অবৈধ দখলের ছবি তোলায় সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকি
jugantor
অবৈধ দখলের ছবি তোলায় সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকি

  কুমিল্লা ব্যুরো  

০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:৪৪:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে প্রভাবশালীর অবৈধ দখলকৃত জায়গার ছবি তোলায় আক্তারুজ্জামান নামে এক সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়েছে।

আক্তারুজ্জামান দৈনিক ইনকিলাব ও এশিয়ান টেলিভিশনের চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত আছেন। আর এ ঘটনায় নিজের নিরাপত্তা চেয়ে ইয়াকুব আলী মজুমদার নামে একজনের বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন ওই সাংবাদিক।

অভিযুক্ত ইয়াকুব আলী মজুমদার কনকাপৈত ইউনিয়নের মরকটা গ্রামের মৃত সায়েদুর রহমান ওরফে ভাষানীর ছেলে।

মঙ্গলবার দুপুরে সাধারণ ডায়েরির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কর্তব্যরত ডিউটি অফিসার এসআই মনির হোসেন।

জানা যায়, উপজেলার কনকাপৈত ইউনিয়নের মরকটা গ্রামে ডাকাতিয়া নদীর অবৈধ দখলের বিষয়ে সোমবার সকালে সাংবাদিক আকতারুজ্জামান সরেজমিন বিভিন্ন তথ্য ও ছবি সংগ্রহ করেন। এ সময় তিনি দখলদার আবদুল মান্নান ভুঁইয়া ও ইয়াকুব আলী মজুমদারসহ কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে তাদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেন। এরপর তিনি ঘটনাস্থল ত্যাগ করে চলে আসেন।

সোমবার সন্ধ্যায় ইয়াকুব আলী মজুমদার তার ব্যক্তিগত মোবাইল থেকে সাংবাদিক আকতারুজ্জামানকে হুমকি দিয়ে বলেন, তুই যদি আমিসহ নদীর অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে নিউজ করিস, তাহলে তোকে কুপিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলব। আর যদি দশ মিনিট তুই মরকটা গ্রামে থাকতি তাহলে তোকে আমরা প্রাণে মেরে ফেলতাম। এরপর ইয়াকুব আলী মজুমদার অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে ফোন রেখে দেন।

অবৈধ দখলের ছবি তোলায় সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকি

 কুমিল্লা ব্যুরো 
০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে প্রভাবশালীর অবৈধ দখলকৃত জায়গার ছবি তোলায় আক্তারুজ্জামান নামে এক সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়েছে। 

আক্তারুজ্জামান দৈনিক ইনকিলাব ও এশিয়ান টেলিভিশনের চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত আছেন। আর এ ঘটনায় নিজের নিরাপত্তা চেয়ে ইয়াকুব আলী মজুমদার নামে একজনের বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন ওই সাংবাদিক। 

অভিযুক্ত ইয়াকুব আলী মজুমদার কনকাপৈত ইউনিয়নের মরকটা গ্রামের মৃত সায়েদুর রহমান ওরফে ভাষানীর ছেলে। 

মঙ্গলবার দুপুরে সাধারণ ডায়েরির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন কর্তব্যরত ডিউটি অফিসার এসআই মনির হোসেন।

জানা যায়, উপজেলার কনকাপৈত ইউনিয়নের মরকটা গ্রামে ডাকাতিয়া নদীর অবৈধ দখলের বিষয়ে সোমবার সকালে সাংবাদিক আকতারুজ্জামান সরেজমিন বিভিন্ন তথ্য ও ছবি সংগ্রহ করেন। এ সময় তিনি দখলদার আবদুল মান্নান ভুঁইয়া ও ইয়াকুব আলী মজুমদারসহ কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে তাদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেন। এরপর তিনি ঘটনাস্থল ত্যাগ করে চলে আসেন। 

সোমবার সন্ধ্যায় ইয়াকুব আলী মজুমদার তার ব্যক্তিগত মোবাইল থেকে সাংবাদিক আকতারুজ্জামানকে হুমকি দিয়ে বলেন, তুই যদি আমিসহ নদীর অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে নিউজ করিস, তাহলে তোকে কুপিয়ে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলব। আর যদি দশ মিনিট তুই মরকটা গ্রামে থাকতি তাহলে তোকে আমরা প্রাণে মেরে ফেলতাম। এরপর ইয়াকুব আলী মজুমদার অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে ফোন রেখে দেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন