নারায়ণগঞ্জে ১৪৪ ধারা ভঙ্গের চেষ্টায় আটক ২
jugantor
নারায়ণগঞ্জে ১৪৪ ধারা ভঙ্গের চেষ্টায় আটক ২

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৩৮:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রয়াত আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যু নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে গ্রেফতারকৃত আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের সদস্য মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীর মুক্তি নিয়ে দুই দলের মুখোমুখি অবস্থানকে কেন্দ্র করে ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন। রোববার ১৪৪ ধারা ভঙ্গের চেষ্টা করলে দুইজনকে আটক করে পুলিশ।

জানা গেছে, মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীর মুক্তি ইস্যুতে আহলে সুন্নাত ও হেফাজতপন্থীরা মুখোমুখি অবস্থান নেয়। এতে শহরের কয়েকটি স্থানে ১৪৪ ধারা জারি করেছিল জেলা প্রশাসন। এদিকে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করেই আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের নেতাকর্মীরা আলাউদ্দিন জিহাদীকে মুক্তির দাবিতে ডাকা গণজমায়েত করার চেষ্টা করলে ২ আহলে সুন্নাতপন্থীকে আটক করেছে পুলিশ।

সদর থানার ওসি আসাদুজ্জামান জানান, দুপুর ২টায় নিতাইগঞ্জ বায়তুল ইজ্জত জামে মসজিদের সামনে গণজমায়েত করার চেষ্টাকালে পুলিশ সেখান থেকে সোহাগ এবং হাবিবুর রহমান নামের ২ জন আহলে সুন্নাতপন্থীকে আটক করে।

মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীকে জামিন দিয়েছেন আদালত। রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আনিসুর রহমানের আদালত পুলিশ প্রতিবেদন পাওয়া পর্যন্ত ওই জামিন মঞ্জুর করেন।

জানা গেছে, ফেসবুকে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রয়াত আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যু নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে গত ২০ সেপ্টেম্বর দুপুরে ফতুল্লার মাহমুদপুর এলাকার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীকে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে হেফাজতে ইসলাম ও ওলামা পরিষদের নেতা মুফতি হারুন অর রশীদের দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার করা হয় জিহাদীকে।

জিহাদীর মুক্তি দাবিতে গণজমায়েতের ডাক দেয় আহলে সুন্নাতপন্থীরা। অপরদিকে জিহাদীর বিচারের দাবিতে আন্দোলনে নামে ওলামা পরিষদ। এ নিয়ে গত কয়েক দিন নারায়ণগঞ্জ শহর ছিল উত্তপ্ত। গত ২৬ সেপ্টেম্বর শনিবার রাতে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ওলামা পরিষদ ও হেফাজত নেতাসহ আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের নেতাদের সঙ্গে পৃথকভাবে বৈঠক করেন। বৈঠকে উভয়পক্ষকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে- কোনো ধরনের জমায়েত ও উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করা যাবে না। সেই সঙ্গে উস্কানিও চলবে না।

নারায়ণগঞ্জে ১৪৪ ধারা ভঙ্গের চেষ্টায় আটক ২

 নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রয়াত আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যু নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে গ্রেফতারকৃত আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের সদস্য মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীর মুক্তি নিয়ে দুই দলের মুখোমুখি অবস্থানকে কেন্দ্র করে ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন। রোববার ১৪৪ ধারা ভঙ্গের চেষ্টা করলে দুইজনকে আটক করে পুলিশ।

জানা গেছে, মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীর মুক্তি ইস্যুতে আহলে সুন্নাত ও হেফাজতপন্থীরা মুখোমুখি অবস্থান নেয়। এতে শহরের কয়েকটি স্থানে ১৪৪ ধারা জারি করেছিল জেলা প্রশাসন। এদিকে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করেই আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের নেতাকর্মীরা আলাউদ্দিন জিহাদীকে মুক্তির দাবিতে ডাকা গণজমায়েত করার চেষ্টা করলে ২ আহলে সুন্নাতপন্থীকে আটক করেছে পুলিশ।

সদর থানার ওসি আসাদুজ্জামান জানান, দুপুর ২টায় নিতাইগঞ্জ বায়তুল ইজ্জত জামে মসজিদের সামনে গণজমায়েত করার চেষ্টাকালে পুলিশ সেখান থেকে সোহাগ এবং হাবিবুর রহমান নামের ২ জন আহলে সুন্নাতপন্থীকে আটক করে।

মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীকে জামিন দিয়েছেন আদালত। রোববার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আনিসুর রহমানের আদালত পুলিশ প্রতিবেদন পাওয়া পর্যন্ত ওই জামিন মঞ্জুর করেন।

জানা গেছে, ফেসবুকে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রয়াত আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যু নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে গত ২০ সেপ্টেম্বর দুপুরে ফতুল্লার মাহমুদপুর এলাকার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছিল মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীকে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে হেফাজতে ইসলাম ও ওলামা পরিষদের নেতা মুফতি হারুন অর রশীদের দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার করা হয় জিহাদীকে।

জিহাদীর মুক্তি দাবিতে গণজমায়েতের ডাক দেয় আহলে সুন্নাতপন্থীরা। অপরদিকে জিহাদীর বিচারের দাবিতে আন্দোলনে নামে ওলামা পরিষদ। এ নিয়ে গত কয়েক দিন নারায়ণগঞ্জ শহর ছিল উত্তপ্ত। গত ২৬ সেপ্টেম্বর শনিবার রাতে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ওলামা পরিষদ ও হেফাজত নেতাসহ আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের নেতাদের সঙ্গে পৃথকভাবে বৈঠক করেন। বৈঠকে উভয়পক্ষকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে- কোনো ধরনের জমায়েত ও উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করা যাবে না। সেই সঙ্গে উস্কানিও চলবে না।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন