কুমিল্লায় গণপিটুনিতে ডাকাত নিহত
jugantor
কুমিল্লায় গণপিটুনিতে ডাকাত নিহত

  কুমিল্লা ব্যুরো  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২১:৪৪:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লা

কুমিল্লায় গণপিটুনিতে এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। সোমবার ভোরে সদর দক্ষিণ উপজেলার বিজয়পুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তবে বিকাল পর্যন্ত ওই ডাকাতের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। এছাড়া নিহতের পরিচয় শনাক্ত করতে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ওই ডাকাতের আঙুলের ছাপ সংগ্রহ করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার ভোর ৪টার দিকে মধ্যম বিজয়পুর গ্রামের ইয়া খানের বাড়িতে ১০-১২ জনের একদল ডাকাত অস্ত্রসহ প্রবেশ করে। এ সময় ইয়া খানের পরিবারের সদস্যরা ডাকাতদের উপস্থিতি টের পেয়ে চিৎকার শুরু করেন। এর কিছুক্ষণ পরই মসজিদের মাইকে ডাকাত আসার খবর ঘোষণা করা হয়। পরে গ্রামের লোকজন ওই ডাকাতদের আটকের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে গ্রামবাসী ধাওয়া করে দুজন ডাকাতকে আটক করলেও একজন কৌশলে পালিয়ে যায়। এরপর অপর ডাকাত সদস্যের হাতে থাকা ছোরা ও চাপাতি দিয়ে গ্রামবাসীর উওর আক্রমণ করে। এ সময় গ্রামবাসী তাকে আটক করে গণধোলাই দেন। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

সদর দক্ষিণ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমেকে প্রেরণ করেছে। ওই ডাকাত সদস্যের পরিচয় শনাক্তের জন্য পিবিআইয়ের সদস্যরা আঙ্গুলের ছাপ নিয়েছে। পরিচয় পাওয়া গেলে তার সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে। ডাকাত সদস্যের সঙ্গে থাকা ছোরা ও চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে। আর ডাকাত নিহতের ঘটনায় অজ্ঞাতদের আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কুমিল্লায় গণপিটুনিতে ডাকাত নিহত

 কুমিল্লা ব্যুরো 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কুমিল্লা
কুমিল্লা

কুমিল্লায় গণপিটুনিতে এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। সোমবার ভোরে সদর দক্ষিণ উপজেলার বিজয়পুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তবে বিকাল পর্যন্ত ওই ডাকাতের নাম-পরিচয় জানা যায়নি। এছাড়া নিহতের পরিচয় শনাক্ত করতে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ওই ডাকাতের আঙুলের ছাপ সংগ্রহ করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার ভোর ৪টার দিকে মধ্যম বিজয়পুর গ্রামের ইয়া খানের বাড়িতে ১০-১২ জনের একদল ডাকাত অস্ত্রসহ প্রবেশ করে। এ সময় ইয়া খানের পরিবারের সদস্যরা ডাকাতদের উপস্থিতি টের পেয়ে চিৎকার শুরু করেন। এর কিছুক্ষণ পরই মসজিদের মাইকে ডাকাত আসার খবর ঘোষণা করা হয়। পরে গ্রামের লোকজন ওই ডাকাতদের আটকের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে গ্রামবাসী ধাওয়া করে দুজন ডাকাতকে আটক করলেও একজন কৌশলে পালিয়ে যায়। এরপর অপর ডাকাত সদস্যের হাতে থাকা ছোরা ও চাপাতি দিয়ে গ্রামবাসীর উওর আক্রমণ করে। এ সময় গ্রামবাসী তাকে আটক করে গণধোলাই দেন। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

সদর দক্ষিণ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমেকে প্রেরণ করেছে। ওই ডাকাত সদস্যের পরিচয় শনাক্তের জন্য পিবিআইয়ের সদস্যরা আঙ্গুলের ছাপ নিয়েছে। পরিচয় পাওয়া গেলে তার সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে। ডাকাত সদস্যের সঙ্গে থাকা ছোরা ও চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে। আর ডাকাত নিহতের ঘটনায় অজ্ঞাতদের আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন