হাতকড়া নিয়ে পালাল যুবলীগ নেতা, প্রত্যাহার হল ৩ পুলিশ
jugantor
হাতকড়া নিয়ে পালাল যুবলীগ নেতা, প্রত্যাহার হল ৩ পুলিশ

  যুগান্তর রিপোর্ট, বরগুনা  

০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:১২:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

বরগুনায় এক ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও মাদক ব্যবসায়ীকে আটকের পর হাতকড়া থেকে ছুটে পালানোর ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। মঙ্গলবার তাদের প্রত্যাহার করা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যার দিকে বরগুনা সদর উপজেলার ১০ নম্বর নলটোনা ইউনিয়নের গোড়াপদ্মা গ্রাম থেকে ৫ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মিরাজ ও তার সহযোগী কাশেমকে ১০ গ্রাম গাঁজাসহ হাতেনাতে আটক করে বাবুগঞ্জ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ। পরে তদন্ত কেন্দ্রে তাদের নেয়া হয়। হাতকড়া দিয়ে তদন্ত কেন্দ্রের জানালার গ্রিলের সাথে তাদের বেঁধে রাখা হয়। পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে সেখান থেকে হাতকড়ার মধ্য থেকে বের হয়ে মিরাজ পালিয়ে যায়। তার বিরুদ্ধে এর আগেও মাদকের মামলা রয়েছে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার দুপুর ১২টার বাবুগঞ্জ তদন্ত কেন্দ্রের কর্মকর্তা রণজিৎ কুমার সরকার, এসআই রফিকুল ইসলাম ও ডিউটিরত কনস্টেবল তৌহিদকে প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন বরগুনার সদর থানার ওসি কেএম তারিকুল ইসলাম অরুণ।

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত মিরাজকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। তবে আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছি তাকে গ্রেফতার করার জন্য।

হাতকড়া নিয়ে পালাল যুবলীগ নেতা, প্রত্যাহার হল ৩ পুলিশ

 যুগান্তর রিপোর্ট, বরগুনা 
০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরগুনায় এক ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ও মাদক ব্যবসায়ীকে আটকের পর হাতকড়া থেকে ছুটে পালানোর ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। মঙ্গলবার তাদের প্রত্যাহার করা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যার দিকে বরগুনা সদর উপজেলার ১০ নম্বর নলটোনা ইউনিয়নের গোড়াপদ্মা গ্রাম থেকে ৫ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মিরাজ ও তার সহযোগী কাশেমকে ১০ গ্রাম গাঁজাসহ হাতেনাতে আটক করে বাবুগঞ্জ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ। পরে তদন্ত কেন্দ্রে তাদের নেয়া হয়। হাতকড়া দিয়ে তদন্ত কেন্দ্রের জানালার গ্রিলের সাথে তাদের বেঁধে রাখা হয়। পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে সেখান থেকে হাতকড়ার মধ্য থেকে বের হয়ে মিরাজ পালিয়ে যায়। তার বিরুদ্ধে এর আগেও মাদকের মামলা রয়েছে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার দুপুর ১২টার বাবুগঞ্জ তদন্ত কেন্দ্রের কর্মকর্তা রণজিৎ কুমার সরকার, এসআই রফিকুল ইসলাম ও ডিউটিরত কনস্টেবল তৌহিদকে প্রত্যাহার করা হয়েছে বলে যুগান্তরকে নিশ্চিত করেছেন বরগুনার সদর থানার ওসি কেএম তারিকুল ইসলাম অরুণ।

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত মিরাজকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। তবে আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছি তাকে গ্রেফতার করার জন্য।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন