পটুয়াখালী-কলাপাড়ায় অবৈধ টোল আদায় বন্ধ করল পুলিশ
jugantor
পটুয়াখালী-কলাপাড়ায় অবৈধ টোল আদায় বন্ধ করল পুলিশ

  পটুয়াখালী ও দক্ষিণ প্রতিনিধি  

০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:৫০:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

মন্ত্রণালয়ের আদেশ অমান্য করে মহাসড়কে বক্স বসিয়ে পৌর কর্তৃপক্ষের টোল আদায় বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আদেশের সূত্র ধরে গত ৬ সেপ্টেম্বর পটুয়াখালী পুলিশ সুপার মোহম্মদ মইনুল হাসান এ অবৈধ টোল আদায় বন্ধ করেন বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

এ প্রসঙ্গে এসপি বলেন, ২০১৫ সালের ৩ ডিসেম্বর স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সরজ কুমার নাথ স্বাক্ষরিত একটি আদেশে বলা হয়- যেসব পৌরসভা মহাসড়কে বাস/ট্রাক টার্মিনালে বাইরে বক্স বসিয়ে টোল/ট্যাক্স আদায় করছে, তা সম্পূর্ণ অবৈধ। তাই টোল আদায় বন্ধ করা হয়েছে। অবৈধ এই টোল আদায় বন্ধে তৎকালীন সময়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আদেশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে অবৈধ এই টোল আদায় বন্ধ হয়নি। যে কারণে খেসারত দিতে হতো পরিবহন সেক্টরকে।

পটুয়াখালী ট্রাক সমিতি সূত্রে জানা গেছে- ২০১১-১২ অর্থবছরে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে পটুয়াখালী সেতুর দক্ষিণ পাশে বক্স বসিয়ে টোল/ট্যাক্স আদায় শুরু করে পটুয়াখালী পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। একইভাবে কলাপাড়া উপজেলায় শেখ কামাল সেতু সংলগ্ন মহাসড়কের পাশে বক্স বসিয়ে টোল আদায় করা হতো দীর্ঘদিন।

এ প্রসঙ্গে টোল আদায় করা একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সত্ত্বাধিকারী জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, মাত্র দুই মাস পূর্বে সঠিকভাবে টেন্ডার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পটুয়াখালী পৌরসভা থেকে টোল আদায়ের দরপত্র লাভ করেন। এজন্য পৌর তহবিলে তাকে ১২ লাখ টাকা জমা দিতে হয়। কিন্তু গত ৬ সেপ্টেম্বর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মুকিত হাসান খান টোল আদায় বন্ধ করে দিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুকিত হাসান বলেন, এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের একটি আদেশে টোল আদায় অবৈধ বলে গণ্য করা হয়েছে। তাই মন্ত্রণালয়ের আদেশ পুলিশ বাস্তবায়ন করেছে।

পটুয়াখালী পৌর মেয়র মহিউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, টোল আদায় বিগত দিন থেকেই হচ্ছে। তবে নিয়মানুযায়ী ট্রাকগুলো শহরের নির্দিষ্ট স্থানে দাঁড়িয়ে পণ্য পরিবহন ওঠা-নামা করবে কিন্তু ট্রাকগুলো মহাসড়কেই পণ্য পরিবহন করছে। তাই মহাসড়কে বক্স বসিয়ে টোল আদায় করা হতো। যেহেতু এটা নিয়ে আপত্তি উঠেছে, তাই আমরা সঠিক প্রক্রিয়ায় টোল আদায় করব।

এ প্রসঙ্গে কলাপাড়া পৌর মেয়র বিপুল হালদার বলেন, কলাপাড়া পৌরসভা মহাসড়কে কোনো প্রকার টোল আদায় করেনি। তবে একটি চক্র শেখ কামাল সেতু সংলগ্ন মহাসড়কে টোল আদায় করত। এর প্রতিকার চেয়ে আমি প্রশাসনকে লিখিতভাবে অবহিত করেছি।

পটুয়াখালী-কলাপাড়ায় অবৈধ টোল আদায় বন্ধ করল পুলিশ

 পটুয়াখালী ও দক্ষিণ প্রতিনিধি 
০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মন্ত্রণালয়ের আদেশ অমান্য করে মহাসড়কে বক্স বসিয়ে পৌর কর্তৃপক্ষের টোল আদায় বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আদেশের সূত্র ধরে গত ৬ সেপ্টেম্বর পটুয়াখালী পুলিশ সুপার মোহম্মদ মইনুল হাসান এ অবৈধ টোল আদায় বন্ধ করেন বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

এ প্রসঙ্গে এসপি বলেন, ২০১৫ সালের ৩ ডিসেম্বর স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সরজ কুমার নাথ স্বাক্ষরিত একটি আদেশে বলা হয়- যেসব পৌরসভা মহাসড়কে বাস/ট্রাক টার্মিনালে বাইরে বক্স বসিয়ে টোল/ট্যাক্স আদায় করছে, তা সম্পূর্ণ অবৈধ। তাই টোল আদায় বন্ধ করা হয়েছে। অবৈধ এই টোল আদায় বন্ধে তৎকালীন সময়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে আদেশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে অবৈধ এই টোল আদায় বন্ধ হয়নি। যে কারণে খেসারত দিতে হতো পরিবহন সেক্টরকে।

পটুয়াখালী ট্রাক সমিতি সূত্রে জানা গেছে- ২০১১-১২ অর্থবছরে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে পটুয়াখালী সেতুর দক্ষিণ পাশে বক্স বসিয়ে টোল/ট্যাক্স আদায় শুরু করে পটুয়াখালী পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। একইভাবে কলাপাড়া উপজেলায় শেখ কামাল সেতু সংলগ্ন মহাসড়কের পাশে বক্স বসিয়ে টোল আদায় করা হতো দীর্ঘদিন।

এ প্রসঙ্গে টোল আদায় করা একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সত্ত্বাধিকারী জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, মাত্র দুই মাস পূর্বে সঠিকভাবে টেন্ডার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পটুয়াখালী পৌরসভা থেকে টোল আদায়ের দরপত্র লাভ করেন। এজন্য পৌর তহবিলে তাকে ১২ লাখ টাকা জমা দিতে হয়। কিন্তু গত ৬ সেপ্টেম্বর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মুকিত হাসান খান টোল আদায় বন্ধ করে দিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুকিত হাসান বলেন, এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের একটি আদেশে টোল আদায় অবৈধ বলে গণ্য করা হয়েছে। তাই মন্ত্রণালয়ের আদেশ পুলিশ বাস্তবায়ন করেছে।

পটুয়াখালী পৌর মেয়র মহিউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, টোল আদায় বিগত দিন থেকেই হচ্ছে। তবে নিয়মানুযায়ী ট্রাকগুলো শহরের নির্দিষ্ট স্থানে দাঁড়িয়ে পণ্য পরিবহন ওঠা-নামা করবে কিন্তু ট্রাকগুলো মহাসড়কেই পণ্য পরিবহন করছে। তাই মহাসড়কে বক্স বসিয়ে টোল আদায় করা হতো। যেহেতু এটা নিয়ে আপত্তি উঠেছে, তাই আমরা সঠিক প্রক্রিয়ায় টোল আদায় করব।

এ প্রসঙ্গে কলাপাড়া পৌর মেয়র বিপুল হালদার বলেন, কলাপাড়া পৌরসভা মহাসড়কে কোনো প্রকার টোল আদায় করেনি। তবে একটি চক্র শেখ কামাল সেতু সংলগ্ন মহাসড়কে টোল আদায় করত। এর প্রতিকার চেয়ে আমি প্রশাসনকে লিখিতভাবে অবহিত করেছি।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন