নানার বাড়িতে যেতে না পারায় কিশোরের আত্মহত্যা
jugantor
নানার বাড়িতে যেতে না পারায় কিশোরের আত্মহত্যা

  মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৪৪:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

মা ও বোনের সঙ্গে নানার বাড়িতে যেতে না পারায় পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে মো. নাজমুল হোসেন (১২) নামের এক কিশোর ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে ঘটকের আন্দুয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহত নাজমুল হোসেন ওই গ্রামের নূর ইসলাম তালুকদারের ছেলে। সে উপজেলার মানসুরাবাদ মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে তার মা ও বোন তাকে পিতার বাড়িতে রেখে উপজেলা সদর সুবিদখালীতে নানার বাড়িতে বেড়াতে যায়। দুপুরে তার পিতা বাড়িসংলগ্ন পুকুরে গোসল শেষে ঘরে ফিরে সিলিং ফ্যানের লকের সঙ্গে নাজমুলকে ফাঁস দেয়া অবস্থায় ঝুলে থাকতে দেখেন। তার ডাক-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে নাজমুল হোসেনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মির্জাগঞ্জ থানার ওসি এমআর শওকত আনোয়ার ইসলাম জানান, মা ও বোনের সঙ্গে নানার বাড়িতে যেতে না পারায় ক্ষোভ ও অভিমানে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটতে পারে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

নানার বাড়িতে যেতে না পারায় কিশোরের আত্মহত্যা

 মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মা ও বোনের সঙ্গে নানার বাড়িতে যেতে না পারায় পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে মো. নাজমুল হোসেন (১২) নামের এক কিশোর ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার দুপুরে ঘটকের আন্দুয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহত নাজমুল হোসেন ওই গ্রামের নূর ইসলাম তালুকদারের ছেলে। সে উপজেলার মানসুরাবাদ মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে তার মা ও বোন তাকে পিতার বাড়িতে রেখে উপজেলা সদর সুবিদখালীতে নানার বাড়িতে বেড়াতে যায়। দুপুরে তার পিতা বাড়িসংলগ্ন পুকুরে গোসল শেষে ঘরে ফিরে সিলিং ফ্যানের লকের সঙ্গে নাজমুলকে ফাঁস দেয়া অবস্থায় ঝুলে থাকতে দেখেন। তার ডাক-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে নাজমুল হোসেনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মির্জাগঞ্জ থানার ওসি এমআর শওকত আনোয়ার ইসলাম জানান, মা ও বোনের সঙ্গে নানার বাড়িতে যেতে না পারায় ক্ষোভ ও অভিমানে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটতে পারে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন