সিঁদ কেটে ঘর থেকে তুলে নিয়ে শিশুকে ধর্ষণ
jugantor
সিঁদ কেটে ঘর থেকে তুলে নিয়ে শিশুকে ধর্ষণ

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো  

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৩৪:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে সিঁদ কেটে বসতঘরে ঢুকে ছয় বছরের শিশুকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত আলী হোসেনকে (৫৫) বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলার শোলাকিয়া গাছবাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গত ৭ সেপ্টেম্বর রাতে করিমগঞ্জ উপজেলার কাদিরজঙ্গল ইউনিয়নের সাতারপুর গ্রামের এক দরিদ্র রিকশাচালকের ছয় বছরের শিশুকন্যা বাবা-মায়ের সঙ্গে ঘুমিয়ে ছিল। এ সময় ঘরের সিঁদ কেটে ওই শিশুকে তুলে নিয়ে যায় একই গ্রামের মৃত আব্বাস আলীর ছেলে আলী হোসেন।

ধর্ষণের পর শিশুটিকে বাড়ির পাশে একটি ধানক্ষেতে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় আলী হোসেন। সকালে মুমূর্ষু অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে ওই দিনই আলী হোসেনকে আসামি করে করিমগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা করিমগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নাহিদ হাসান সুমন জানান, শিশুটিকে ধর্ষণের পর পালিয়ে ঢাকায় চলে যান আলী হোসেন। সেখান থেকে কিশোরগঞ্জ আসেন। গোপনে খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর দুপুরে অভিযুক্ত আলী হোসেনকে কিশোরগঞ্জ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নেয়া হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর রিমান্ড আবেদনসহ তাকে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ। তিনি জানান, গ্রেফতার আলী হোসেনের বিরুদ্ধে এলাকায় আরও একাধিক ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে।

সিঁদ কেটে ঘর থেকে তুলে নিয়ে শিশুকে ধর্ষণ

 কিশোরগঞ্জ ব্যুরো 
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে সিঁদ কেটে বসতঘরে ঢুকে ছয় বছরের শিশুকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত আলী হোসেনকে (৫৫) বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলার শোলাকিয়া গাছবাজার এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গত ৭ সেপ্টেম্বর রাতে করিমগঞ্জ উপজেলার কাদিরজঙ্গল ইউনিয়নের সাতারপুর গ্রামের এক দরিদ্র রিকশাচালকের ছয় বছরের শিশুকন্যা বাবা-মায়ের সঙ্গে ঘুমিয়ে ছিল।  এ সময় ঘরের সিঁদ কেটে ওই শিশুকে তুলে নিয়ে যায় একই গ্রামের মৃত আব্বাস আলীর ছেলে আলী হোসেন।

ধর্ষণের পর শিশুটিকে বাড়ির পাশে একটি ধানক্ষেতে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় আলী হোসেন। সকালে মুমূর্ষু অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে ওই দিনই আলী হোসেনকে আসামি করে করিমগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা করিমগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নাহিদ হাসান সুমন জানান, শিশুটিকে ধর্ষণের পর পালিয়ে ঢাকায় চলে যান আলী হোসেন। সেখান থেকে কিশোরগঞ্জ আসেন। গোপনে খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর দুপুরে অভিযুক্ত আলী হোসেনকে কিশোরগঞ্জ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নেয়া হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর রিমান্ড আবেদনসহ তাকে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ। তিনি জানান, গ্রেফতার আলী হোসেনের বিরুদ্ধে এলাকায় আরও একাধিক ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন