পেঁয়াজের একটি ট্রাকও প্রবেশ করেনি বেনাপোল দিয়ে
jugantor
পেঁয়াজের একটি ট্রাকও প্রবেশ করেনি বেনাপোল দিয়ে

  বেনাপোল প্রতিনিধি  

২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:১১:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

বেনাপোল বন্দরের ওপারে ভারতের পেট্রাপোল বন্দর এলাকায় আটকে থাকা পেঁয়াজের কোনো ট্রাক বাংলাদেশে আজও প্রবেশ করেনি। কবেনাগাদ আসবে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ওপারের রফতানিকারকরা।

শুক্রবার রাতে ওপারে শুধু আটকে থাকা পেঁয়াজের ট্রাকগুলো বাংলাদেশে রফতানির অনুমতি দেয় ভারতীয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

১৫ সেপ্টেম্বর যেসব পেঁয়াজের চালান কাস্টমস রেজিস্টারে এন্ট্রি আছে শুধু সেসব পেঁয়াজের চালান বাংলাদেশে রফতানি হবে বলে ওপারের সিএন্ডএফ এজেন্টস স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান।

বেনাপোলের ওপারে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে আটকে থাকা ট্রাকের পেঁয়াজ ৪০ থেকে ৫০ পারসেন্ট পচে যাওয়ায় পেঁয়াজের ট্রাকগুলো বৃহস্পতিবার রাতে ফিরিয়ে নিয়ে গেছে রফতানিকারকরা। তারা লোকাল বাজারে ও বিভিন্ন আড়তে কম দামে বিক্রি করে দিয়েছে। ফলে তাদের মোটা অংকের লোকসান গুনতে হচ্ছে।

এদিকে রোববার বনগাঁও এলাকায় ১৫টি পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক ঘোজাডাংগা বন্দর থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে রফতানির জন্য।

ওপারের রফতানিকারক ভজন দাস জানিয়েছেন, পেঁয়াজের পূর্বের রফতানি মূল্য ২২০ ডলার থেকে বাড়িয়ে প্রতি টন ৭৫০ মার্কিন ডলারে নতুন করে এলসি দেয়া হলে তারা পেঁয়াজ রফতানি করতে পারবেন।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার আজিজুর রহমান জানান, বেনাপোল বন্দর দিয়ে সব ধরনের পণ্য আমদানি রফতানি চালু রয়েছে বর্তমানে। পেঁয়াজ আমদানি হলে দ্রুত খালাসের জন্য মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

পেঁয়াজের একটি ট্রাকও প্রবেশ করেনি বেনাপোল দিয়ে

 বেনাপোল প্রতিনিধি 
২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বেনাপোল বন্দরের ওপারে ভারতের পেট্রাপোল বন্দর এলাকায় আটকে থাকা পেঁয়াজের কোনো ট্রাক বাংলাদেশে আজও প্রবেশ করেনি। কবেনাগাদ আসবে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি ওপারের রফতানিকারকরা।

শুক্রবার রাতে ওপারে শুধু আটকে থাকা পেঁয়াজের ট্রাকগুলো বাংলাদেশে রফতানির অনুমতি দেয় ভারতীয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

১৫ সেপ্টেম্বর যেসব পেঁয়াজের চালান কাস্টমস রেজিস্টারে এন্ট্রি আছে শুধু সেসব পেঁয়াজের চালান বাংলাদেশে রফতানি হবে বলে ওপারের সিএন্ডএফ এজেন্টস স্টাফ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান।

বেনাপোলের ওপারে ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে আটকে থাকা ট্রাকের পেঁয়াজ ৪০ থেকে ৫০ পারসেন্ট পচে যাওয়ায় পেঁয়াজের ট্রাকগুলো বৃহস্পতিবার রাতে ফিরিয়ে নিয়ে গেছে রফতানিকারকরা। তারা লোকাল বাজারে ও বিভিন্ন আড়তে কম দামে বিক্রি করে দিয়েছে। ফলে তাদের মোটা অংকের লোকসান গুনতে হচ্ছে। 

এদিকে রোববার বনগাঁও এলাকায় ১৫টি পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক ঘোজাডাংগা বন্দর থেকে ফিরিয়ে আনা হয়েছে পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে রফতানির জন্য।

ওপারের রফতানিকারক ভজন দাস জানিয়েছেন, পেঁয়াজের পূর্বের রফতানি মূল্য ২২০ ডলার থেকে বাড়িয়ে প্রতি টন ৭৫০ মার্কিন ডলারে নতুন করে এলসি দেয়া হলে তারা পেঁয়াজ রফতানি করতে পারবেন।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার আজিজুর রহমান জানান, বেনাপোল বন্দর দিয়ে সব ধরনের পণ্য আমদানি রফতানি চালু রয়েছে বর্তমানে। পেঁয়াজ আমদানি হলে দ্রুত খালাসের জন্য মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : পেঁয়াজের বাজার আবারও অস্থির

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন