ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরুল ইসলাম প্রত‌্যাহার
jugantor
ইউএনও ওয়াহিদার ওপর হামলা
ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরুল ইসলাম প্রত‌্যাহার

  দিনাজপুর প্রতিনিধি  

১১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৫১:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

ওসি আমিরুল

ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবার ওপর হামলার ঘটনায় দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরুল ইসলামকে প্রত‌্যাহার করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে তাকে প্রত‌্যাহার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।

তিনি যুগান্তরকে জানান, ‘ওসি আমিরুল ইসলামকে প্রত্যাহার করে দিনাজপুর পুলিশ লাইনে আনা হয়েছে।’

এদিকে ইউএনও ওয়াহিদার ওপর হামলার ঘটনায় তার বড় ভাই শেখ ফরিদ উদ্দীনের দায়েরকৃত মামলাটি ইতিমধ্যেই ঘোড়াঘাট থানা থেকে স্থানান্তর করে দিনাজপুর ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা নিযুক্ত করা হয়েছে দিনাজপুর ডিবি পুলিশের ওসি ইমাম জাফরকে।

এছাড়া এ মামলায় রিমান্ডে নেয়া ৩ জন আসামির মধ্যে ২ জনকে (রঙমিস্ত্রিনবীরুল ইসলাম ও সান্টু কুমার দাস) ৭ দিনের রিমান্ড শেষে আজ শুক্রবার আদালতে হাজির করা হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে তদন্তকারী কর্মকর্তা ইমাম জাফর যুগান্তরকে জানান, আজ বিকালে আসামি নবীরুল ইসলাম ও সান্টু কুমার দাসকে আদালতে হাজির করা হবে। গ্রেফতারকৃত অপর আসামি আসাদুল ইসলামের ৭ দিনের রিমান্ড শেষ হবে আগামীকাল শনিবার।

প্রসঙ্গত গত ২ সেপ্টেম্বর বুধবার দিনগত রাতে সরকারি বাসভবনে ঢুকে ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী শেখকে নির্মমভাবে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা।

বর্তমানে ইউএনও ওয়াহিদা খানম ঢাকার নিউরো সায়েন্সেস হাসপাতাল এবং তার বাবা রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ইউএনও ওয়াহিদার ওপর হামলা

ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরুল ইসলাম প্রত‌্যাহার

 দিনাজপুর প্রতিনিধি 
১১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ওসি আমিরুল
ওসি আমিরুল ইসলাম। ছবি-যুগান্তর

ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবার ওপর হামলার ঘটনায় দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরুল ইসলামকে প্রত‌্যাহার করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে তাকে প্রত‌্যাহার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।

তিনি যুগান্তরকে জানান, ‘ওসি আমিরুল ইসলামকে প্রত্যাহার করে দিনাজপুর পুলিশ লাইনে আনা হয়েছে।’ 

এদিকে ইউএনও ওয়াহিদার ওপর হামলার ঘটনায় তার বড় ভাই শেখ ফরিদ উদ্দীনের দায়েরকৃত মামলাটি ইতিমধ্যেই ঘোড়াঘাট থানা থেকে স্থানান্তর করে দিনাজপুর ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা নিযুক্ত করা হয়েছে দিনাজপুর ডিবি পুলিশের ওসি ইমাম জাফরকে। 

এছাড়া এ মামলায় রিমান্ডে নেয়া ৩ জন আসামির মধ্যে ২ জনকে (রঙমিস্ত্রি নবীরুল ইসলাম ও সান্টু কুমার দাস) ৭ দিনের রিমান্ড শেষে আজ শুক্রবার আদালতে হাজির করা হবে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে তদন্তকারী কর্মকর্তা ইমাম জাফর যুগান্তরকে জানান, আজ বিকালে আসামি নবীরুল ইসলাম ও সান্টু কুমার দাসকে আদালতে হাজির করা হবে। গ্রেফতারকৃত অপর আসামি আসাদুল ইসলামের ৭ দিনের রিমান্ড শেষ হবে আগামীকাল শনিবার। 

প্রসঙ্গত গত ২ সেপ্টেম্বর বুধবার দিনগত রাতে সরকারি বাসভবনে ঢুকে ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা মুক্তিযোদ্ধা ওমর আলী শেখকে নির্মমভাবে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা। 

বর্তমানে ইউএনও ওয়াহিদা খানম ঢাকার নিউরো সায়েন্সেস হাসপাতাল এবং তার বাবা রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ইউএনও ওয়াহিদার ওপর হামলা

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন