যুবককে ট্রেনের নিচে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিল দুই বন্ধু!
jugantor
যুবককে ট্রেনের নিচে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিল দুই বন্ধু!

  বগুড়া ব্যুরো  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:৫৫:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে আনিসুর রহমান বাবু (৪৫) নামে এক কারখানা শ্রমিক মারা গেছেন। সোমবার দুপুরে সদরের কৈচর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাকে ট্রেনের নিচে ধাক্কা দিয়ে হত্যার অভিযোগে জনগণ দুই বন্ধুকে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন। সন্ধ্যায় এ খবর পাঠানোর সময় এ ব্যাপারে তদন্ত চলছিল।

আটক দুই বন্ধু হল- বগুড়ার কাহালু উপজেলার পিলকুঞ্জ গ্রামের আবদুর রহমানের ছেলে গোলাম রব্বানী (৪০) ও তার বন্ধু একই গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে লুৎফর রহমান (৩৭)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আনিসুর রহমান বাবু বগুড়া শহরের শিববাটি এলাকার ফজলুর রহমানের ছেলে। তিনি বগুড়া সদরের শহরদীঘি এলাকায় হাজির মিলে লোহার আলনা তৈরির কাজ করতেন। পার্শ্ববর্তী কাহালুর পিলকুঞ্জ গ্রামের রব্বানী ও লুৎফরের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব গড়ে উঠে। অবসরে তিন বন্ধু বিভিন্ন স্থানে আড্ডা দিতেন। সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে বাবু তার দুই বন্ধুর সাথে কৈচড় এলাকায় রেললাইনের পাশে বসে গল্প করছিলেন। এ সময় সান্তাহার ছেড়ে আসা দিনাজপুরগামী দোলনচাঁপা এক্সপ্রেস ট্রেন ওই এলাকা অতিক্রম করছিল।

প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, গোলাম রব্বানী ও লুৎফর রহমান মিলে বাবুকে ট্রেনের নিচে ধাক্কা দিয়ে দৌড় দেন। এতে ট্রেনে কাটা পড়ে বাবুর মৃত্যু হয়। জনগণ দৌড়ে পালাতে দেখে তার বন্ধু রব্বানী ও লুৎফরকে আটক করে রাখেন। পরে খবর পেয়ে সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রেজাউল করিম রেজা ও রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই আকতারুন্নাহার লিপি ঘটনাস্থলে গেলে তাদের হাতে সোপর্দ করেন। রেল পুলিশ নিহত বাবুর লাশ উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

বগুড়া রেলওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই আকতারুন্নাহার লিপি জানান, প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দুজনকে আটক করা হয়েছে। খবর পেয়ে নিহত বাবুর ভাই আবদুল হালিম আসেন। তিনি তার ভাইকে ট্রেনের নিচে ধাক্কা দিয়ে হত্যার অভিযোগ করেন। তিনি (হালিম) আটক দুজনের বিরুদ্ধে গাইবান্ধার বোনারপাড়ায় রেলওয়ে থানায় হত্যা মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন। মামলা হলে তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুবককে ট্রেনের নিচে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিল দুই বন্ধু!

 বগুড়া ব্যুরো 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে আনিসুর রহমান বাবু (৪৫) নামে এক কারখানা শ্রমিক মারা গেছেন। সোমবার দুপুরে সদরের কৈচর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তাকে ট্রেনের নিচে ধাক্কা দিয়ে হত্যার অভিযোগে জনগণ দুই বন্ধুকে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন। সন্ধ্যায় এ খবর পাঠানোর সময় এ ব্যাপারে তদন্ত চলছিল।

আটক দুই বন্ধু হল- বগুড়ার কাহালু উপজেলার পিলকুঞ্জ গ্রামের আবদুর রহমানের ছেলে গোলাম রব্বানী (৪০) ও তার বন্ধু একই গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে লুৎফর রহমান (৩৭)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আনিসুর রহমান বাবু বগুড়া শহরের শিববাটি এলাকার ফজলুর রহমানের ছেলে। তিনি বগুড়া সদরের শহরদীঘি এলাকায় হাজির মিলে লোহার আলনা তৈরির কাজ করতেন। পার্শ্ববর্তী কাহালুর পিলকুঞ্জ গ্রামের রব্বানী ও লুৎফরের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব গড়ে উঠে। অবসরে তিন বন্ধু বিভিন্ন স্থানে আড্ডা দিতেন। সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে বাবু তার দুই বন্ধুর সাথে কৈচড় এলাকায় রেললাইনের পাশে বসে গল্প করছিলেন। এ সময় সান্তাহার ছেড়ে আসা দিনাজপুরগামী দোলনচাঁপা এক্সপ্রেস ট্রেন ওই এলাকা অতিক্রম করছিল।

প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, গোলাম রব্বানী ও লুৎফর রহমান মিলে বাবুকে ট্রেনের নিচে ধাক্কা দিয়ে দৌড় দেন। এতে ট্রেনে কাটা পড়ে বাবুর মৃত্যু হয়। জনগণ দৌড়ে পালাতে দেখে তার বন্ধু রব্বানী ও লুৎফরকে আটক করে রাখেন। পরে খবর পেয়ে সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রেজাউল করিম রেজা ও রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই  আকতারুন্নাহার লিপি ঘটনাস্থলে গেলে তাদের হাতে সোপর্দ করেন। রেল পুলিশ নিহত বাবুর লাশ উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

বগুড়া রেলওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই  আকতারুন্নাহার লিপি জানান, প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দুজনকে আটক করা হয়েছে। খবর পেয়ে নিহত বাবুর ভাই আবদুল হালিম আসেন। তিনি তার ভাইকে ট্রেনের নিচে ধাক্কা দিয়ে হত্যার অভিযোগ করেন। তিনি (হালিম) আটক দুজনের বিরুদ্ধে গাইবান্ধার বোনারপাড়ায় রেলওয়ে থানায় হত্যা মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন। মামলা হলে তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন