নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ: ১১ জনের সাক্ষ্য নিল সিআইডি
jugantor
নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ: ১১ জনের সাক্ষ্য নিল সিআইডি

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:২০:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা তদন্তে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবদুল গফুরসহ ১১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছে সিআইডি পুলিশ। একই সঙ্গে দুর্ঘটনাকবলিত মসজিদটির ভেতর থেকে নতুন করে বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করে তারা।

মঙ্গলবার বিকালে সিআইডি পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এ কার্যক্রম পরিচালনা করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নারায়ণগঞ্জ সিআইডি পুলিশের পরিদর্শক বাবুল হোসেন জানান, তদন্তের ধারাবাহিক কাজের অংশ হিসেবে তারা মসজিদ পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। এ সময় মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবদুল গফুরসহ ১১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। তাদের মধ্যে স্থানীয় মুসল্লি এবং হতাহতদের স্বজনরাও রয়েছেন। সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মসজিদের ভেতরের বিভিন্ন স্থান পর্যবেক্ষণসহ নানা ধরনের গুরুত্বপূর্ণ আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাতে এশার নামাজ চলাকালে এ মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেলের শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটে ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আরও ৫ জনকে সেখানকার আইসিইউতে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ঘটনার একদিন পর ৬ সেপ্টেম্বর ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে একটি মামলা দায়ের করে। পরে মামলাটির তদন্তভার দেয়া হয় সিআইডি পুলিশকে।

নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ: ১১ জনের সাক্ষ্য নিল সিআইডি

 নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা তদন্তে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবদুল গফুরসহ ১১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছে সিআইডি পুলিশ। একই সঙ্গে দুর্ঘটনাকবলিত মসজিদটির ভেতর থেকে নতুন করে বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করে তারা।

মঙ্গলবার বিকালে সিআইডি পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এ কার্যক্রম পরিচালনা করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নারায়ণগঞ্জ সিআইডি পুলিশের পরিদর্শক বাবুল হোসেন জানান, তদন্তের ধারাবাহিক কাজের অংশ হিসেবে তারা মসজিদ পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। এ সময় মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আবদুল গফুরসহ ১১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। তাদের মধ্যে স্থানীয় মুসল্লি এবং হতাহতদের স্বজনরাও রয়েছেন। সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে মসজিদের ভেতরের বিভিন্ন স্থান পর্যবেক্ষণসহ নানা ধরনের গুরুত্বপূর্ণ আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাতে এশার নামাজ চলাকালে এ মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেলের শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটে ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আরও ৫ জনকে সেখানকার আইসিইউতে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ঘটনার একদিন পর ৬ সেপ্টেম্বর ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে একটি মামলা দায়ের করে। পরে মামলাটির তদন্তভার দেয়া হয় সিআইডি পুলিশকে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন