মেয়েকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করে বখাটের হামলায় প্রাণ গেল মায়ের
jugantor
মেয়েকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করে বখাটের হামলায় প্রাণ গেল মায়ের

  ডিমলা প্রতিনিধি  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:২৯:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

মেয়ে গোসল করার সময় সজিব নামে এক বখাটে ঢিল মারে। এর প্রতিবাদ করার বখাটের পরিবার হামলা চালিয়ে হত্যা করে মা নুরজাহান বেগমকে (৪০)। নীলফামারীর ডিমলা হাসপাতালে ১৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার রাতে তিনি মারা যান।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ৫ সেপ্টেম্বর নীলফামারীর ডিমলা উপজেলা গয়াবাড়ী গ্রামের সুটিবাড়ী বাজার সংলগ্ন আমিনের স্কুল পড়ুয়া মেয়ে গোসল করছিল। এ সময় সেখানে প্রতিবেশী আব্দুল খালেকের ছেলে সজিব ঢিল মারে। স্কুল ছাত্রীটির মা এর প্রতিবাদ করলে আব্দুল খালেকের স্ত্রী খদেজা বেগমসহ পরিবারের লোকজন তার (নুরজাহান) উপর হামলা চালায়। তাকে এলাকার লোকজন হাসপাতালে ভর্তি করেন।

দীঘ ১৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার রাতে ডিমলা হাসপাতালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। নুরজাহানের ছেলে শাহ আলম বাদী হয়ে গত ১৬ সেপ্টেম্বর ডিমলা থানায় ১০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বখাটে সজিবকে গ্রেফতার করে জেলা কারাগারে পাঠিয়েছে। শনিবার সকালে নুরজাহানের লাশ জেলার মর্গে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে।

ডিমলা থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, মামলার এজাহার নামীয় আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

মেয়েকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করে বখাটের হামলায় প্রাণ গেল মায়ের

 ডিমলা প্রতিনিধি 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মেয়ে গোসল করার সময় সজিব নামে এক বখাটে ঢিল মারে। এর প্রতিবাদ করার বখাটের পরিবার হামলা চালিয়ে হত্যা করে মা নুরজাহান বেগমকে (৪০)। নীলফামারীর ডিমলা হাসপাতালে ১৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার রাতে তিনি মারা যান।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত ৫ সেপ্টেম্বর নীলফামারীর ডিমলা উপজেলা গয়াবাড়ী গ্রামের সুটিবাড়ী বাজার সংলগ্ন আমিনের স্কুল পড়ুয়া মেয়ে গোসল করছিল। এ সময় সেখানে প্রতিবেশী আব্দুল খালেকের ছেলে সজিব ঢিল মারে। স্কুল ছাত্রীটির মা এর প্রতিবাদ করলে আব্দুল খালেকের স্ত্রী খদেজা বেগমসহ পরিবারের লোকজন তার (নুরজাহান) উপর হামলা চালায়। তাকে এলাকার লোকজন হাসপাতালে ভর্তি করেন।

দীঘ ১৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার রাতে ডিমলা হাসপাতালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। নুরজাহানের ছেলে শাহ আলম বাদী হয়ে গত ১৬ সেপ্টেম্বর ডিমলা থানায় ১০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বখাটে সজিবকে গ্রেফতার করে জেলা কারাগারে পাঠিয়েছে। শনিবার সকালে নুরজাহানের লাশ জেলার মর্গে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে।

ডিমলা থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, মামলার এজাহার নামীয় আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন