যমুনাপাড়ের দুই বৃদ্ধকে অনশন ভাঙালেন পাউবো কর্মকর্তারা
jugantor
যমুনাপাড়ের দুই বৃদ্ধকে অনশন ভাঙালেন পাউবো কর্মকর্তারা

  চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:২৬:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর থানা সদর থেকে দক্ষিণাঞ্চল যমুনার ভাঙন থেকে রক্ষায় দ্রুত বাঁধ নির্মাণের দাবিতে নদীপাড়ে অনশনরত বৃদ্ধ রহম আলী মোল্লা ও ইয়াসিন প্রামাণিককে জুস পান করিয়ে অনশন ভঙ্গ করান জেলার পাউবো কর্মকর্তারা।

সোমবার দুপুরে স্থানীয়দের নিয়ে দুই বৃদ্ধকে ফলের জুস পান করান সিরাজগঞ্জ পাউবোর উপসহকারী প্রকৌশলী মাসুদুল হক ও মো. রফিকুল ইসলাম।

এ সময় তারা এনায়েতপুর থানা সদরের ব্রাহ্মণগ্রাম থেকে আড়কান্দি, ঘাটাবাড়ি, পাকুরতলা ও পাঁচিল পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৬ কিলোমিটার এলাকা নদীভাঙনের কবল থেকে রক্ষায় একনেকে অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকা প্রায় সাড়ে ৬শ’ কোটি টাকার স্থায়ী তীর সংরক্ষণ কাজ অল্প দিনের মধ্যে পাস হবে বলে আশ্বাস দেন।

শনিবার দুপুর থেকে বৃদ্ধ রহম আলী মোল্লা ও ইয়াসিন প্রামাণিক ঘাটাবাড়ি এলাকায় যমুনার পশ্চিম তীরে অনশন শুরু করেন। এ নিয়ে যুগান্তর অনলাইনে সচিত্র সংবাদ প্রকাশ হলে জেলাজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। বিষয়টি পাউবো কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ হয়।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ পাউবোর উপবিভাগীয় প্রকৌশলী নাসির উদ্দিন জানান, এ প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়ে কাজ করতে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে আছি। আশা করছি দ্রুতই প্রকল্পটি অনুমোদন হলে কাজ শুরু হবে। তারপরও যুগান্তরে প্রকাশিত দুই বৃদ্ধের অনশনের খবরে আমরা ব্যথিত। তবে জেলার পাউবো কর্মকর্তাদের দিয়ে মুরব্বিদের অনশন ভঙ্গ করানো হয়েছে। স্বজনদের মাধ্যমে তাদের বাড়িতে পৌঁছানো হয়েছে।

যমুনাপাড়ের দুই বৃদ্ধকে অনশন ভাঙালেন পাউবো কর্মকর্তারা

 চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর থানা সদর থেকে দক্ষিণাঞ্চল যমুনার ভাঙন থেকে রক্ষায় দ্রুত বাঁধ নির্মাণের দাবিতে নদীপাড়ে অনশনরত বৃদ্ধ রহম আলী মোল্লা ও ইয়াসিন প্রামাণিককে জুস পান করিয়ে অনশন ভঙ্গ করান জেলার পাউবো কর্মকর্তারা।

সোমবার দুপুরে স্থানীয়দের নিয়ে দুই বৃদ্ধকে ফলের জুস পান করান সিরাজগঞ্জ পাউবোর উপসহকারী প্রকৌশলী মাসুদুল হক ও মো. রফিকুল ইসলাম।

এ সময় তারা এনায়েতপুর থানা সদরের ব্রাহ্মণগ্রাম থেকে আড়কান্দি, ঘাটাবাড়ি, পাকুরতলা ও পাঁচিল পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৬ কিলোমিটার এলাকা নদীভাঙনের কবল থেকে রক্ষায় একনেকে অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকা প্রায় সাড়ে ৬শ’ কোটি টাকার স্থায়ী তীর সংরক্ষণ কাজ অল্প দিনের মধ্যে পাস হবে বলে আশ্বাস দেন।

শনিবার দুপুর থেকে বৃদ্ধ রহম আলী মোল্লা ও ইয়াসিন প্রামাণিক ঘাটাবাড়ি এলাকায় যমুনার পশ্চিম তীরে অনশন শুরু করেন। এ নিয়ে যুগান্তর অনলাইনে সচিত্র সংবাদ প্রকাশ হলে জেলাজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। বিষয়টি পাউবো কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ হয়।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ পাউবোর উপবিভাগীয় প্রকৌশলী নাসির উদ্দিন জানান, এ প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়ে কাজ করতে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে আছি। আশা করছি দ্রুতই প্রকল্পটি অনুমোদন হলে কাজ শুরু হবে। তারপরও যুগান্তরে প্রকাশিত দুই বৃদ্ধের অনশনের খবরে আমরা ব্যথিত। তবে জেলার পাউবো কর্মকর্তাদের দিয়ে মুরব্বিদের অনশন ভঙ্গ করানো হয়েছে। স্বজনদের মাধ্যমে তাদের বাড়িতে পৌঁছানো হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন