আশুলিয়ায় মুক্তিপণ না পেয়ে কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা
jugantor
আশুলিয়ায় মুক্তিপণ না পেয়ে কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা

  সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৫৪:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

আশুলিয়ায় মুক্তিপণ না পেয়ে কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা

সাভারের আশুলিয়ায় মুক্তিপণ না পেয়ে সবুজ মিয়া নামে এক কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় তার সঙ্গে থাকা জাহিদুল ইসলাম নামে অপর এক কিশোরকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে আশুলিয়ার মোজারমেইল এলাকার মহাসড়কের পাশের একটি ডোবা থেকে নিহতের মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত সবুজ মিয়া লালমনিরহাট জেলার সদর থানার কাজী কলোনি গ্রামের মিছির আলীর ছেলে। সে স্থানীয় একটি মাদ্রাসার ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। আহত অপর কিশোর জাহিদুল ইসলামের বাড়িও একই গ্রামে।

থানা পুলিশ জানায়, সবুজ ও জাহিদুল গ্রামের বাড়ি লালমনিরহাট থেকে রাগ করে সোমবার রাতে আশুলিয়ায় সবুজের বোনের বাড়ির উদ্দেশে আসে। কিন্তু বাসা খুঁজে না পেয়ে তারা আশুলিয়ার মোজারমেইল বাসস্ট্যান্ডে অপেক্ষা করতে থাকে।

পরে রাতে কয়েকজন যুবক তাদের থাকার ব্যবস্থা করে দেয়ার কথা বলে নির্জন স্থানে নিয়ে বেধড়ক মারধর করে এবং পরিবারের সদস্যদের কাছে ফোন করে ২০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।

এদিকে দুর্বৃত্তদের মারধরে সবুজ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে মঙ্গলবার দুপুরে তাদের দুজনকে একটি ভ্যানে করে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে পাঠিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু রাস্তায় সবুজ মারা গেলে ওই ভ্যানচালক গাড়িসহ তাদের রেখে পালিয়ে যায়।

আশুলিয়া থানার এসআই সামিউল ইসলাম বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ছাড়া নিহত ও আহতের পরিবারকে খবর দেয়া হয়েছে। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে হত্যা মামলা করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

আশুলিয়ায় মুক্তিপণ না পেয়ে কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা

 সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৫৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আশুলিয়ায় মুক্তিপণ না পেয়ে কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা
ফাইল ছবি

সাভারের আশুলিয়ায় মুক্তিপণ না পেয়ে সবুজ মিয়া নামে এক কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় তার সঙ্গে থাকা জাহিদুল ইসলাম নামে অপর এক কিশোরকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে আশুলিয়ার মোজারমেইল এলাকার মহাসড়কের পাশের একটি ডোবা থেকে নিহতের মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।
 
নিহত সবুজ মিয়া লালমনিরহাট জেলার সদর থানার কাজী কলোনি গ্রামের মিছির আলীর ছেলে। সে স্থানীয় একটি মাদ্রাসার ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। আহত অপর কিশোর জাহিদুল ইসলামের বাড়িও একই গ্রামে।

থানা পুলিশ জানায়, সবুজ ও জাহিদুল গ্রামের বাড়ি লালমনিরহাট থেকে রাগ করে সোমবার রাতে আশুলিয়ায় সবুজের বোনের বাড়ির উদ্দেশে আসে। কিন্তু বাসা খুঁজে না পেয়ে তারা আশুলিয়ার মোজারমেইল বাসস্ট্যান্ডে অপেক্ষা করতে থাকে।

পরে রাতে কয়েকজন যুবক তাদের থাকার ব্যবস্থা করে দেয়ার কথা বলে নির্জন স্থানে নিয়ে বেধড়ক মারধর করে এবং পরিবারের সদস্যদের কাছে ফোন করে ২০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।

এদিকে দুর্বৃত্তদের মারধরে সবুজ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে মঙ্গলবার দুপুরে তাদের দুজনকে একটি ভ্যানে করে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে পাঠিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু রাস্তায় সবুজ মারা গেলে ওই ভ্যানচালক গাড়িসহ তাদের রেখে পালিয়ে যায়।

আশুলিয়া থানার এসআই সামিউল ইসলাম বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ছাড়া নিহত ও আহতের পরিবারকে খবর দেয়া হয়েছে। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে হত্যা মামলা করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন