কলমাকান্দায় ঢাবিশিক্ষার্থীর ওপর হামলা, হাসপাতালে ভর্তি

  নেত্রকোনা ও কলমাকান্দা প্রতিনিধি ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:০৬:২২ | অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনা

গরু ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে এক ঢাবি শিক্ষার্থী ও তার মাকে মারধর করে গুরুতর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই শিক্ষার্থী আহত হওয়ার পর ঢাবির নিরাপত্তা মঞ্চের মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিষয়টি দেয়ার পর- ঘটনাটির প্রতিবাদ করেছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক নেতা গোলাম রাব্বানী। তিনি এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনতে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন বলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিবৃতি দিয়েছেন।


পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার পোগলা ইউনিয়নের আতকাপাড়া গ্রামে প্রতিবেশীর ক্ষেতের ধান খেয়ে ফেলায় গরুটিকে মারধর করা হয়। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় ওই গ্রামের মৃত আবু সামার মেয়ে ঢাবির বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী কেয়া আফরোজ কাকলী (২২) ও তার মা হোসনে আরা, ছোট বোন নাসরিন আক্তারকে মারধর ও শারীরিকভাবে হেনস্থা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ ঘটনার পর আহত ওই শিক্ষার্থীকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে কলমাকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন।


আহত ঢাবির বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী কেয়া আফরোজ কাকলী জানান, বাড়ির পাশে ক্ষেতে গরুর ধান খাওয়া নিয়ে বুধবার দেড়টার দিকে প্রতিবেশী রাজু মিয়ার ছেলে আপেল মিয়া ও লালচান মিয়া অশ্লীল ভাষায় বকাবকি শুরু করে। কেন বকছে আমি কারণ জানতে চাই। এ সময় আমার ওপর হামলা করে শারীরিকভাবে নাজেহাল করে। সাথে থাকা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আমার শরীরে আঘাত করে, এ সময় আমার মাথা ফেটে যায়। হামলার সময় আমাকে উদ্ধার করতে এলে আমার মা হোসনে আরা, ছোট বোন নাসরিন আক্তারকেও মারধর ও শারীরিকভাবে হেনস্থা করে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।


ঘটনার পর থেকে প্রতিপক্ষ একই গ্রামের রাজু মিয়ার ছেলে আপেল মিয়া ও লালচান মিয়া পলাতক রয়েছে। মুঠোফোন বন্ধ থাকায় আপেল মিয়া ও লালচান মিয়ার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।


পোগলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, শুনেছি গরু ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে ঝগড়াবিবাদ হয়েছে। মেয়েদের ওপর হামলা করা উচিত হয়নি।
কলমাকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আল মামুন জানান, আহত শিক্ষার্থীর মাথায় গুরুতর আঘাত রয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে শারীরিক অবস্থা ভালো রয়েছে।


নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফখরুজ্জামান জুয়েল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, আহত শিক্ষার্থী চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা ভালো। ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। আসামিদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। দ্রুত তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত