টঙ্গীতে কারখানার ৫ শ্রমিক দগ্ধ, ঢামেকে ভর্তি
jugantor
টঙ্গীতে কারখানার ৫ শ্রমিক দগ্ধ, ঢামেকে ভর্তি

  গাজীপুর প্রতিনিধি  

১১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:০৫:১৬  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরের টঙ্গীতে একটি স্টিল মিলস কারখানার পাঁচ শ্রমিক আগুনে দগ্ধ হয়েছেন। শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে টঙ্গীর মিলগেট এলাকার ওই কারখানায় আগুনে তারা দগ্ধ হন। আহতদের চারজনই ৫০ ভাগের বেশি দগ্ধ হয়েছেন। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আহতদের মধ্যে ৯০ ভাগ দগ্ধ হয়েছেন মোজাম্মেল (২২), দুলাল (২৫) ও ৫০ ভাগ দগ্ধ হয়েছেন নিলয় (২৫) এবং রিপন (৩০)। অপর আহত আজাহার (২৬) প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ফিরে গেছেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (এসআই) বাচ্চু মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শুক্রবার ভোর ৬টার দিকে আহতদের হাসপাতালে আনা হয়েছে।

আহতদের স্বজন বাঁধন জানান, শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে ওই কারখানায় তারা দগ্ধ হন। লোহা পোড়ানোর সময় আগুনের সিসা, লাভা বা স্ফুলিঙ্গ সিটকে তাদের শরীরে লাগে। পরে সহকর্মীদের সহায়তায় তাদেরকে প্রথমে টঙ্গী আহসানউল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ব্যাপারে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের কর্তব্যরত দমকল কর্মী মিজানুর রহমান জানান, তাদেরকে এ ঘটনা কেউ অবগত করেনি বা ফোন করে সাহায্যও চাননি।

টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি এমদাদ হোসেন জানান, কারখানায় উৎপাদন অব্যাহত রয়েছে। বাহ্যিক দৃষ্টিতে কারখানার নিরাপত্তার জন্য শ্রমিকদের হেলমেট ও শারীরিক প্রতিরোধ ব্যবস্থা দেখা গেছে। কিন্তু সেগুলো নিরাপত্তার জন্য যথেষ্ট কিনা তা আমরা বলতে পারছি না। আহতদের পক্ষে কেউ অভিযোগ করলে আমরা ব্যবস্থা নেব। তবে অধিকতর নিরাপত্তা রয়েছে কিনা তা দেখার জন্য প্রাথমিকভাবে একটি সাধারণ ডায়েরি করে কারখানায় ফোর্স পাঠানো হয়েছে।

টঙ্গীতে কারখানার ৫ শ্রমিক দগ্ধ, ঢামেকে ভর্তি

 গাজীপুর প্রতিনিধি 
১১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরের টঙ্গীতে একটি স্টিল মিলস কারখানার পাঁচ শ্রমিক আগুনে দগ্ধ হয়েছেন। শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে টঙ্গীর মিলগেট এলাকার ওই কারখানায় আগুনে তারা দগ্ধ হন। আহতদের চারজনই ৫০ ভাগের বেশি দগ্ধ হয়েছেন। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আহতদের মধ্যে ৯০ ভাগ দগ্ধ হয়েছেন মোজাম্মেল (২২), দুলাল (২৫) ও ৫০ ভাগ দগ্ধ হয়েছেন নিলয় (২৫) এবং রিপন (৩০)। অপর আহত আজাহার (২৬) প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে ফিরে গেছেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (এসআই) বাচ্চু মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শুক্রবার ভোর ৬টার দিকে আহতদের হাসপাতালে আনা হয়েছে।

আহতদের স্বজন বাঁধন জানান, শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে ওই কারখানায় তারা দগ্ধ হন। লোহা পোড়ানোর সময় আগুনের সিসা, লাভা বা স্ফুলিঙ্গ সিটকে তাদের শরীরে লাগে। পরে সহকর্মীদের সহায়তায় তাদেরকে প্রথমে টঙ্গী আহসানউল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ব্যাপারে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের কর্তব্যরত দমকল কর্মী মিজানুর রহমান জানান, তাদেরকে এ ঘটনা কেউ অবগত করেনি বা ফোন করে সাহায্যও চাননি।

টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি এমদাদ হোসেন জানান, কারখানায় উৎপাদন অব্যাহত রয়েছে। বাহ্যিক দৃষ্টিতে কারখানার নিরাপত্তার জন্য শ্রমিকদের হেলমেট ও শারীরিক প্রতিরোধ ব্যবস্থা দেখা গেছে। কিন্তু সেগুলো নিরাপত্তার জন্য যথেষ্ট কিনা তা আমরা বলতে পারছি না। আহতদের পক্ষে কেউ অভিযোগ করলে আমরা ব্যবস্থা নেব। তবে অধিকতর নিরাপত্তা রয়েছে কিনা তা দেখার জন্য প্রাথমিকভাবে একটি সাধারণ ডায়েরি করে কারখানায় ফোর্স পাঠানো হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন