সমুদ্রগামী জেলেদের জীবন-সম্পদ রক্ষায় ১১ দফা দাবি
jugantor
সমুদ্রগামী জেলেদের জীবন-সম্পদ রক্ষায় ১১ দফা দাবি

  কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:৪৭:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

গভীর সমুদ্রগামী মাছধরা ট্রলারের জেলেদের জীবন ও সম্পদ রক্ষায় ১১ দফা বাস্তবায়নের দাবি জানিয়ে একটি মতবিনিময় সভা হয়েছে। বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের ব্যানারে কুয়াকাটা প্রেস ক্লাবে মঙ্গলবার সকালে এ মতবিনিময় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ডেমরা থানা শাখার সভাপতি হিমি পরিবহনের মালিক মো. জাকির হোসেন লিখিত ১১ দফা দাবিসমূহ সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন।

লিখিত ১১ দফা দাবির মধ্যে ছিল- গভীর সমুদ্রে অবস্থানের সময় জেলেদের দিক-নির্ণয়ের জন্য কুয়াকাটায় বাতিঘর নির্মাণ, প্রতিটি মাছধরা ট্রলারে জিপিএস প্রদান, মাছধরা ট্রলারে থাকা অদক্ষ মাঝি ও ফিটনেসবিহীন ট্রলারসমূহকে সাগরে যেতে না দেয়া এবং কর্মস্থলে মৃত্যুবরণকারী প্রত্যেক জেলে পরিবারকে শ্রম আইনের আওতায় এনে ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা নেয়া ইত্যাদি।

প্রেস ক্লাব সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লবের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কাজী সাঈদের সঞ্চালনায় কুয়াকাটা প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আনু বক্তব্য রাখেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের মহিপুর থানা শাখার সভাপতি ও মহিপুর থানা শ্রমিক লীগের সভাপতি আবুল কালাম ফরাজী।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন- দৈনিক খবরপত্রের কুদ্দুস মাহমুদ, বিজয় টিভি ও মানবজমিনের হোসাইন আমির, দেশ টুডের জাহিদুল ইসলাম বেলাল, সমকালের খান এ রাজ্জাক, আমাদের সময়ের সাইদুর রহমান সাইদ, আজকের সময়ের বার্তার এম জাকির হোসাইন প্রমুখ।

সমুদ্রগামী জেলেদের জীবন-সম্পদ রক্ষায় ১১ দফা দাবি

 কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৪৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গভীর সমুদ্রগামী মাছধরা ট্রলারের জেলেদের জীবন ও সম্পদ রক্ষায় ১১ দফা বাস্তবায়নের দাবি জানিয়ে একটি মতবিনিময় সভা হয়েছে। বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের ব্যানারে কুয়াকাটা প্রেস ক্লাবে মঙ্গলবার সকালে এ মতবিনিময় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ডেমরা থানা শাখার সভাপতি হিমি পরিবহনের মালিক মো. জাকির হোসেন লিখিত ১১ দফা দাবিসমূহ সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন।

লিখিত ১১ দফা দাবির মধ্যে ছিল- গভীর সমুদ্রে অবস্থানের সময় জেলেদের দিক-নির্ণয়ের জন্য কুয়াকাটায় বাতিঘর নির্মাণ, প্রতিটি মাছধরা ট্রলারে জিপিএস প্রদান, মাছধরা ট্রলারে থাকা অদক্ষ মাঝি ও ফিটনেসবিহীন ট্রলারসমূহকে সাগরে যেতে না দেয়া এবং কর্মস্থলে মৃত্যুবরণকারী প্রত্যেক জেলে পরিবারকে শ্রম আইনের আওতায় এনে ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা নেয়া ইত্যাদি।

প্রেস ক্লাব সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লবের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কাজী সাঈদের সঞ্চালনায় কুয়াকাটা প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আনু বক্তব্য রাখেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের মহিপুর থানা শাখার সভাপতি ও মহিপুর থানা শ্রমিক লীগের সভাপতি আবুল কালাম ফরাজী।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন- দৈনিক খবরপত্রের কুদ্দুস মাহমুদ, বিজয় টিভি ও মানবজমিনের হোসাইন আমির, দেশ টুডের জাহিদুল ইসলাম বেলাল, সমকালের খান এ রাজ্জাক, আমাদের সময়ের সাইদুর রহমান সাইদ, আজকের সময়ের বার্তার এম জাকির হোসাইন প্রমুখ।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন