নড়াইলে আওয়ামী লীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা
jugantor
নড়াইলে আওয়ামী লীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

  নড়াইল প্রতিনিধি  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৯:৫২:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে নড়াইলের কালিয়ায় আরিফ খন্দকার (৫০) নামে এক আওয়ামী লীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার রাতে উপজেলার জামরিলডাঙ্গা গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

আরিফ উপজেলার পেড়লী ইউনিয়নের জামরিলডাঙ্গা গ্রামের মৃত নূর আলী (নুরু) খন্দকারের ছেলে। তিনি পেড়লী ইউপি আওয়ামী লীগের একজন অন্যতম কর্মী ছিলেন।

ঘটনার পর থেকে গ্রামটিতে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাত ১১টার দিকে আরিফ খন্দকার জামরিলডাঙ্গা বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। তিনি দক্ষিণ জামরিলডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছে পৌঁছলে প্রতিপক্ষ দুর্বৃত্তরা তার পথ রোধ করে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল-কালিয়া) রিপন চন্দ্র সরকার ও কালিয়া থানার ওসি রফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নড়াইলে আওয়ামী লীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা

 নড়াইল প্রতিনিধি 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে নড়াইলের কালিয়ায় আরিফ খন্দকার (৫০) নামে এক আওয়ামী লীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার রাতে উপজেলার জামরিলডাঙ্গা গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

আরিফ উপজেলার পেড়লী ইউনিয়নের জামরিলডাঙ্গা গ্রামের মৃত নূর আলী (নুরু) খন্দকারের ছেলে। তিনি পেড়লী ইউপি আওয়ামী লীগের একজন অন্যতম কর্মী ছিলেন।

ঘটনার পর থেকে গ্রামটিতে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাত ১১টার দিকে আরিফ খন্দকার জামরিলডাঙ্গা বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। তিনি দক্ষিণ জামরিলডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছে পৌঁছলে প্রতিপক্ষ দুর্বৃত্তরা তার পথ রোধ করে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল-কালিয়া) রিপন চন্দ্র সরকার ও কালিয়া থানার ওসি রফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

 
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন