সুন্দরগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে ধর্ষণ
jugantor
সুন্দরগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে ধর্ষণ

  গাইবান্ধা প্রতিনিধি  

০৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:১৭:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ঘর্ষণ

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কাপাসিয়া ইউনিয়নের দুর্গম চরাঞ্চল ভাটিকাপাসিয়া গ্রামের এক কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগে গত শনিবার রাতে থানায় মামলা হয়েছে।

দীর্ঘদিন থেকে ওই গ্রামের আব্দুল আজিজ মিয়ার ছেলে আনোয়ারুল ইসলাম (৪০) অসহায় কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করে আসছিল।

শনিবার সকালে কিশোরী বিয়ের দাবি নিয়ে আনোয়ারুলের বাড়িতে অবস্থান নিলে স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। পরে ধুবনি তদন্ত কেন্দ্রের এসআই রাজেন্দ্র মোহন চাকি ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ওই কিশোরীকে উদ্ধার এবং ওই বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ৩০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এর ফাঁকে লম্পট আনোয়ারুল সটকে পড়ে।

জানা গেছে, আনোয়ারুল একজন প্রতারক ও মাদক ব্যবসায়ী। এর আগেও সে দুই মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করার পর বিয়ে করে তাদের তালাক দিয়েছে। বর্তমানে তার স্ত্রী রয়েছে। উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি নিমাই ভট্টাচার্য্য জানান, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, কিশোরী একজন এতিম। তার মা দুর্গম চরাঞ্চলে একটি চালার মধ্যে মেয়েকে নিয়ে বসবাস করেন। তিনি এ ঘটনায় দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি জানিয়েছেন।

গত শনিবার রাতে এ নিয়ে নারী শিশু নির্যাতন ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। রোববার কিশোরীকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য গাইবান্ধা সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। থানা পুলিশ পরিদর্শক বুলবুল ইসলাম জানান, আসামি আনোয়ারুলকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সুন্দরগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে ধর্ষণ

 গাইবান্ধা প্রতিনিধি 
০৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ঘর্ষণ
ধর্ষণ

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার কাপাসিয়া ইউনিয়নের দুর্গম চরাঞ্চল ভাটিকাপাসিয়া গ্রামের এক কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগে গত শনিবার রাতে থানায় মামলা হয়েছে। 

দীর্ঘদিন থেকে ওই গ্রামের আব্দুল আজিজ মিয়ার ছেলে আনোয়ারুল ইসলাম (৪০) অসহায় কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করে আসছিল।

শনিবার সকালে কিশোরী বিয়ের দাবি নিয়ে আনোয়ারুলের বাড়িতে অবস্থান নিলে স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। পরে ধুবনি তদন্ত কেন্দ্রের এসআই রাজেন্দ্র মোহন চাকি ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ওই কিশোরীকে উদ্ধার এবং ওই বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ৩০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এর ফাঁকে লম্পট আনোয়ারুল সটকে পড়ে। 

জানা গেছে, আনোয়ারুল একজন প্রতারক ও মাদক ব্যবসায়ী। এর আগেও সে দুই মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করার পর বিয়ে করে তাদের তালাক দিয়েছে। বর্তমানে তার স্ত্রী রয়েছে। উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি নিমাই ভট্টাচার্য্য জানান, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, কিশোরী একজন এতিম। তার মা দুর্গম চরাঞ্চলে একটি চালার মধ্যে মেয়েকে নিয়ে বসবাস করেন। তিনি এ ঘটনায় দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি জানিয়েছেন। 

গত শনিবার রাতে এ নিয়ে নারী শিশু নির্যাতন ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। রোববার কিশোরীকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য গাইবান্ধা সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। থানা পুলিশ পরিদর্শক বুলবুল ইসলাম জানান, আসামি আনোয়ারুলকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন