মসজিদে বিস্ফোরণ: কিশোর সিফাতও না ফেরার দেশে
jugantor
মসজিদে বিস্ফোরণ: কিশোর সিফাতও না ফেরার দেশে

  ঢামেক প্রতিনিধি  

২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০৭:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় তল্লা এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদে গ্যাসের লিকেজ থেকে বিস্ফোরণের ঘটনায় সিফাত (১৮) নামের আরও এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক ডা. পার্থ শঙ্কর পাল যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিস্ফোরণের ঘটনায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিন ও শিশুসহ মোট ৩৪ জনের মৃত্যু হলো। এছাড়া চিকিৎসাধীন আরও দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

জানা গেছে, সিফাত স্থানীয় একটি স্কুল থেকে এসএসসি পাস করে কলেজে ভর্তির চেষ্টা করছিল। তার শরীরের ২২ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে।

তার বাবা মো. স্বপন শেখ ডেকোরেটরের কাজ করেন। তিন ভাইয়ের মধ্যে সিফাত দ্বিতীয়। নারায়ণগঞ্জের তল্লায় পরিবারের সঙ্গে থাকত সে।

প্রসঙ্গত, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৮টার দিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে অর্ধশতাধিক মুসল্লি দগ্ধ হন।

দগ্ধ ব্যক্তিদের মধ্যে ৩৭ জনকে গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাদের মধ্যে ৩৪ জনের মৃত্যু হলো। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন একজন।

মসজিদে বিস্ফোরণ: কিশোর সিফাতও না ফেরার দেশে

 ঢামেক প্রতিনিধি 
২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় তল্লা এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদে গ্যাসের লিকেজ থেকে বিস্ফোরণের ঘটনায় সিফাত (১৮) নামের আরও এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক ডা. পার্থ শঙ্কর পাল যুগান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিস্ফোরণের ঘটনায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিন ও শিশুসহ মোট ৩৪ জনের মৃত্যু হলো। এছাড়া চিকিৎসাধীন আরও দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

জানা গেছে, সিফাত স্থানীয় একটি স্কুল থেকে এসএসসি পাস করে কলেজে ভর্তির চেষ্টা করছিল। তার শরীরের ২২ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। 

তার বাবা মো. স্বপন শেখ ডেকোরেটরের কাজ করেন। তিন ভাইয়ের মধ্যে সিফাত দ্বিতীয়। নারায়ণগঞ্জের তল্লায় পরিবারের সঙ্গে থাকত সে।

প্রসঙ্গত, গত ৪ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৮টার দিকে নারায়ণগঞ্জ শহরের পশ্চিম তল্লা এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে অর্ধশতাধিক মুসল্লি দগ্ধ হন।

দগ্ধ ব্যক্তিদের মধ্যে ৩৭ জনকে গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাদের মধ্যে ৩৪ জনের মৃত্যু হলো। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন একজন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন