ঝিনাইদহে কলেজছাত্রের মাটিচাপা লাশ উদ্ধার, গ্রেফতার ৩
jugantor
ঝিনাইদহে কলেজছাত্রের মাটিচাপা লাশ উদ্ধার, গ্রেফতার ৩

  ঝিনাইদহ প্রতিনিধি  

২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪:২৩:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ঝিনাইদহে কলেজছাত্রের মাটিচাপা লাশ উদ্ধার, গ্রেফতার ৩

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় নিখোঁজের চার দিন পর কলেজছাত্র সুজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে পৌরসভার হাজামপাড়া গ্রামের ধানক্ষেতের স্যালোমেশিনের ঘর থেকে মাটিচাপা অবস্থায় মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত সুজন শৈলকুপা পৌরসভা এলাকার আউশিয়া গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী জিল্লুর রহমানের ছেলে। তিনি শৈলকুপা ডিগ্রি কলেজের ছাত্র ছিলেন।

জানা যায়, গত ১৯ সেপ্টেম্বর বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে পৌরসভার হাজামপাড়া গ্রামের ধানক্ষেতের স্যালোমেশিনের ঘর থেকে মাটিচাপা অবস্থায় ওই কলেজছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

শৈলকুপা থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহতের দুই বন্ধু হাজামপাড়া গ্রামের সাকিব ও নাজমুলকে আটক করা হয়েছে। এর পর বৃহস্পতিবার অপর বন্ধু হৃদয়কে আটক করার পর লাশের সন্ধান মিলে।

রাত ১১টার দিকে সুজনের মরদেহ হাজামপাড়া গ্রামের ধানক্ষেতের একটি স্যালোমেশিনের ঘরে মাটিচাপা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনার সঙ্গে নিহতের চার সহপাঠী জড়িত এবং তারা সবাই মাদকাশক্ত। হত্যার আগে সবাই গাঁজা সেবন করেছিল।

এ ঘটনার প্রধান আসামি সাকিবের ভাই রাকিবকে ধরার জন্য অভিযান চলছে।

শৈলকুপা থানার ওসি যুগান্তরকে বলেন, এ হত্যার পেছনে ভিন্ন কোনো কারণ থাকতে পারে। তবে কী সে কারণ তা জানার চেষ্টা চলছে।

এদিকে শুক্রবার সকালে মরদেহ উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। আটক ব্যক্তির মধ্যে হৃদয়কে আজই আদালতে হাজির করা হবে।

অন্য দুজনকে আগেই আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে নিহতের চাচা মো. শফি বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেছেন।

ঝিনাইদহে কলেজছাত্রের মাটিচাপা লাশ উদ্ধার, গ্রেফতার ৩

 ঝিনাইদহ প্রতিনিধি 
২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ঝিনাইদহে কলেজছাত্রের মাটিচাপা লাশ উদ্ধার, গ্রেফতার ৩
সুজন। ছবি: যুগান্তর

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলায় নিখোঁজের চার দিন পর কলেজছাত্র সুজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে পৌরসভার হাজামপাড়া গ্রামের ধানক্ষেতের স্যালোমেশিনের ঘর থেকে মাটিচাপা অবস্থায় মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত সুজন শৈলকুপা পৌরসভা এলাকার আউশিয়া গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসী জিল্লুর রহমানের ছেলে। তিনি শৈলকুপা ডিগ্রি কলেজের ছাত্র ছিলেন।

জানা যায়, গত ১৯ সেপ্টেম্বর বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে পৌরসভার হাজামপাড়া গ্রামের ধানক্ষেতের স্যালোমেশিনের ঘর থেকে মাটিচাপা অবস্থায় ওই কলেজছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

শৈলকুপা থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানান, এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহতের দুই বন্ধু হাজামপাড়া গ্রামের সাকিব ও নাজমুলকে আটক করা হয়েছে। এর পর বৃহস্পতিবার অপর বন্ধু হৃদয়কে আটক করার পর লাশের সন্ধান মিলে।

রাত ১১টার দিকে সুজনের মরদেহ হাজামপাড়া গ্রামের ধানক্ষেতের একটি স্যালোমেশিনের ঘরে মাটিচাপা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনার সঙ্গে নিহতের চার সহপাঠী জড়িত এবং তারা সবাই মাদকাশক্ত। হত্যার আগে সবাই গাঁজা সেবন করেছিল।

এ ঘটনার প্রধান আসামি সাকিবের ভাই রাকিবকে ধরার জন্য অভিযান চলছে।

শৈলকুপা থানার ওসি যুগান্তরকে বলেন, এ হত্যার পেছনে ভিন্ন কোনো কারণ থাকতে পারে। তবে কী সে কারণ তা জানার চেষ্টা চলছে।

এদিকে শুক্রবার সকালে মরদেহ উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। আটক ব্যক্তির মধ্যে হৃদয়কে আজই আদালতে হাজির করা হবে।

অন্য দুজনকে আগেই আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে নিহতের চাচা মো. শফি বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেছেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন