মাধবপুরে তিন সন্তান জন্ম দেয়া গৃহবধূকে ইউএনওর উপহার
jugantor
মাধবপুরে তিন সন্তান জন্ম দেয়া গৃহবধূকে ইউএনওর উপহার

  মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:২৪:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শিয়ালউড়ি গ্রামের একসঙ্গে তিন সন্তান জন্ম দেয়া গৃহবধূ রহিমা বেগমের পরিবারকে নগদ টাকা, ফল, দুধসহ বিভিন্ন সামগ্রী উপহার দিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসনুভা নাশতারান। বুধবার দুপুরে দরিদ্র রহিমার বাড়িতে গিয়ে তার ও সন্তানদের খোঁজখবর নেন তিনি।

আচমকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বিপুল পরিমাণ উপহারসামগ্রী পেয়ে খুশিতে আত্মহারা রহিমা ও তার পরিবার। উপজেলার শিয়ালউড়ি গ্রামের আবদুল সালামের স্ত্রী রহিমা।

১৯ আগস্ট ভোরে রহিমা বেগমের প্রসব ব্যথা শুরু হলে তাকে ধর্মঘর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। মা মনি সীমান্ত প্রকল্পের স্বাস্থ্যকর্মী নাইস খাতুনের তত্ত্বাবধানে নরমাল ডেলিভারির মাধ্যমে একে একে তিন সন্তান প্রসব করেন রহিমা।

নাইস খাতুন জানান, প্রসূতি রহিমা সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে প্রথম কন্যাসন্তান প্রসব করেন। এরপর ৮টা ৫০ মিনিটে দ্বিতীয় এবং সকাল ৯টায় তৃতীয় সন্তান ভূমিষ্ঠ হয়। মা ও নবজাতকরা সুস্থ থাকায় তারা বাড়ি চলে গেছেন।

উপহারসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে- নগদ ৫ হাজার টাকা, ২ কেজি মাল্টা, ১ কেজি আঙ্গুর, ৩ প্যাকেট ল্যাকটোজেন-১ দুধ, ১ প্যাকেট হরলিকস, ২০ কেজি চাল, ২টি মুরগি, আলু ৩ কেজি, ডাল ২ কেজি, লাউ ১টি, ডিম ১ ডজন।

এ সময় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জান্নাত সুলতানা উপস্থিত ছিলেন।

মাধবপুরে তিন সন্তান জন্ম দেয়া গৃহবধূকে ইউএনওর উপহার

 মাধবপুর (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শিয়ালউড়ি গ্রামের একসঙ্গে তিন সন্তান জন্ম দেয়া গৃহবধূ রহিমা বেগমের পরিবারকে নগদ টাকা, ফল, দুধসহ বিভিন্ন সামগ্রী উপহার দিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসনুভা নাশতারান। বুধবার দুপুরে দরিদ্র রহিমার বাড়িতে গিয়ে তার ও সন্তানদের খোঁজখবর নেন তিনি।

আচমকা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বিপুল পরিমাণ উপহারসামগ্রী পেয়ে খুশিতে আত্মহারা রহিমা ও তার পরিবার। উপজেলার শিয়ালউড়ি গ্রামের আবদুল সালামের স্ত্রী রহিমা।

১৯ আগস্ট ভোরে রহিমা বেগমের প্রসব ব্যথা শুরু হলে তাকে ধর্মঘর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। মা মনি সীমান্ত প্রকল্পের স্বাস্থ্যকর্মী নাইস খাতুনের তত্ত্বাবধানে নরমাল ডেলিভারির মাধ্যমে একে একে তিন সন্তান প্রসব করেন রহিমা।

নাইস খাতুন জানান, প্রসূতি রহিমা সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে প্রথম কন্যাসন্তান প্রসব করেন। এরপর ৮টা ৫০ মিনিটে দ্বিতীয় এবং সকাল ৯টায় তৃতীয় সন্তান ভূমিষ্ঠ হয়। মা ও নবজাতকরা সুস্থ থাকায় তারা বাড়ি চলে গেছেন।

উপহারসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে- নগদ ৫ হাজার টাকা, ২ কেজি মাল্টা, ১ কেজি আঙ্গুর, ৩ প্যাকেট ল্যাকটোজেন-১ দুধ, ১ প্যাকেট হরলিকস, ২০ কেজি চাল, ২টি মুরগি, আলু ৩ কেজি, ডাল ২ কেজি, লাউ ১টি, ডিম ১ ডজন।

এ সময় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জান্নাত সুলতানা উপস্থিত ছিলেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন