নিখোঁজ হয়ে গেছে। 

এদিকে ইমান আলীর প্রথম স্ত্রী খালেদা বেগম (আরিফ বিল্লাহর মা) তার ছেলে নিখোঁজ বিষয়ে কালিগঞ্জ থানায় একটি জিডি করেন। এই জিডি তদন্ত করতে গিয়ে পুলিশ বিভিন্ন মহল থেকে খবর পায় যে আরিফ বিল্লাহকে হত্যা করা হয়েছে। 

পুলিশ শুক্রবার গভীর রাতে ইমান আলী ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী জোহরাকে আটক করে। শনিবার তারা পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলে পুলিশ বিকালে লাশটি উত্তোলন করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।
 

 
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন