গোমতী বাঁধে সড়ক নির্মাণে অনিয়ম
jugantor
গোমতী বাঁধে সড়ক নির্মাণে অনিয়ম

  সৌরভ মাহমুদ হারুন, ব্রাহ্মণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৭:৫৩:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

সড়ক

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের উপর মনোহরপুর-অলুয়া সড়কটির নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নামমাত্র কাজ করায় সড়কটির স্থায়িত্ব নিয়ে স্থানীয় মানুষ ক্ষুব্ধ।

সরেজমিন ঘুরে স্থানীয় সূত্রে পাওয়া তথ্যে জানা যায়, জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বুড়িচং সীমান্ত সংলগ্ন গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের মালাপাড়া ইউনিয়নের মনোহরপুর-অলুয়া সড়কটি দিয়ে এ এলাকার হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করে। এ স্থানটি উপজেলা সদর থেকে বেশ কিছুটা দূরের পথ। সড়কটি অনেকটা কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের কাছাকাছি হওয়ায় নিত্যপ্রয়োজন বা ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট বা কুমিল্লা শহর বা বিভিন্ন গন্তব্যে পৌঁছতে অনেকটা সুবিধাজনক হওয়ায় মালাপাড়া ইউনিয়নসহ আশপাশের এলাকার লোকজন এই সড়ক পথেই যাতায়াত করে। সড়কটির বিভিন্ন স্থানে খানা-খন্দক সৃষ্টি হওয়ায় গত কিছুদিন আগে উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল থেকে সংস্কার কাজে দরপত্র আহবান করে।

সূত্র জানায়, প্রায় দেড় কিলোমিটার দৈর্ঘ্যর এ সড়কটি নির্মাণ কাজে ঠিকাদারি পায় মিজান নামের এক ঠিকাদারের প্রতিষ্ঠান। ৪৪ লাখ টাকা মূল্যমানের কাজটি সংস্কারের ছিল। সিরাজ নামের স্থানীয় এক গ্রামবাসী জানান, ঠিকাদারের লোকজন নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে সড়কটির সংস্কার কাজ করে চলছে। ভয়ে প্রতিবাদও করতে পারে না মানুষ। সড়কটির পুরাতন পিচ উঠিয়ে বিভিন্নস্থানের খানা-খন্দকের গর্তগুলোতে এ সময় নিম্নমানের খোয়া ব্যবহার করতে দেখা যায়। গতকাল সোমবার দুপুরে সড়কটির পিচ ঢালাইয়ের কাজ শুরু করে ঠিকাদার। এ সময় পুরাতন সড়কটির উপর নতুন ইট, খোয়া বা বালুর অস্তিত্ব চোখে পড়েনি।
বিষয়টি জানতে চাইলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মিজান ট্রেডার্সের মালিক মিজান বলেন, আমার লাইসেন্স দিয়ে কাজ হলেও এ কাজ করছে অন্য একজন। কিন্তু তিনি ওই ঠিকাদারের নাম প্রকাশে অস্বীকৃতি জানান।
এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী মনির হোসেন বলেন, ১৩৫০ মিটার দৈর্ঘ্যর কাজটিতে ৪০ মিলিমিটার কার্পেটিং করার কথা ছিল। আমার উপস্থিতিতে সোমবার দুপুরে সেটা করা হচ্ছে।

গোমতী বাঁধে সড়ক নির্মাণে অনিয়ম

 সৌরভ মাহমুদ হারুন, ব্রাহ্মণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সড়ক
১৩৫০ মিটার দৈর্ঘ্যর কাজটিতে ৪০ মিলিমিটার কার্পেটিং করার কথা ছিল।

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের উপর মনোহরপুর-অলুয়া সড়কটির নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নামমাত্র কাজ করায় সড়কটির স্থায়িত্ব নিয়ে স্থানীয় মানুষ ক্ষুব্ধ। 

সরেজমিন ঘুরে স্থানীয় সূত্রে পাওয়া তথ্যে জানা যায়, জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার বুড়িচং সীমান্ত সংলগ্ন গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাঁধের মালাপাড়া ইউনিয়নের মনোহরপুর-অলুয়া সড়কটি দিয়ে এ এলাকার হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করে। এ স্থানটি উপজেলা সদর থেকে বেশ কিছুটা দূরের পথ। সড়কটি অনেকটা কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের কাছাকাছি হওয়ায় নিত্যপ্রয়োজন বা ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট বা কুমিল্লা শহর বা বিভিন্ন গন্তব্যে পৌঁছতে অনেকটা সুবিধাজনক হওয়ায় মালাপাড়া ইউনিয়নসহ আশপাশের এলাকার লোকজন এই সড়ক পথেই যাতায়াত করে। সড়কটির বিভিন্ন স্থানে খানা-খন্দক সৃষ্টি হওয়ায় গত কিছুদিন আগে উপজেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল থেকে সংস্কার কাজে দরপত্র আহবান করে। 

সূত্র জানায়, প্রায় দেড় কিলোমিটার দৈর্ঘ্যর এ সড়কটি নির্মাণ কাজে ঠিকাদারি পায় মিজান নামের এক ঠিকাদারের প্রতিষ্ঠান। ৪৪ লাখ টাকা মূল্যমানের কাজটি সংস্কারের ছিল। সিরাজ নামের  স্থানীয় এক গ্রামবাসী জানান, ঠিকাদারের লোকজন নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে সড়কটির সংস্কার কাজ করে চলছে। ভয়ে প্রতিবাদও করতে পারে না মানুষ। সড়কটির পুরাতন পিচ উঠিয়ে বিভিন্নস্থানের খানা-খন্দকের গর্তগুলোতে এ সময় নিম্নমানের খোয়া ব্যবহার করতে দেখা যায়। গতকাল সোমবার দুপুরে সড়কটির পিচ ঢালাইয়ের কাজ শুরু করে ঠিকাদার। এ সময় পুরাতন সড়কটির উপর নতুন ইট, খোয়া বা বালুর অস্তিত্ব চোখে পড়েনি। 
বিষয়টি জানতে চাইলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মিজান ট্রেডার্সের মালিক মিজান বলেন, আমার লাইসেন্স দিয়ে কাজ হলেও এ কাজ করছে অন্য একজন। কিন্তু তিনি ওই ঠিকাদারের নাম প্রকাশে অস্বীকৃতি জানান।
এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী মনির হোসেন বলেন, ১৩৫০ মিটার দৈর্ঘ্যর কাজটিতে ৪০ মিলিমিটার কার্পেটিং করার কথা ছিল। আমার উপস্থিতিতে সোমবার দুপুরে সেটা করা হচ্ছে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন