স্ত্রীকে পতিতালয়ে বিক্রি, উজ্জ্বলের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন
jugantor
স্ত্রীকে পতিতালয়ে বিক্রি, উজ্জ্বলের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

  অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি  

০৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:২৪:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরের অভয়নগরে স্ত্রীকে পতিতালয়ে বিক্রি করায় মানবপাচার মামলার আসামি স্বামী উজ্জ্বল শিকদারের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসী মানববন্ধন করেছেন। রোববার বেলা ১১টায় উপজেলার শুভরাড়া ইউনিয়নের ইছামতী বাজারের গলাচিপা মোড়ে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এলাকাবাসীর আয়োজনে ঘণ্টাব্যাপী চলা মানববন্ধনে এলাকার দুই শতাধিক মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এ সময় বক্তব্য রাখেন- শুভরাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক বিশ্বাস, ইউপি সদস্য মাহামুদুর রহমান বেলা, রফিকুল ইসলাম, সুফিয়া খানম, সাবেক ইউপি সদস্য জগদীশ শিকদার, শিক্ষক দীপংকর মণ্ডল, সমাজসেবক আবদুল গফফার শিকদার, আব্বাস শিকদার প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ভ্যান চালিয়ে জীবন-জীবিকা করতে থাকা উজ্জ্বল শিকদার গত চার বছর ভারতে নারী পাচার করে বিপুল অর্থের মালিক হয়েছেন। কিনেছেন জমি, নির্মাণ করেছেন পাকা ঘরবাড়ি। শুরু করেছেন ব্যবসা-বাণিজ্য। নারী পাচারের এক পর্যায়ে নিজ স্ত্রী ছালমা খাতুনকে ভারতের ব্যাঙ্গালুরুর অসকোট পতিতালয়ে মোটা অংকের টাকায় বিক্রি করেন। এই নারী পাচারকারী প্রতারক উজ্জ্বল শিকদারকে দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করাসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন বক্তারা।

উল্লেখ্য, অধিক আয়ের আশায় গত ২ ফেব্রুয়ারি উজ্জ্বল শিকদার তার স্ত্রী ছালমা খাতুনকে ফুঁসলিয়ে ভারতের ব্যাঙ্গালুরু শহরে নিয়ে যায়। কিছু দিন পর তার স্ত্রী ছালমা খাতুনকে বাঙ্গালুরু অসকোট পতিতালয়ে বিক্রি করে সে পালিয়ে দেশে ফিরে আসে। ২৩ দিন পতিতালয়ে মানবেতর জীবনযাপন শেষে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ছালমা খাতুন পতিতালয়ের এক দারোয়ানের সহযোগিতায় চোরাই পথে বেনাপোল হয়ে দেশে ফিরে আসেন।

এরপর স্থানীয় পর্যায়ে কোনো বিচার না পেয়ে ছালমা খাতুন চলতি বছরের মার্চ মাসে স্বামী উজ্জ্বল শিকদারের বিরুদ্ধে যশোরে মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন ট্রাইব্যুনাল-১ আদালতে মামলা দায়ের করেন।

স্ত্রীকে পতিতালয়ে বিক্রি, উজ্জ্বলের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

 অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি 
০৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরের অভয়নগরে স্ত্রীকে পতিতালয়ে বিক্রি করায় মানবপাচার মামলার আসামি স্বামী উজ্জ্বল শিকদারের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসী মানববন্ধন করেছেন। রোববার বেলা ১১টায় উপজেলার শুভরাড়া ইউনিয়নের ইছামতী বাজারের গলাচিপা মোড়ে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এলাকাবাসীর আয়োজনে ঘণ্টাব্যাপী চলা মানববন্ধনে এলাকার দুই শতাধিক মানুষ অংশগ্রহণ করেন। এ সময় বক্তব্য রাখেন- শুভরাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক বিশ্বাস, ইউপি সদস্য মাহামুদুর রহমান বেলা, রফিকুল ইসলাম, সুফিয়া খানম, সাবেক ইউপি সদস্য জগদীশ শিকদার, শিক্ষক দীপংকর মণ্ডল, সমাজসেবক আবদুল গফফার শিকদার, আব্বাস শিকদার প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ভ্যান চালিয়ে জীবন-জীবিকা করতে থাকা উজ্জ্বল শিকদার গত চার বছর ভারতে নারী পাচার করে বিপুল অর্থের মালিক হয়েছেন। কিনেছেন জমি, নির্মাণ করেছেন পাকা ঘরবাড়ি। শুরু করেছেন ব্যবসা-বাণিজ্য। নারী পাচারের এক পর্যায়ে নিজ স্ত্রী ছালমা খাতুনকে ভারতের ব্যাঙ্গালুরুর অসকোট পতিতালয়ে মোটা অংকের টাকায় বিক্রি করেন। এই নারী পাচারকারী প্রতারক উজ্জ্বল শিকদারকে দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করাসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন বক্তারা।

উল্লেখ্য, অধিক আয়ের আশায় গত ২ ফেব্রুয়ারি উজ্জ্বল শিকদার তার স্ত্রী ছালমা খাতুনকে ফুঁসলিয়ে ভারতের ব্যাঙ্গালুরু শহরে নিয়ে যায়। কিছু দিন পর তার স্ত্রী ছালমা খাতুনকে বাঙ্গালুরু অসকোট পতিতালয়ে বিক্রি করে সে পালিয়ে দেশে ফিরে আসে। ২৩ দিন পতিতালয়ে মানবেতর জীবনযাপন শেষে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ছালমা খাতুন পতিতালয়ের এক দারোয়ানের সহযোগিতায় চোরাই পথে বেনাপোল হয়ে দেশে ফিরে আসেন।

এরপর স্থানীয় পর্যায়ে কোনো বিচার না পেয়ে ছালমা খাতুন চলতি বছরের মার্চ মাসে স্বামী উজ্জ্বল শিকদারের বিরুদ্ধে যশোরে মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন ট্রাইব্যুনাল-১ আদালতে মামলা দায়ের করেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন