হাতিয়ায় সঙ্গে সারা দেশের নৌ যোগাযোগ বন্ধ
jugantor
হাতিয়ায় সঙ্গে সারা দেশের নৌ যোগাযোগ বন্ধ

  অনলাইন ডেস্ক  

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:২০:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালী

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপের কারণে মেঘনা নদী উত্তাল হওয়ায় গত চারদিন ধরে নোয়াখালীর হাতিয়া গোটা দেশ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার সঙ্গে ঢাকার লঞ্চ চলাচল, হাতিয়া-চট্টগ্রাম স্টিমার চলাচল ও হাতিয়া-বয়ারচর চেয়ারম্যান ঘাট, সি ট্রাক চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন অপেক্ষমান শত শত যাত্রী। দেশের অন্য কোথাও থেকে লোকজন হাতিয়ায় আসতে পারছেন না এবং হাতিয়া থেকে কেউ দ্বীপের বাইরেও যেতে পারছেন না। এতে করে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির দামও বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে তিন নম্বর সতর্ক সংকেতের সঙ্গে সাগর ও নদী উত্তাল থাকায় প্রবল জোয়ারে হাতিয়া উপজেলার হরণী, চানন্দী, নলচিরা, সুখচর, চরঈশ্বর ইউনিয়নের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এসব এলাকার ক্ষেতের ফসল নষ্ট হয়েছে ও পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। প্লাবিত এলাকার লোকজনের ঘরে চুলোয় আগুন জ্বালানোর ব্যবস্থা পর্যন্ত নেই। ফলে মানবেতর জীবন যাপন করছেন এলাকার লোকজন।

হাতিয়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম বলেন, যতদিন হাতিয়ার চারিদিকে বেড়িবাঁধ তৈরি না হবে ততদিন হাতিয়ার এ দুঃখ যাবে না।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বিআইডব্লিউর কর্মকর্তা নয়ন শীল বলেন, হাতিয়ার সঙ্গে সকল নৌ যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে নৌ চলাচল শুরু হবে।

হাতিয়ায় সঙ্গে সারা দেশের নৌ যোগাযোগ বন্ধ

 অনলাইন ডেস্ক 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নোয়াখালী
নোয়াখালী

বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপের কারণে মেঘনা নদী উত্তাল হওয়ায় গত চারদিন ধরে নোয়াখালীর হাতিয়া গোটা দেশ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার সঙ্গে ঢাকার লঞ্চ চলাচল, হাতিয়া-চট্টগ্রাম স্টিমার চলাচল ও হাতিয়া-বয়ারচর চেয়ারম্যান ঘাট, সি ট্রাক চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন অপেক্ষমান শত শত যাত্রী। দেশের অন্য কোথাও থেকে লোকজন হাতিয়ায় আসতে পারছেন না এবং হাতিয়া থেকে কেউ দ্বীপের বাইরেও যেতে পারছেন না। এতে করে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির দামও বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে তিন নম্বর সতর্ক সংকেতের সঙ্গে সাগর ও নদী উত্তাল থাকায় প্রবল জোয়ারে হাতিয়া উপজেলার হরণী, চানন্দী, নলচিরা, সুখচর, চরঈশ্বর ইউনিয়নের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এসব এলাকার ক্ষেতের ফসল নষ্ট হয়েছে ও পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। প্লাবিত এলাকার লোকজনের ঘরে চুলোয় আগুন জ্বালানোর ব্যবস্থা পর্যন্ত নেই। ফলে মানবেতর জীবন যাপন করছেন এলাকার লোকজন।

হাতিয়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেজাউল করিম বলেন, যতদিন হাতিয়ার চারিদিকে বেড়িবাঁধ তৈরি না হবে ততদিন হাতিয়ার এ দুঃখ যাবে না।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বিআইডব্লিউর কর্মকর্তা নয়ন শীল বলেন, হাতিয়ার সঙ্গে সকল নৌ যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে নৌ চলাচল শুরু হবে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন