পাবনা-৪ উপনির্বাচনে জয় পেলেন আ’লীগ প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস
jugantor
পাবনা-৪ উপনির্বাচনে জয় পেলেন আ’লীগ প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস

  ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি  

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৫০:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী আটঘরিয়া) আসনের উপনির্বাচনে নুরুজ্জামান বিশ্বাস নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৩৯ হাজার ৯২৪ ভোট পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

শনিবার অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব পেয়েছেন ৫ হাজার ৫৭৬ ভোট এবং লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী রেজাউল করিম পেয়েছেন ৩ হাজার ৭৪ ভোট।

বিজয় সম্পর্কে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় নুরুজ্জামান বিশ্বাস বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকার ভোটার এবং সব শ্রেণি পেশার মানুষের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। সবার সহযোগিতায় আমি একটি সুন্দর ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া গড়ে তোলা এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ধারাবাহিক উন্নয়ন কর্মসূচী সফল করার জন্য কাজ করব।

এদিকে ধানের শীষের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব নির্বাচনে অংশ নিলেও নানা অনিয়মের কারণ দেখিয়ে দুপুর ১২টায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান।

গত ২ এপ্রিল সাংসদ শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মৃত্যুতে পাবনা-৪ আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়। এরপর ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচন করার কথা থাকলেও মহামারীর কারণে তা সম্ভব হয়নি।

পরবর্তীতে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার মধ্যে ২৬ সেপ্টেম্বর পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়।

পাবনা-৪ উপনির্বাচনে জয় পেলেন আ’লীগ প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস

 ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী আটঘরিয়া) আসনের উপনির্বাচনে নুরুজ্জামান বিশ্বাস নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৩৯ হাজার ৯২৪ ভোট পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

শনিবার অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব পেয়েছেন ৫ হাজার ৫৭৬ ভোট এবং লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী রেজাউল করিম পেয়েছেন ৩ হাজার ৭৪ ভোট।

বিজয় সম্পর্কে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় নুরুজ্জামান বিশ্বাস বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকার ভোটার এবং সব শ্রেণি পেশার মানুষের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। সবার সহযোগিতায় আমি একটি সুন্দর ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া গড়ে তোলা এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ধারাবাহিক উন্নয়ন কর্মসূচী সফল করার জন্য কাজ করব।

এদিকে ধানের শীষের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব নির্বাচনে অংশ নিলেও নানা অনিয়মের কারণ দেখিয়ে দুপুর ১২টায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান।

গত ২ এপ্রিল সাংসদ শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মৃত্যুতে পাবনা-৪ আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়। এরপর ৯০ দিনের মধ্যে উপনির্বাচন করার কথা থাকলেও মহামারীর কারণে তা সম্ভব হয়নি।

পরবর্তীতে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার মধ্যে ২৬ সেপ্টেম্বর পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন