নড়িয়া-সখিপুরে কোনো বাঁশের সাঁকো থাকবে না: পানি সম্পদ উপমন্ত্রী
jugantor
নড়িয়া-সখিপুরে কোনো বাঁশের সাঁকো থাকবে না: পানি সম্পদ উপমন্ত্রী

  শরীয়তপুর প্রতিনিধি  

২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৫৯:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

শরীয়তপুর

পানি সম্পাদক উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেছেন, নড়িয়া ও সখিপুরে আর কোনো বাঁশের সাঁকো থাকবে না। যেখানে বাঁশের সাঁকো আছে সেখানে আমরা ব্রিজের জন্য কাজ শুরু করেছি।

তিনি আরো বলেন, মানীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে গত বছর আমরা নদী ভাঙ্গন রোধের জন্য আপ্রাণ চেষ্টার পরও ১২টি বাড়ি ভেঙেছে। কিন্তু এ বছর আজকের দিন পর্যন্ত নড়িয়ায় একটি বাড়িও ভাঙ্গেনি। আশা করি আল্লাহর অশেষ রহমতে আমরা ভাঙ্গন রোধ করতে পেরেছি। অপর দিকে নড়িয়ার কীর্তিনাশা নদীর দু পাড়ে আমরা ৪০০ কোটি টাকার প্রকল্প করেছি। যা শরীয়তপুর জেলা শহর পর্যন্ত হবে।

তিনি শনিবার সকালে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার বিঝারী ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের উদ্যোগে পঞ্চপল্লী গুরুমার উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবনে এক বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

বিঝারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল বাশার হাওলাদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফজলুল হক মাল, সাধারণ সস্পাদক মাস্টার হাসানুজ্জামান খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক, আব্দুস সালাম মাষ্টার, বায়রার অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান হাওলাদার, জেলা পরিষদের সদস্য আলি আহম্মদ কাজী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম চৌকিদার, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবদুল হাসিন খান, আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল ছালাম মাস্টার, বিঝারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দিল মো. দিলু শেখ, কার্যকরী সদস্য শাহ আলাম চৌকিদার, আওয়ামী লীগ নেতা ফজলুল হক সৈয়দ, ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক জানে আলম চৌকিদার, নান্নু বেপারী প্রমুখ।

নড়িয়া-সখিপুরে কোনো বাঁশের সাঁকো থাকবে না: পানি সম্পদ উপমন্ত্রী

 শরীয়তপুর প্রতিনিধি 
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শরীয়তপুর
পানি সম্পাদক উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম শনিবার সকালে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার বিঝারী ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের উদ্যোগে পঞ্চপল্লী গুরুমার উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবনে এক বর্ধিত সভায়

পানি সম্পাদক উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেছেন, নড়িয়া ও সখিপুরে আর কোনো বাঁশের সাঁকো থাকবে না। যেখানে বাঁশের সাঁকো আছে সেখানে আমরা ব্রিজের জন্য কাজ শুরু করেছি।

তিনি আরো বলেন, মানীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে গত বছর আমরা নদী ভাঙ্গন রোধের জন্য আপ্রাণ চেষ্টার পরও ১২টি বাড়ি ভেঙেছে। কিন্তু এ বছর আজকের দিন পর্যন্ত নড়িয়ায় একটি বাড়িও ভাঙ্গেনি। আশা করি আল্লাহর অশেষ রহমতে আমরা ভাঙ্গন রোধ করতে পেরেছি। অপর দিকে নড়িয়ার কীর্তিনাশা নদীর দু পাড়ে আমরা ৪০০ কোটি টাকার প্রকল্প করেছি। যা শরীয়তপুর জেলা শহর পর্যন্ত হবে।

তিনি শনিবার সকালে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার বিঝারী ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের উদ্যোগে পঞ্চপল্লী গুরুমার উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবনে এক বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

বিঝারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল বাশার হাওলাদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, নড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফজলুল হক মাল, সাধারণ সস্পাদক মাস্টার হাসানুজ্জামান খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক, আব্দুস সালাম মাষ্টার, বায়রার অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান হাওলাদার, জেলা পরিষদের সদস্য আলি আহম্মদ কাজী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম চৌকিদার, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবদুল হাসিন খান, আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল ছালাম মাস্টার, বিঝারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দিল মো. দিলু শেখ, কার্যকরী সদস্য শাহ আলাম চৌকিদার, আওয়ামী লীগ নেতা ফজলুল হক সৈয়দ, ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক জানে আলম চৌকিদার, নান্নু বেপারী প্রমুখ।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন