অপহৃত ছাত্রী উদ্ধারে গিয়ে হামলার শিকার ৩ পুলিশ সদস্য
jugantor
অপহৃত ছাত্রী উদ্ধারে গিয়ে হামলার শিকার ৩ পুলিশ সদস্য

  গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি  

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:১৮:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বেদগর্ভ গ্রাম থেকে অপহৃত এক স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে নিয়ে আসার সময় অপহরণকারী ও তার আত্মীয়স্বজনদের হামলায় এক এসআইসহ পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে।

আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন- গৌরনদী মডেল থানার এসআই আরিফুল ইসলাম, নারী কনস্টেবল হাফিজা আক্তার ও ভোলার লালমোহন থানার কনস্টেবল মিরাজ হোসেন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

সরকারি কাজে বাধা ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় লালমোহন থানার এসআই মোশারফ হোসেন বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখসহ ১১ জনকে আসামি করে গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে।

লালমোহন থানার এসআই ও অপহরণ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন জানান, লালমোহন থেকে নবম শ্রেণির ছাত্রীকে গত ৯ সেপ্টেম্বর অপহরণ করে নিয়ে আসে। এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে ওই দিনই লালমোহন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তিনি (এসআই মোশারফ হোসেন) সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে মঙ্গলবার বিকালে গৌরনদী মডেল থানা পুলিশের সহযোগিতায় অপহৃত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধারের জন্য গৌরনদী উপজেলার বেদগর্ভ গ্রামে অভিযান চালান।

তিনি জানান, অপহৃতা ছাত্রীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসার সময় অপহরণকারী ইমন মোল্লার নেতৃত্বে ১০-১২ জন পুলিশের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে এক এসআইসহ পুলিশের তিন সদস্যকে আহত করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই অহিদ মিয়া জানান, মামলার এজাহারভুক্ত আসামি ইমন মোল্লা, সিরাজ মোল্লা, এনায়েত হোসেন মোল্লাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অপহৃত ছাত্রী উদ্ধারে গিয়ে হামলার শিকার ৩ পুলিশ সদস্য

 গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বেদগর্ভ গ্রাম থেকে অপহৃত এক স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে নিয়ে আসার সময় অপহরণকারী ও তার আত্মীয়স্বজনদের হামলায় এক এসআইসহ পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে।

আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন- গৌরনদী মডেল থানার এসআই আরিফুল ইসলাম, নারী কনস্টেবল হাফিজা আক্তার ও ভোলার লালমোহন থানার কনস্টেবল মিরাজ হোসেন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

সরকারি কাজে বাধা ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় লালমোহন থানার এসআই মোশারফ হোসেন বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখসহ ১১ জনকে আসামি করে গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে।

লালমোহন থানার এসআই ও অপহরণ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন জানান, লালমোহন থেকে নবম শ্রেণির ছাত্রীকে গত ৯ সেপ্টেম্বর অপহরণ করে নিয়ে আসে। এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে ওই দিনই লালমোহন থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তিনি (এসআই মোশারফ হোসেন) সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে মঙ্গলবার বিকালে গৌরনদী মডেল থানা পুলিশের সহযোগিতায় অপহৃত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধারের জন্য গৌরনদী উপজেলার বেদগর্ভ গ্রামে অভিযান চালান।

তিনি জানান, অপহৃতা ছাত্রীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসার সময় অপহরণকারী ইমন মোল্লার নেতৃত্বে ১০-১২ জন পুলিশের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে এক এসআইসহ পুলিশের তিন সদস্যকে আহত করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই অহিদ মিয়া জানান, মামলার এজাহারভুক্ত আসামি ইমন মোল্লা, সিরাজ মোল্লা, এনায়েত হোসেন মোল্লাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন