বগুড়ায় নবজাতক চুরির চেষ্টা, নারীর বিরুদ্ধে মামলা
jugantor
বগুড়ায় নবজাতক চুরির চেষ্টা, নারীর বিরুদ্ধে মামলা

  বগুড়া ব্যুরো  

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২২:৫০:১৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের আইসিইউ থেকে এক নবজাতক চুরি করে পালানোর সময় আটক ফাতেমাতুজ্জোহরা শাওনের (২৭) বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। শিশুটির মামা আনোয়ার হোসেন সদর থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবীর জানান, গ্রেফতার শাওনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করতে তাকে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।

অভিযোগে জানা গেছে, জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার দক্ষিণ জয়দেবপুর গ্রামের আশরাফুল ইসলামের স্ত্রী খাদিজা বেগম প্রসব ব্যথা নিয়ে গত ২১ সেপ্টেম্বর জয়পুরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি হন। রাত ৮টার দিকে তিনি মেয়েসন্তান প্রসব করেন। প্রসূতির অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

২২ সেপ্টেম্বর রাত দেড়টার দিকে তাকে গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার আরও অবনতি হলে তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। গত ২৭ সেপ্টেম্বর বেলা ১টার দিকে বগুড়া শহরের চকফরিদ এলাকার মৃত আবদুস সাত্তার মণ্ডলের মেয়ে ফাতেমাতুজ্জোহরা শাওন সেখানে আসেন। তিনি ছয় দিন বয়সী ওই শিশুকে কোলে নিয়ে আদর করতে থাকেন। একপর্যায়ে তিনি শিশু নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন।

এ সময় গাইনি ওয়ার্ডের লোকজন টের পেয়ে চিৎকার করতে থাকেন। শিশুসহ শাওনকে আটক করে হাসপাতালের আনসার সদস্যের কাছে সোপর্দ করা হয়। পরে সদর থানা পুলিশ সেখানে গিয়ে শাওনকে গ্রেফতার করে।

সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবীর জানান, ধারণা করা হচ্ছে- এ ঘটনার সাথে হাসপাতালের কোনো টেকনিশিয়ান জড়িত আছে। এ ব্যাপারে শিশুর মামা জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন সোমবার বগুড়া সদর থানায় শাওনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি সন্তান চুরির কথা স্বীকার করেছেন। তবে এ ঘটনায় হাসপাতালের কে জড়িত তা বলতে অস্বীকৃতি জানান।

বগুড়ায় নবজাতক চুরির চেষ্টা, নারীর বিরুদ্ধে মামলা

 বগুড়া ব্যুরো 
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের আইসিইউ থেকে এক নবজাতক চুরি করে পালানোর সময় আটক ফাতেমাতুজ্জোহরা শাওনের (২৭) বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। শিশুটির মামা আনোয়ার হোসেন সদর থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবীর জানান, গ্রেফতার শাওনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করতে তাকে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।

অভিযোগে জানা গেছে, জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার দক্ষিণ জয়দেবপুর গ্রামের আশরাফুল ইসলামের স্ত্রী খাদিজা বেগম প্রসব ব্যথা নিয়ে গত ২১ সেপ্টেম্বর জয়পুরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি হন। রাত ৮টার দিকে তিনি মেয়েসন্তান প্রসব করেন। প্রসূতির অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

২২ সেপ্টেম্বর রাত দেড়টার দিকে তাকে গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার আরও অবনতি হলে তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। গত ২৭ সেপ্টেম্বর বেলা ১টার দিকে বগুড়া শহরের চকফরিদ এলাকার মৃত আবদুস সাত্তার মণ্ডলের মেয়ে ফাতেমাতুজ্জোহরা শাওন সেখানে আসেন। তিনি ছয় দিন বয়সী ওই শিশুকে কোলে নিয়ে আদর করতে থাকেন। একপর্যায়ে তিনি শিশু নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন।

এ সময় গাইনি ওয়ার্ডের লোকজন টের পেয়ে চিৎকার করতে থাকেন। শিশুসহ শাওনকে আটক করে হাসপাতালের আনসার সদস্যের কাছে সোপর্দ করা হয়। পরে সদর থানা পুলিশ সেখানে গিয়ে শাওনকে গ্রেফতার করে।

সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবীর জানান, ধারণা করা হচ্ছে- এ ঘটনার সাথে হাসপাতালের কোনো টেকনিশিয়ান জড়িত আছে। এ ব্যাপারে শিশুর মামা জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেন সোমবার বগুড়া সদর থানায় শাওনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি সন্তান চুরির কথা স্বীকার করেছেন। তবে এ ঘটনায় হাসপাতালের কে জড়িত তা বলতে অস্বীকৃতি জানান।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন